শিরোনাম

বাংলাদেশ

এমপি কেয়া চৌধুরীর উপর হামলার আসামী তারা মিয়া ও সাহেদ ঢাকায় গ্রেফতার

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ হবিগঞ্জ-সিলেট সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরীর উপর হামলার আসামী বাহুবল উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান তারা মিয়া ও জেলা পরিষদের সদস্য আলাউর রহমান সাহেদকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ। গতকাল রাত ১০টায় ঢাকার কদমতলী এলাকার একটি বাসা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ সূত্র জানায়, তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদকে গ্রেফতারের জন্য হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশের ওসি মোঃ শাহ আলম, ইন্সপেক্টর আহসান হাবীব ও এসআই ইকবাল বাহারের নেতৃত্বে ডিবি পুলিশের একটি টিম ৩ দিন পূর্বে রাজধানী ঢাকায় অবস্থায় নেয়। এরপর এই টিমটি ঢাকার বিভিন্ন স্থানে তাদেরকে গ্রেফতারের জন্য তল্লাসী চালায়। গতকাল সন্ধ্যায় পুলিশ নিশ্চিত হয় তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদ কদমতলী এলাকার একটি বাসায় অবস্থান করছেন। এই তথ্য নিশ্চিত হওয়ার পর ওই বাসায় অভিযান চালিয়ে তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদকে গ্রেফতার করা হয়।789F21BA-37AB-434F-ABC9-28F3E8F96D95

বিভিন্ন সূত্র জানায়, হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন লাভ করার জন্য তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদ ঢাকা গিয়েছিলেন। কিন্তু হাইকোর্টে তিন দফা জামিন আবেদন করে তিনবারই জামিন নামঞ্জুর হয়। সর্বশেষ গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে তারা মিয়া ও সাহেদের পক্ষে হাইকোর্টের ১৫নং কোর্টে জামিন আবেদন করেন সিনিয়র তিন আইনজীবী। সরকার পক্ষে জামিনের বিরোধীতা করেন এ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও এডিশনাল এ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা। শুনানি শেষে বিজ্ঞ বিচারপতি আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিল তাদের জামিন না-মঞ্জুর করেন। জামিন না-মঞ্জুর হওয়ায় তারা মিয়া ও সাহেদ বিফল মনোরথে হাইকোর্ট থেকে ঢাকার কদমতলীর বাসায় ফিরেন। গোপন সূত্রে এ খবর পেয়ে যায় ঢাকায় অবস্থানরত হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশ।BCA9C08B-CDCC-4BDD-92C3-48CA2D579AFD
পুলিশের একটি সূত্র জানায়, গ্রেফতারকৃত তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদ ঢাকায় অবস্থান নিয়ে হাইকোর্টে আগাম জামিন আবেদন করে জামিন পাননি। বিষয়টি পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বিবেচনায় নিয়ে ও নারী সংসদ সদস্যের উপর হামলার ঘটনাটিকে গুরুত্ব দিয়ে তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদকে গ্রেফতারের জন্য হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়। এ পরিপ্রেক্ষিতে ডিবি পুলিশ ঢাকায় অবস্থান নিয়ে গতকাল রাত ১০টার দিকে তাদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশের ওসি মোঃ শাহ আলম জানান, ঢাকায় ৩ দিন অবস্থান নিয়ে এমপি কেয়া চৌধুরীসহ নারী ইউপি সদস্যের উপর হামলা মামলার আসামী বাহুবল উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান তারা মিয়া ও জেলা পরিষদ সদস্য আলাউর রহমান সাহেদকে গ্রেফতার করা হয়। রাতেই তাদেরকে নিয়ে হবিগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয় ডিবি পুলিশ। রাত ২টার দিকে তারা হবিগঞ্জ ডিবি অফিসে এসে পৌঁছায়। আজ বুধবার তাদেরকে আদালতে হাজির করা হবে।
প্রসঙ্গত, গত ১০ নভেম্বর বাহুবল উপজেলার মিরপুর বাজারের অদূরে বেদে পল্লীতে সরকারি সহায়তার চেক বিতরণকালে এমপি কেয়া চৌধুরীর উপর হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় নারী ইউপি সদস্য পারভীন আক্তার ও সাবেক নারী ইউপি সদস্য রাহিলা আক্তারসহ কয়েকজন আহত হন। ১৮ নভেম্বর রাতে এ ব্যাপারে মামলা দায়ের করেন লামাতাসী ইউপি’র ১নং (সাধারণ ওয়ার্ড ১, ২ ও ৩) সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী সদস্য পারভীন আক্তার। মামলায় তারা মিয়া, আলাউর রহমান সাহেদ ও তারা মিয়ার ম্যানেজার জসিম উদ্দিনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ১৪/১৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়। জসিম উদ্দিন আদালতে হাজির হয়ে জামিন চাইলে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করেন।

