শিরোনাম

সবুজ বাংলা

নবীগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতা ও জাতীয় পার্টির নেতার বিরোধের নিষ্পত্তি

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) সংবাদদাতাঃ নবীগঞ্জ শহরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সাইফুল জাহান চৌধুরী  ও দৈনিক সময়ের নির্বাহী সম্পাদক জাপা নেতা মুরাদ আহমদের মধ্যে সৃষ্ট বিরোধ গতকাল শনিবার সালিশ সভার মাধ্যমে নিস্পত্তি করা হয়েছে। সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত সভায় নবীগঞ্জের সর্ব্বোচ্চ মহল উপস্থিত ছিলেন। নবীগঞ্জ জে কে উচ্চ বিদ্যালয়ের খোলা মাঠে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন নবীগঞ্জ-বাহুবলের সংসদ সদস্য এম,এ মুনিম চৌধুরী বাবু। নবীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর চৌধুরীর পরিচালনায় সালিশ সভায় বক্তব্য রাখেন, নবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী 555লীগের সভাপতি ইমদাদুর রহমান মুকুল, সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ, সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হাই, আ.ক.ম. ফখরুল ইসলাম, খালেদ আহমদ,দিলাওর হোসেন,সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম, ইউপি চেয়ারম্যান আলী আহমদ মুসা, আশিক মিয়া, আবু সিদ্দিক,মুহিবুর রহমান হারুন, এডভোকেট জাবিদ আলী, জাবেদুল আলম চৌধুরী সাজ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক মোস্তাক আহমদ মিলু, রেজভী আহমদ খালেদ, এডভোকেট ফারুক আহমদ, সাবেক চেয়ারম্যান মতিউর রহমান পেয়ারা, নবীগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল চেয়ারম্যান এটিএম সালাম, জেলা পরিষদ সদস্য এডভোকেট, সুলতান মাহমুদ, আব্দুল মালিক, কাউন্সিলর জাকির হোসেন, নবীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজাহিদ আহমদ, সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু দাশ রানা, হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি গোলাম মোস্তফা রফিক সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী মোঃ ফরিয়াদ, উপজেলা আ্ওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আব্দুল মুহিত চৌধুরী ,যুন্ম সম্পাদক কাজী ওবায়দুল কাদের, সাবেক ছাত্রনেতা তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী, নবীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুল গফুর চৌধুরী সহ সভাপতি ছাদ উল্লা মেম্বার, জাপা নেতা শাহ আবুল খায়ের, সালিশ বিচারক শামসুল আলম কনা মাস্টার,সাবেক কৃতি ফুটবলার আবুল হোসেন, এডভোকেট শাহানুর আলম ছানু, কাউন্সিলর আলা উদ্দিন, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি এম এ আহমদ আজাদ, সাবেক সভাপতি ফখরুল আহসান চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক উত্তম কুমার পাল হিমেল, যুবলীগের যুন্ম আহবায়ক লোকমান আহমদ খান, রাব্বী আহমদ চৌধুরী মাক্কু, পল্লি বিদ্যূত সমিতির পরিচালক শফিউল আলম হেলাল, শফিকুর রহমান, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাকিল হোসেন, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি সরওয়ার শিকদার, এম মুজিবুর রহমান, এম এ মুহিত দৈনিক হবিগঞ্জ সময় পত্রিকার প্রকাশক সেলিম তালুকদার, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক মতিউর রহমান মুন্না, সাংবাদিক ছনি চৌধুরী,নবীগঞ্জ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান,নবীগঞ্জ পৌর সেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক ইকবাল আহমদ বেলাল, জাপা নেতা  মোহাম্মদ ইলিয়াছ মিয়া, হাজী লিয়াকত আলী, নবীগঞ্জ পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবিব, সাংবাদিক এম এ বাছিত, কিবরিয়া চৌধুরী, সুলতান মাহমুদ প্রমুখ। সভায় সিন্ধান্ত হয় আগামীতে নবীগঞ্জ বাজারে কোন দাঙ্গা হাঙ্গমা হলে নগদ ৫০ হাজার টাকা উভয় পক্ষকে জমা করে সালিশ বিচার হবে। পরে উভয় পক্ষকে সালিশের মাধ্যমে কোলাকুলি করে  মিলিয়ে দেয়া হয়। নবীগঞ্জ প্রেসক্লাব নিয়ে সৃষ্ট বিরোধের বিষয়টি সালিশে উত্তাপন করা হলে সভায় সর্ব সম্মতিক্রমে সিন্ধান্ত হয় ২০১২ সালের গঠিত নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের কমিটির ধারাবাহিক কমিটিই এখন দায়িত্ব পালন করবেন। আগামী জুলাই মাসে নতুন কমিটি গঠনের লক্ষ্যে ৫ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়।

পাঁচ শতাংশ লভ্যাংশের দাবিতে বিবিয়ানায় শেভরন কর্মীদের মানববন্ধন ও প্রতীকী অনশন

রাকিল হোসেন নবীগঞ্জ, (হবিগঞ্জ) সংবাদদাতা: হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে বিবিয়ানা গ্যাস সরবরাহকারী শেভরনের বিক্রয়ের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এমতাবস্থায়, নিয়মিত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে। শেভরনে কর্মরত এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন এর উদ্যোগে  গতকাল বুধবার দুপুরে বিবিয়ানা গ্যাস ফিল্ডের ফটকে কোম্পানীর লভ্যাংশের শতকরা ৫ ভাগ দাবীতে এক বিশাল মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহকারী আর্ন্তজাতিক কোম্পানি শেভরনের বিক্রয়ের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। এই খবরে প্pic bibiyana 2রতিষ্ঠানটির সাথে জড়িত ৬শ’ বাংলাদেশি নিয়মিত কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং তাদের পরিবার পরিজন এক নিদারুণ অনিশ্চিয়তা ও উৎকণ্ঠার মধ্যে দিনযাপন করছেন। এমনটিই জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা। ইতিমধ্যে এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন কোম্পানি বরাবরে কোম্পানি লভ্যাংশের ৫ ভাগ দাবি জানিয়ে আসছিল। কিন্তু শেভরন এই লভ্যাংশ কোনদিনই দেয়নি। তাই তাদের দাবি-দাওয়া আদায়ে চলমান আন্দোলনের পাশাপাশি আরোও কঠোর আন্দোলনে যাচ্ছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। চীনের রাষ্ট্রীয় কোম্পানী জিনহুয়া অয়েল (জিনহুয়া ওয়েল) এর কাছে বিক্রির খবরে মার্কিন বহুজাতিক তেল গ্যাস উত্তোলনকারী কোম্পানী শেভরনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে অস্থিরতার সৃষ্টি হয়েছে। এ অবস্থায় কোম্পানীর লভ্যাংশের শতকরা ৫ ভাগ আদায়ে তারা বিগত কয়েকমাস ধরে আন্দোলন করে আসছেন। এ লক্ষ্যে এর আগেও তারা কালো ব্যাজ, প্রতীকি অনশনসহ নানা কর্মসূচি পালন করেছেন। এবার তারা আরোও কঠোর আন্দোলনের পথে এগুচ্ছেন বলে জানা গেছে।
শেভরন ২০০৬ সাল থেকে এ পর্যন্ত কোনো লভ্যাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারী-শ্রমিকদের দেয়নি। এরই মধ্যে শ্রম মন্ত্রণালয় ও পেট্রোবাংলার পক্ষ থেকে পাওনা পরিশোধে শেভরনকে চিঠি দিলেও তা আমলে নেয়নি শেভরন। শেভরনের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানাগেছে, ২০০৬ সাল থেকে বাংলাদেশ কোম্পানি আইন অনুযায়ী লভ্যাংশের শতকরা ৫ ভাগ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে বন্টন করার কথা। কিন্তু শেভরন তা কোনদিনই দেয়নি। কিন্তু বিক্রয়ের খবর জানার পর এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন কোম্পানি বরাবরে তাদের গ্রাচুইয়টি ও চেঞ্জ অব কন্ট্রোল বেনিফিট প্রদানের দাবি জানায়। এমপ্ল¬য়িজ ইউনিয়নের সভাপতি নাসিম আজিম বলেন কোম্পানি বিক্রয় হলে তাদের পরবর্তী চাকুরি জীবনের কি হবে তা নিয়ে তারা অনিশ্চয়তায় আছেন। এরকম পরিস্থিতিতে তারা থাকতে চাননা। দাবি-দাওযা পূরণের লক্ষ্যে ইতিমধ্যে কালোব্যাজ ধারণ ও প্রতীকী অনশন কর্মসূচি পালন করেছেন কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। তিনি জানান, আজ ঢাকা অফিসসহ জালালাবাদ গ্যাস, বিবিয়ানা গ্যাস ও মৌলভীবাজারে একযোগে মানববন্ধন কমর্সচী পালিত হয়েছে। এমপ্ল¬য়িজ ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এস এম শাহরিয়ার আবেদীন জানান- কয়েক মাস ধরে শেভরন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়ে আসছে। আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু কোন অগ্রগতি নেই।