এ ঘটনার ২৩ দিনের মাথায় হামলার ঘটনার সাথে জড়িত তারা মিয়া ও অলিউর রহমান সাহেদকে গ্রেফতার করার খবর পেয়ে এমপি কেয়া চৌধুরী স্বরাষ্টমন্ত্রী, আইনমন্ত্রনালয় ও হবিগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন তাদের গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার আবারও প্রমান করল আপরাদী যেই হউক তারা আইনের উর্ধে নয়।এবং তিনি আরও বলেন, বাহুবল নবীগঞ্জবাসী হবিগঞ্জ সিলেটসহ বর্হিবিশ্বে অবস্থানরত সংগঠনের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার প্রতিনিধি এবং সাধারণ মানুষের স্বতফুর্ত নেতৃত্বে আমার আমার উপর হামলার প্রতিবাদ জানিয়ে জড়িতদের শাস্তির দাবিতে যে অগ্রনী ভুমিকা রেখেছেন আমি কেয়া চৌধুরী আজীবন স্বরন রাখব।

আলহাজ দেওয়ান ফরিদ গাজী’র ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

FARID GAZI 3

১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধুর সাথে সিলেটে একটি জনসভায় দেওয়ান ফরিদ গাজী

Farid Gazi 2

১৯৭২ সালে মুক্তিযুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্থ কীন ব্রীজ মেরামত শেষে উদ্ভোধন করছেন দেওয়ান ফরিদ

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি: জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর, বৃহত্তর সিলেট আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সংগঠক ও মহান মুক্তিযুদ্ধের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রণাঙ্গনের ৪ ও ৫ নম্বর সেক্টরের বেসামরিক উপদেষ্টা এবং প্রশাসনিক চেয়ারম্যান ৫ বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য, সাবেক মন্ত্রী দেওয়ান ফরিদ গাজী এমপি’র ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী গতকাল শনিবার তাঁর জন্মস্থান নবীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পালিত হয়েছে। মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মিলাদ মাহফিল ও তাঁর রূহের মাগফেরাত কামনা করা হয়। দেওয়ান ফরিদ গাজী স্মৃতি সংসদ এর উদ্যোগে গতকাল শনিবার সন্ধা রাতে ঢাকা- সিলেট মহা সড়কের দেবপাড়া বাজারেও এক মিলাদ মাহফিল ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দেওয়ান ফরিদ গাজীর পুত্র আওয়ামী লীগের নেতা শাহ নেওয়াজ গাজী মিলাদ। এতে অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন, ফরিদ গাজী স্মৃতি সংসদের আহবায়ক রুহেল আহমদ, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী দিলারা বেগম, মেম্বার রাবেয়া বেগমসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীগণ।

 

খেলাফত মজলিস যুক্তরাজ্য শাখা পুনর্গঠন ।। মাওলানা সাদিকুর রাহমান সভাপতি ও মাওলানা শাহ মিজানুল হক সাধারণ সম্পাদক

লন্ডন, ১৫ নভেম্বর: খেলাফত মজলিস যুক্তরাজ্য শাখার মজলিসে শুরার অধিবেশন গত ১১ নভেম্বর  ইস্ট লন্ডনস্থ আল-হুদা ইসলামিক সেন্টারে  অনুষ্ঠিত হয়। অধ্যাপক মাওলানা আব্দুল কাদির সালেহ এর সভাপতিত্বে ও আলহাজ্ব সদরুজজামান খানের পরিচালনায় শুরা অধিবেশনে বিগত দুই বছরের সাংগঠনিক কাজের রিপোর্ট পেশ ও পর্যালাচনা করা হয়।