নবীগঞ্জে গলায় ফাঁস দিয়ে এক ব্যক্তির আত্মহত্যা

রাকিল হোসেন নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) সংবাদদাতাঃ নবীগঞ্জ উপজেলার গজনাইপুর ইউনিয়নের সাতাইহাল (পশ্চিম পাড়া) গ্রামের সিকন্দর আলীর ছেলে আলী হোসেন(৩৩) গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়,গত ৩/৪বছর ধরে আলী হোসেন মানষিক ভারসাম্যহীন(মানসিক রোগী)। শনিবার রাত সাড়ে ১০টার সময় সে বসত ঘরের তার নিজ শয়ন কক্ষে তীরের সাথে গলায় রঁশি পেছিয়ে আত্মহত্যা করে। কিছুক্ষণ পরে তার বাবা মা ঘরের তীরের সাথে ঝুলন্ত ফাঁস লাগানো অবস্থায়  তাকে দেখতে পান । খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে ।   আত্মহত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গোপলার বাজার তদন্ত কেন্দ্রের এস আই আব্দুর রহমান। এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

ইনাতগঞ্জ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে যোগদান ও আলোচনা সভা

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) সংবাদদাতাঃ নবীগঞ্জের ইনাতAbdul HalimKamrulঞ্জ লন্ডন প্রবাসী কামরুল হাসান ও আব্দুল হালিম এর আওয়ামী লীগে যোগদান উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার সন্ধায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ইনাতগঞ্জ শাখার উদ্যোগে আলোচনা সভা ও যোগদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইনাতগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মালিকের সভাপতিত্বে সাংগঠনিক সম্পাদক রাকিল হোসেন এর পরিচালনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও গজনাইপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমদাদুর রহমান মুকুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, ইনাতগঞ্জ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আমিনুর রহমান স্বপন। এতে বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য বার্লি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আনসার উদ্দিন, যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জামাল হোসেন, ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাকিম, যোগদানকারী কামরুল হাসান ও আব্দুল হালিম, ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল আজাদ শাহজাহান, সহ-সভাপতি খায়রুল হাসান, আব্দুল্লাহ অপু, নুর আলম, আদিল বারী, সাজ্জাদুর রহমান, জাকির হোসেন প্রমুখ।

নবীগঞ্জের কাজিরগাও-কাদিরগঞ্জ (মার্কুলী) সড়কের সংস্কার কাজের উদ্ধোধন

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) সংবাদদাতা: নবীগঞ্জ উপজেলার ১নং বড় ভাকৈর পশ্চিম ও ২নং বড় ভাকৈর পুর্ব ইউনিয়নের বহুল প্রত্যাশিতকাজিরগাও-কাদিরগঞ্জ (মার্কুলী) সড়কের সংস্কার কাজের উদ্ধোধন গতকাল শনিবার বিকেল ৫টায় আনুষ্ঠানিক ভাবে অনুষ্টিত হয়েছে। এতে ওই অঞ্চলের মানুষের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনা ছিলো লক্ষণীয়। এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের অধিনে প্রায় ১৪ কোটি টাকা ব্যায়ে উক্ত রাস্তার সংস্কার কাজের উদ্ধোধন করেন হবিগঞ্জ-১ নবীগঞ্জ-বাহুবল আসনের সংসদ সদস্য এম এ মুনিম চৌধুরী বাবু। ২নং বড় ভাকৈর পুর্ব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আশিক মিয়ার সভাপতিত্বে এবং উপজেলা জাতীয় ছাত্রসমাজের সদস্য সচিব নিয়ামুল করিম অপুর পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী, কুরিয়ার ইউপি চেয়ারম্যান আলী আহমেদ মুসা, সাবেক চেয়ারম্যান মেহের আলী মহালদার, উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক ডাঃ শাহ আবুল খায়ের, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, উপজেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সদস্য সচিব এমরান মিয়া, লন্ডনস্থ ডারবি শাখা জাতীয় পার্টির সভাপতি আবু নাসের, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুরাদ আহমেদ, নবীগঞ্জ পৌরসভার কাউন্সিলর জাকির আহমদ, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি মোঃ সরওয়ার শিকদার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাকিল হোসেন, প্যানেল চেয়ারম্যান খালেদ মুশারফ, উপজেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, ইনাতগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মালিক, সহ-সভাপতি ফয়ছল আহমদ, ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির সভাপতি সিরাজ মিয়া, আলীফ উদ্দিন মেম্বার, আব্দুল হান্নান চৌধুরী চান মিয়া, সাধারণ সম্পাদক নুরল হক তুহিন, আব্দুল কাইয়ুম, আব্দুল আজাদ মেম্বার, আওয়ামী লীগ নেতা বশর আহমদ, মুক্তার আলী, আবদাল মিয়া, শাহজাহান আহমদ, মুহিবুর রহমান, সাইফুর রহমান, বিশিষ্ট সমাজ সেবক মুকিত মিয়া, জাপা নেতা শেখ ফয়জুল ইসলাম দিনু, শহীদ চৌধুরী, জেলা জাতীয় যুবসংহতির যুগ্ম সম্পাদক মিলাদ হোসেন সুমন, উপজেলা জাতীয় যুবসংহতির আহবায়ক নুরুল আমীন পাঠান, জাপা নেতা নাসির চৌধুরী প্রমুখ। এতে অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জাপা নেতা খালিছ মিয়া, মুনসেফ আলম, ভুলা দাশ, উপজেলা জাতীয় যুবসংহতির যুগ্ম আহবায়ক আহমদ রেজা, মুজাহিদুল ইসলাম শাহিন, ইউপি সদস্য সমছু মিয়া, যুবনেতা তোফায়েল আহমদ ছায়েদ, ফরহাদ আহমেদ ফুল, আব্দুল কাহার, রবিউল ইসলাম, আবুল কাশেম, মশাহিদ আলম চৌধুরী, এহিয়া আহমেদ, লিল মুহাম্মদ, আফিজ মিয়া, নিউটন সুত্রধর, হাফেজ মিনহাজ, হোসাইন আজাদ হেলাল, শেখ সুহেল আহমদ, উপজেলা জাতীয় ছাত্র সমাজের সাবেক সভাপতি এম এ মতিনচৌধুরী, উপজেলা ছাত্রসমাজের আহবায়ক স্বপন চৌধুরী,ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক সাইদুর রহমান, নবীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রসমাজের যুগ্ম আহবায়ক শুয়েব আহমদ, মৌলদ হোসেন, ডিগ্রি কলেজ শাখা ছাত্রসমাজের নেতা আনোয়ার আলী প্রমুখ।