মজলিসে শুরা অধিবেশনে ২০১৮-১৯ সেশনের জন্য যুক্তরাজ্য শাখা পুনর্গঠন করা হয়। প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন খেলাফত মজলিসের যুগ্মমহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা আব্দুল কাদির সালেহ ও সহকারী নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ইউরোপ খেলাফত মজলিসের তত্বাবধায়ক আলহাজ্ব এম সদরুজ্জামান খান ও ড. আব্দুশ শুকুর ।

শুরার সদস্যদের গোপন ভোটের মাধ্যমে ২০১৮-’১৯ সেশনের জন্য সভাপতি নির্বাচিত হন মাওলানা সাদিকুর রাহমান এবং সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন মাওলানা শাহ মিজানুল হক।

এছাড়াও অন্যান্য দায়িত্বশীলরা হচ্ছেন- সহ সভাপতি মুফতি তাজুল ইসলাম, কারী আব্দুল মুকিত আজাদ, মাওলানা শওকত আলী, হাফিজ কাদির, মুফতি হাফিজ হাসান নুরী চৌধুরী, মাওলানা গোলাম মোহায়মীন ফরহাদ চৌধুরী। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা এনামুল হাসান ছাবির, মাওলানা আব্দুল করীম, মাওলানা আ ফ ম শুয়াইব, মুহাম্মদ আব্দুল করিম উবায়েদ। বায়তুলমাল সম্পাদক মাওলানা তায়ীদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফিজ মাওলানা কামরুল হাসান খান, তারবীয়াহ সম্পাদক মাওলানা মাহবুবুর রহমান তালুকদার, দাওয়াহ সম্পাদক মাওলানা আতাউর রহমান জাকির, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক শেখ হাফিজ মুশতাক আহমদ, অফিস ও প্রচার সম্পাদক সৈয়দ মারুফ আহমদ, সমাজ কল্যান সম্পাদক মাওলানা আব্দুল আহাদ, সদস্য হাফিজ সৈয়দ কফিল আহমদ, মির্জা আসহাব বেগ, সৈয়দ কবির আহমদ, হাফেজ মাওলানা সাদিকুর রহমান ও প্রফেসার আহজাবুল হক প্রমুখ।

তিন দিনের চিল্লা শেষে কবর থেকে উঠে এসেছেন নবীগঞ্জের জিন্দা শাহ

উত্তম কুমার পাল হিমেলঃ হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে কবরে ৩দিনের চিল্লা শেষে সম্পুর্ণ অক্ষত অবস্থায় কবর থেকে উঠে এসেছেন জিন্দা শাহ । জিন্দা শাহ নামের এই ব্যক্তির অদ্ভুত কর্মকান্ড নতুন নয় এর আগে ও একাধিক বার তিনি কবরে চিল্লায় গেছেন। এঘটনায় উপজেলা জুড়ে নানা আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে । গত শনিবার রাতে কবরবাসে যান জিন্দা শাহ । এমন কর্মকান্ডকে ‘ভন্ড পীর বলেও মন্তব্য করছেন অনেকেই। জানা যায়, নবীগঞ্জ পৌর এলাকার তিমিরপুর গ্রামের বাসিন্দা জিতু মিয়া। বয়স ৭০ বছরের বেশি হবে। জিতু মিয়া নিজেকে জিন্দা শাহ দাবী করেন। এমনকি এলাকার তিনি জিন্দা বাবা নামেও পরিচিত । গত শনিবার রাত ৩ টার সময় জিন্দা শাহ নিজের ঘরের ভিতরে একটি কবর খনন করে ৩দিনের চিল্লায় চলে যান কবরবাসে। তারপর তিন দিন তিন রাত শেষে মঙ্গলবার বেলা ১২ টার দিকে কবর চিল্লা শেষে অক্ষত অবস্থায় উঠে আসেন জিন্দা শাহ। 1
এ সময় জিন্দা শাহ’র বাড়িতে উৎসুক জনতার ভীড় ছিল লক্ষনীয় । কবর থেকে উঠে এসে জিন্দা শাহ জিতু মিয়া (জিন্দা শাহ) প্রতিবেদকে জানান, ৩দিন ৩রাত শেষে আজ উঠে এসেছি । প্রতিবেদকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, আমার সঙ্গে প্রতিবারের মতো এবার ও ৩শ গ্রাম আঙ্গুর ছিল,কবর চিল্লা এখানেই শেষ । কিছুদিনের ভিতর ওরস করবো এবং যদি কেউ স্থান দেয় তাহলে অগ্নি চিল্লা ও পানি চিল্লা করবো । জানা গেছে,জিতু মিয়া (জিন্দা শাহ) কবরে যাওয়া এবারই প্রথম নয়! এর আগেও তিনি একাধিকবার কবরে অবস্থান করেছেন। এমনিক পানিতে ভেসেও রাত কাটিয়েছেন। জিন্দা শাহ, গত ৪৫ বছর ধরে ভারতসহ দেশের বিভিন্ন মাজারে মাজারে ‘সাধনা’ করেছেন। তিনি হবিগঞ্জ শহরতলীর মরহুম আধ্যাত্মিক সাধক দেওয়ান মাহবুব রাজার ভক্ত। স্বপ্নের মাধ্যমে মাহবুব রাজার কাছ থেকে ‘চিল্লা’য় যাওয়ার নির্দেশ পেয়েছেন তিনি। জিতু মিয়ার মূল বাড়ি সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা উপজেলায়। কিন্তু পাঁচ বছর ধরে নবীগঞ্জ উপজেলার তিমিরপুর গ্রামে বাস করছেন তিনি। এর আগেও তিনি ১১বার কবরে চিল্লা দিয়েছেন বলে জানা গেছে । সংসার জীবনে তিনি তিন ছেলে ও দুই মেয়ের পিতা। কিন্তু সংসারে তিনি থাকেন না। সুযোগ পেলেই বেরিয়ে পড়েন। জিন্দা শাহর কবর চিল্লায় যাওয়ার ঘটনায় শিরিক আখ্যায়িত করে মাওলানা আব্দুর রকিব হাক্কানী নামে একব্যাক্তি বলেন বর্তমানে আমাদের সমাজে কিছু লোক আছে নানা কু-সংস্কার জড়িত এটা ভন্ডামি ছাড়া আর কিছু নয়।