নবীগঞ্জে ফেসবুকে আপত্তিকর ছবি প্রকাশ: উত্তেজনা, মিছিল।। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন॥ দুষ্কৃতিকারী গ্রেফতার

রাকিল হোসেন সংবাদদাতা নবীগঞ্জ : হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ বাজারের মুদি ব্যবসায়ী রজত রায় পবিত্র ক্বাবা শরীফের ছবির উপর হনুমানের ছবি প্রতিস্থাপন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আপলোড করায় এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।  ছবি প্রকাশের সংবাদটি ফেসবুকের মাধ্যমে চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে সাথে সাথে হাজার হাজার জনতা 16831620_1121342951307965_1886214058_nইনাতগঞ্জ মধ্য বাজারে রজত রায়ের দোকানের সামনে অবস্থান নেন। উত্তেজিত জনতা রজতের ফাঁসির দাবিতে দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল করে। এ সময় মিছিলকারীরা রজতের দোকান লক্ষ্য করে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। স্থানীয় নেতৃবৃন্দ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে চেষ্টা করেন। কিন্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। পরে বিক্ষোভকারা রজত এর গ্রামে বাড়িতে গিয়েও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। গতকাল রোববার দুপুরে রজত রায় ইনাতগঞ্জ বাজারে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে পবিত্র ক্বাবাশরিফের উপর হনুমানের মুর্তি প্রতিস্থানপন করে। রজত রায় মধ্যসমত গ্রামের মৃত রন রায়ের পুত্র। খবর পেয়ে নবীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জিতেন্দ্র দেবনাথ ও নবীগঞ্জ থানার ওসি এম এম আতাউর রহমান ঘটনাস্থল ইনাতগঞ্জ বাজারে আসেন। এ সময় তিনি উত্তেজিত জনতার চাপের মুখে চন্ডিপুর গ্রামের আখল উল্লার বাড়ি থেকে বিকেল সাড়ে ৪টার সময় গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসেন। এ সময় উত্তেজিত জনতা প্রশাসনের কাছে রজতের ফাঁসির দাবী জানালে জনতার উদ্দেশে ওMMMMসি বলেন, ধর্মীয় অনুভূতির উপর আঘাত আনার অপরাধে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ব্যাপারে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সবার প্রতি তিনি আহবান জানান। এ ব্যাপরে স্থানীয় ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান বজলুর রশীদ বলেন, এই ঘটনার আমি তীব্র নিন্দা জানাই। পাশাপশি তার সর্বোচ্চা শাস্তিও দাবি জানাই। সাবেক চেয়ারম্যান মাসুদ আহমদ জেহাদী বলেন, পবিত্র ক্বাবা শরীফের ছবির উপর মুর্তি রেখে রজত যে ধৃষ্টতা দেখিয়েছে- এক জন মুসলমান হিসেবে কোন ভাবেই মেনে নেয়া যায় না। আমি তার সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাই। মোস্তফাপুর আলিম মাদ্রাসার সুপার মাওলানা আব্দুন নুর বলেন, তার এমন শাস্তি আমি চাই, যাতে ভবিষ্যতে অন্য কেউ ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত আনতে না পারে।

এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে বিকেল ৫টার দিকে স্থানীয় হাজার হাজার লোকজন বিক্ষোভ মিছিল সহকারে ইনাতগঞ্জ বাজার প্রদক্ষিণ করে ইনাতগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রতিবাদ সভায় মিলিত হয়। খবর পেয়ে হবিগঞ্জের পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র সাড়ে ৫টায় ইনাতগঞ্জ বাজারে আসেন। এ সময় তিনি প্রতিবাদকারীদের উদ্দেশে বলেন, আইনের উর্ধ্বে কেউ নয়, ইতোমধ্যে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। আইনশৃংখলা পরিস্থিতি যাতে বিঘ্ন না ঘটে সে দিকে সবাইকে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহবান জানান তিনি। এদিকে সন্ধাার পর খবর পেয়ে হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ফারুক হোসেন, নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী, হবিগঞ্জ জেলার সহকারী পুলিশ সুপার রাশেলুর রহমান রাসেল,উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন। এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র জানান, ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনার সাথে জড়িত রজত রায়কে গ্রেফতার করেছে।

রজত রায়কে গ্রেফতারের পর বর্তমানে এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

‘তৃতীয় বাংলায় মুক্তিযুদ্ধ’ গ্রন্থে সঠিক তথ্য উপস্থাপিত হয়েছে -আব্দুল গাফ্‌ফার চৌধুরী

মতিয়ার চৌধুরীঃ তৃতীয় বাংলায় মুক্তিযুদ্ধ গ্রন্থে সঠিক তথ্য উপস্থাপিত হয়েছে। এই গ্রন্থে ওঠে এসেছে প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধে সর্বসন্থরের ব্রিটিশ বাঙালিদের অবদান সেই সাথে লেখক সাহসিকতার সাথে স্বাধীনতা বিরোধীদের চরিত্রও তুলে ধরেছেন।  আর তা সম্ভব হয়েছে যেহেতু লেখক ১৯৭১ সালে ব্রিটেনে  বাংলাদেশ স্টুডেন্ট এ্যাকশন কমিটির সদস্য হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। এ মন্তব্য বিশিষ্ট সাংবাদিক কলামিস্ট অমর একুশে গানের রচয়িতা প্রবীণ সাংবাদিক আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরীর। গত ১০ ফেব্রুয়ারি বিকেলে পূর্ব লন্ডনের কবি নজরুল সেন্টারে ‘‘তৃতীয় বাংলায় মুক্তিযুদ্ধ গ্রন্থের’’ প্রকাশনা অনুষ্টানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। আব্দুল গাফফার চৌধুরী বলেন মুক্তিযুদ্ধে ব্রিটেন প্রবাসীদের অবদান সম্পর্কে বিভিন্ন লেখকের বেশ কিছূ গ্রন্থ প্রকাশিত হলেও কোন কোন গ্রন্থে লেখকরা নিজেদের গুনকির্তন করেছের  কেউ বা অনেক কিছু পাশ কেটে চলে গেছেন, মাহমুদ এ রউফ একজন প্রবাসী মুক্তিযোদ্ধা হয়েও এখানে নিজকে জাহির করার চেষ্টা করেন নি- এটিই তার মহত্ব এবং নিরপেক্ষতার পরিচয়। তিনি বলেন,  বিলেতে বসবাস করেও আমি যা চল্লিশ বছরে করতে পারি নি মাহমুদ এ রউফ তা করতে সক্ষম হয়েছেন। বিলেত বাংলা টুয়েন্টিফোর ডট কমের উদ্যোগে আয়োজিত হামিদ মোহাম্মদের সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রকাশনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ, লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সৈয়দ নাহাস পাশা, উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের ভাইস প্রেসিডেন্ট রফিকুল হাসান খান জিন্না। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সুলতান মাহমুদ শরীফ বলেন, বলেন মাহমুদ এ রউফ এবং আমি ব্রিটেনে একসাথে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে কাজ করেছি। এই গ্রন্থে তিনি অনেক খুটিনাটি বিষয় তুলে ধরেছেন যা অন্যান্য লেখকদের লেখায় উঠে আসে নি। আমাদের সাথে এখানকার সাদাদের অনেকে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে আন্দোলন করেছেন। তিনি বলেন, এই গ্রন্থটি একটি রেফারেন্স গ্রন্থ হিসেবে কাজ করবে। অনুষ্ঠানে মুল প্রবন্ধ পাঠ করেন যুক্তরাজ্য ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সৈয়দ এনামুল ইসলাম, লেখক পরিচিতি তুলে ধরেন বিশ্ববাংলা নিউজ এর এডিটর শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল। গ্রন্থের উপর আলোচনায় অংশ নেন সাংবাদিক-গবেষক মতিয়ার চৌধুরী, জনমতের নির্বাহী সম্পাদক সায়েম চৌধুরী, ডেইলী স্টারের লন্ডন প্রতিনিধি ও মানবাধিকার কর্মী আনসার আহমেদ উল্লাহ, গবেষক হারুনুর রশিদ, এডভোকেট মুজিবুল হক মনি, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাদি প্রমুখ। অনুষ্ঠনে ব্রিটেনে জন্ম নেয়া মনসুর আলীর মক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রমাণ্য চিত্র সংগ্রামের অংশ বিশেষ প্রদর্শন করা হয়।