আবারও অবৈধ দখলের কবলে সিলেটের তারাপুর চা বাগান

সিলেট থেকে বিশেষ প্রতিনিধিঃ বহুল আলোচিত সিলেটের তারাপুর চা বাগানটি অযত্ন আর অবহেলায় দিন দিন ম্লান হয়ে যাচ্ছে। নেই আগের সেই পরিচর্চ্চা। অবাধে গাছ কেটে বিক্রি করা হচ্ছে সেই সাথে তৈরী হচ্ছে শত শত অবৈধ স্থাপনা এবং নতুন নতুন দোকান কোঠা।এমন অভিযোগ স্থানীযদের। পাঠানুটলা, গোয়াবাড়ি, করেরপাড়াসহ বাগানটির আসপাশের বাসিন্দারা বিষয়টি লিখিতভাবে সিলেটের জেলা প্রশাসককেও জানিয়েছেন। তার পরেও চলছে দখল বানিজ্য। অদৃশ্য কারনে প্রশাসনও পালন করছে নীরব ভূমিকা।
জেলা প্রশাসক বরাবরে পাঠানো অভিযোগ পত্রে বলা হয় ২০১৬ সালে আদালতের রায়ে বাগানটি যখন পূনরায় দেবত্তর সম্পতি হিসেবে গণ্য হয় তখন তারা আশা করেছিলেন বাগানটি আগেকার অবস্থায় ফিরে আসবে, সেই সাথে উন্নয়ন করা হবে বাগানের। কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি। দেখা যাচ্ছে এর ‍উল্টো চিত্র। আদালতের রায়ে বলা হয়েছিল বানান থেকে স্থাপনা উচ্চেদ সহ বাগানটিকে আগরে অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে। যদিও প্রচলিত আইনে রয়েছে বাগান এলাকায় কোন বানিজ্যিক প্রতিষ্টান বা আবাসিক স্থাপনা তৈরী করা যাবেনা, তার পরেও সিলেটের কথিত দানবীর রাগিব আলী বাগানের অভ্যন্তরে প্রতিষ্টা করেছে কলেজ হাসপাতাল সহ শত শত বাড়ী ঘর। আদালেতের আদেশ থাকা সত্বেও প্রশান উচ্ছেদ অভিযান পরিচলনা তো দূরের কথা নতুন করে তৈরী হচ্ছে আবারও নতুন নতুন স্থাপনা।
এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, গত এক বছরে চা বাগানের পরিচর্চ্চা অর্থাৎ ঘাস ছাটাই করা হয়নি কোন প্রকার সার প্রয়োগ করাও হয়নি। তারা বর্তমান মালিকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এনে বলেন, বর্তমান মালিক পংকজ কুমার গুপ্ত বাগানের শত শত সেইড গাছ কেটে বাগানকে একটি পরিত্যাক্ত বাগানে পরিনত করেছেন। এছাড়া তিনি রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের উত্তর পাশে চা গাছ উপড়ে ফেলে ১৮টি দোকান তৈরী করে তা বিক্রি করার তৎপরতা চালাচ্ছেন বলেও আরা অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করেন।

বার্মিংহামে ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

বার্মিংহাম, ২৪ অক্টোবর:  যুক্তরাজ্যে বসবাসরত হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রছাত্রীদের উদ্যোগে গত ২৩ অক্টোবর সোমবার দুপরি ১২টা থেকে IMG_6482রাত ৯টা পর্যন্ত এক পুনর্মিলনীর আয়োজন করা হয়। IMG_6501এতে যুক্রাজ্যের বিভিন্ন শহরে বসবাসরত ইনাতঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীগণ উপস্থিত হন। আনন্দঘন ও উৎসবমুখর পরিবেশে শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সর্বস্তরের  অভিভাকমণ্ডলী, দাতাগণ এবং শুভাকাংঙ্খিগণের ব্যাপক উপস্থিতি ছিলো। এতে সাবেক শিক্ষার্থীদের সন্তান-সন্ততিরাও উপস্থিত থেকে বিভিন্ন খেলাধুলা ও প্রতিযোগিতায় অংশ নেন।
বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী দেলোয়ার হোসাইন দীপু, মোহাম্মদ গোলাIMG_6500ম কিবরিয়া ও জুবায়ের চৌধুরীর যৌথ সঞ্চালনায় এতে শুভেচ্ছা বক্তব্যIMG_6531 রাখেন সাবেক শিক্ষার্থী তাহের আহমদ। এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বার্মিংহাম মাল্টিপারপাস সেন্টারের পরিচালক আলহাজ নাছির আহমদ, বিদ্যালয়ের বিশিষ্ট দাতা মোঃ সাজান উদ্দিন, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা নাছির আহমদ শ্যামল, বিদ্যালয়ের প্রথম ব্যাচের শিক্ষার্থী খালেদ আহমদ, ইয়াওর উদ্দীন, সৈয়দ ইকবাল আহমদ, আব্দুল বাতেন, জায়দুল হক, আলাউর রহমান চৌধুরী, সাইফ উদ্দিন, আব্দুস সোবহান, কামরুল হাসান, হাফসা  হোসাইন, আকিকুর রহমান, মোঃ সামসুল হক, গোলাম মাওলা নিক্সন চৌধুরী, মিজানুর রহমান চৌধুরী, শাহীন খান, দিলাওয়ার চৌধুরী, আছাবুর রহমান জীবন, সজিব বখত, আখতার হোসাইন আলী, দুলেনুর রহমান, সোহেল আহমদ, সাইফুল আলম শিপু প্রমুখ।
বক্তারা ভবিষ্যতে আবারো স্কুলের সাবেক শিক্ষার্থী পুনর্মিলনীর মাধ্যমে পারস্পরিক সৌহার্দ ও ভাতৃত্বের বন্ধন আরো দৃঢ় করার উদ্যোগে গ্রহণের জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

বিস্তারিত আসছে….

চলে গেলেন প্রবীণ রাজনীতিক এমকে আনোয়ার

ঢাকা থেকে আবু হানিফঃ দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য এমকে আনোয়ারের মরদেহে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এমকে আনোয়ারের দ্বিতীয় নামাজের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, বিএনপি এবং অঙ্গদলের পক্ষ থেকে এমকে আনোয়ারের কফিনে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়। জানাজার নামাজে অংশ নেন- বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, খন্দকার মাহবুব হোসেন, জয়নাল আবেদীন, বরকত উল্লাহ বুলু, শাহজাহান ওমর, আহমদ আজম খান, শামসুজ্জামান দুদু, মোহাম্মদ শাহজাহান, উপদেষ্টা আবদুস সালাম, আমান উল্লাহ আমান, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন নবী খান সোহেলসহ বিএনপি ও অঙ্গ দলের নেতাকর্মীরা।এছাড়া কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম জানাজার নামাজে অংশ নেন।নয়াপল্টনে এম কে আনোয়ারের জানাজার নামাজ পড়ান ওলামা দলের সভাপতি আবদুল মালেক।এর আগে মঙ্গলবার সকাল ১০টায় কাঁটাবন মসজিদে তার প্রথম জানাজা হয়। বাদ জোহর সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় এমকে আনোয়ারের নামাজে জানাজা হবে।
বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, এমকে আনোয়ারের ছোট ছেলে ও মেয়ে দেশের বাইরে আছেন। তারা আজই লন্ডন থেকে ফিরবেন। এরপর কুমিল্লার হোমনায় পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে। প্রবীণ রাজনীতিক এমকে আনোয়ার সোমবার দিনগত রাত একটা ৪০ মিনিটে রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের বাসভবনে ইন্তেকাল করেন।মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। এমকে আনোয়ার দুই ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।এমকে আনোয়ারের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বর্ণাঢ্য এই রাজনীতিকের পুরো নাম মোহাম্মদ খোরশেদ আনোয়ার। সংক্ষেপে তিনি এমকে আনোয়ার হিসেবেই পরিচিত। ১ জানুয়ারি ১৯৩৩ সালে কুমিল্লার হোমনায় জন্মগ্রহণ করা এমকে আনোয়ার কর্মজীবনে পাকিস্তান ও বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন উচ্চ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।সরকারি চাকরি থেকে অবসরের পর বিএনপির রাজনীতিতে যুক্ত হন তিনি। পরবর্তীতে ৫ বার জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।একই সময়ে এমকে আনোয়ার দু’বার বিএনপি সরকারের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

মিয়ানমারকে অবশ্যই নিজ নাগরিকদের ফেরত নিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মিয়ানমারকে অবশ্যই নিজ নাগরিকদের ফেরত নিতে হবে। একইসঙ্গে রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধানও হতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে এসব কথা বলেছেন সফররত ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। দু’দিনের সফরে রোববার দুপুরে ঢাকায় আসার পর সন্ধ্যায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে যান সুষমা। বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে সাংবাদিকদের বলেন, ‘মিয়ানমারকে অবশ্যই তাদের নাগরিকদের ফেরত নিতে হবে।’ বিশাল সংখ্যার এই শরণার্থীদের বাংলাদেশের জন্য ‘বড় বোঝা’ আখ্যায়িত করে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে কত দিন এই ভার বহন করবে।sheikh_hasina_sushama_pic1
এর একটা স্থায়ী সমাধান হতে হবে।’ মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ভূমিকা রাখার উপরও জোর দেন তিনি। বৈঠকে শেখ হাসিনার সঙ্গে ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী, প্রধানমন্ত্রীর পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী, ভারতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী। অন্যদিকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন সেদেশের পররাষ্ট্র সচিব জয়শঙ্কর এবং ঢাকায় দেশটির রাষ্ট্রদূত হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা। এর আগে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার যৌথ পরামর্শ কমিশনের চতুর্থ বৈঠকে অংশ নিতে বেলা পৌনে ২টার দিকে ভারতীয় বিমানবাহিনীর বিশেষ ফ্লাইটে ঢাকায় পৌঁছান সুষমা স্বরাজ। কুর্মিটোলা বঙ্গবন্ধু বিমানঘাঁটিতে তাকে স্বাগত জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী।

‘সব দলের অংশগ্রহণে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন দেখতে চায় ভারত’ সুষমা স্বরাজের সাথে খালেদার বৈঠক শেষে মির্জা ফখরুল

ঢাকা সংবাদদাতাঃ আগামীতে বাংলাদেশে সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ এবং সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দেখতে চায় ভারত- এমনটা জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রোববার রাত ৮টায় সোনারগাঁও হোটেলে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে ঢাকা সফররত ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের বৈঠক শেষে তিনি এ কথা জানান। মির্জা ফখরুল বলেন, ‘ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে অত্যন্ত সৌহর্দ্যপূর্ণ পরিবেশে বৈঠক হয়েছে। আলোচনায় দুই দেশের যে পারস্পরিক সম্পর্ক রয়েছে সেটা কিভাবে আরও শক্তিশালীর করা যায় সেই বিষয়ে কথা হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া বৈঠকের একপর্যায়ে রোহিঙ্গা ইস্যুটি আলোচনায় তোলেন। তিনি ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে অবহিত করেন, রোহিঙ্গা একটি বড় সমস্যা, এটা দ্রুত সমাধান করতে হবে। বাংলাদেশে সাময়িকভাবে তাদের আশ্রয় দেওয়া হয়েছে, তাদেরকে মিয়ানমারে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। তাদের নিরাপদ একটা আবাস তৈরি করতে হবে।’ বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিএনপি চেয়ারপারসনের বক্তব্যের বিষয়ে একমত হয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সুষমা স্বরাজ বলেন- আমরাও চাই রোহিঙ্গারা যাতে নিরাপদে তাদের দেশে ফিরে যেতে পারেন।’
তিনি জানান, মিয়ানমার সরকারের উপর ভারত তাদের চাপ অব্যাহত রেখেছে। তারাও আশা করেন, একটি নিরাপদ পরিবেশে রোহিঙ্গারা যাতে ফিরে যেতে পারেন।’মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন বাংলাদেশের বর্তমান যে রাজনৈতিক অবস্থা তা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা করেছেন। আগামী নির্বাচন সম্পর্কে আলোচনা করেছেন। বর্তমান সমস্যাগুলো তিনি তুলে ধরেছেন। ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এই সমস্যাগুলো শুনেছেন।’
তিনি বলেন, ‘ভারত একটি বৃহৎ গণতান্ত্রিক দেশ। তারাও চান বিশ্বের অন্যান্য দেশ এবং প্রতিবেশী দেশগুলোতে গণতন্ত্রের চর্চা অব্যহত থাকুক এবং গণতান্ত্রিকভাবেই সরকার নির্বাচিত হোক। একইভাবে বাংলাদেশে আগামী নির্বাচন যেন সুষ্ঠু নিরপেক্ষ হয়।’বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন যাতে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারেন এবং সকল দলের অংশগ্রহণে একটি সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন যাতে হয় তারা (ভারত) তা প্রত্যাশা করেন।’
বৈঠকটি প্রায় ৪৫ মিনিট স্থায়ী হয় বলে জানান মির্জা ফখরুল। বৈঠকে খালেদা জিয়ার সঙ্গে অন্যদের মধ্যে ছিলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ড. আবদুল মঈন খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, উপদেষ্টা রিয়াজ রহমান ও সাবিহ উদ্দিন আহমদ প্রমুখ।এসময় সুষমা স্বরাজের সঙ্গে ছিলেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা।প্রসঙ্গত, দুদিনের সফরে রোববার বেলা পৌনে ২টার দিকে ভারতীয় বিমানবাহিনীর বিশেষ ফ্লাইটে করে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকায় পৌঁছান। কুর্মিটোলা বঙ্গবন্ধু বিমান ঘাঁটিতে তাকে স্বাগত জানান বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী।

যুক্তরাজ্যে বসবাসরত ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রছাত্রীদের পুনর্মিলনী ২৩ অক্টোবর

সংবাদ রিপোর্ট: যুক্তরাজ্যে বসবাসরত হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রছাত্রীদের উদ্যোগে বার্মিংহামের ইকবাল 7b2a2065-7158-4324-852e-66e627b61a9cব্যাংকুয়েটিং হলে আগামি ২৩ অক্টোবNewcastleর সোমবার এক পুনর্মিলনীর আয়োজন করা হয়েছে। যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন শহরে বসবাসরত ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অত্র এলাকার সর্ব স্তরের মানুষকে উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য সাবেক শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়েছে।

যুক্তরাজ্যে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিতব্য এই পুনর্মিলনী সভাকে সাফল্যমণ্ডিত করার লক্ষে বার্মিংহাম, লন্ডন, নিউক্যাসল, লুটন, কার্ডিফসহ বিভিন্ন শহরে সাবেক শিক্ষার্থী, স্কুলের দাতাগণ, অভিভাবকমণ্ডলী ও শুভাকাঙ্খিদের সমন্বয়ে কয়েকটি প্রস্তুতি সভা অনুুষ্ঠত হয়। এতে সাবেক শিক্ষার্থীসহ ইনাতগঞ্জ এলাকার ব্যাপকসংখ্যক লোক সমাগমের আশা করা যাচ্ছে।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net