ইনাতগঞ্জ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ।। ৫টি দোকান পুড়ে ছাই ২ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি

রাকিল হোসেন, নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) সংবাদদাতা: নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকােণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। অগ্নিকাণ্ডে ৫টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। IMG_2158 ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের লোকজন আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ত্রণে আনেন। । জানা যায়, গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৯টার সময় ব্যবসায়ীরা তাদের দোকান বন্ধ করে বাড়ি চলে যান। রাত ১০টার সময় ইনাতগঞ্জ মধ্য বাজারের ব্যবসায়ী জয়নাল মিয়ার মেলামাইনের দোকানে আগুনের লেলিহান শিখা দেখা যায়।মুহূর্তের মধ্যেই দাউ দাউ করে আগুন পাশের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। অগ্নিকাণ্ডের খবরে ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নসহ পাশ্ববর্তীIMG_2159 কয়েকটি ইউনিয়নের মসজিদে খবর প্রচার করা হলে অসংখ্য মানুষ ঘটনা স্থলে ছুটে আসেন। কিন্ত এত মানুষ থাকা সত্বেও সবাই ছিলেন আগুনের কাছে অসহায়। শত শত মানুষ আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যর্থ হন। আগুনের ভয়াবহতা চলে যায় নিয়ন্ত্রণের বাইরে। এ সময় ইনাতগঞ্জ বাজারের বাসা বাড়িতে থাকা লোকজন ছোট শিশুদের নিয়ে দিকবিদিক ছোটাছুটি করে বাহিরে আসেন। এ সময় অনেকই হুড়াহুড়িতে আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।তাৎক্ষণিকভাবে আহতদের নাম জানা যায়নি। খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থেকে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের লোকজন দু’টি গাড়ি নিয়ে আধা ঘন্টার মধ্যে রাত সাড়ে ১০টার সময় ইনাতগঞ্জ বাজার অগ্নিকাণ্ড স্থলে উপস্থিত হয়ে প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে রাত সাড়ে ১২টার সময় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন। অগ্নিকান্ডে যে ৫টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো পুড়ে ছাই হয়েছে সেগুলো হলো জয়নাল মিয়ার মেলাইমাইন খেলনাসহ পাস্টিকের দোকান, আশরাফুল মিয়ার কাপড়ের দোকান, ইজাজুল ইসলামের রড সিমেন্টেরদোকান,আমিনুরের চাইলের দোকান ও সঞ্জয়ের সেলুন। ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ী জানান, যে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছিল রোজি-রোজগার করার একমাত্র অবলম্বন। আগুনে সব শেষ হয়ে গেলো। আমরা এখন পথে বসে গেলাম।

অগ্নিকান্ডের কারণ তাৎক্ষণিক ভাবে জানা না গেলেও ধারনা করা হচ্ছে ইলেক্টিক সটসার্কিট থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে।

যুক্তরাজ্য যুবলীগ নেতা তজমুল সরদারের সংবর্ধনা

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) সংবাদদাতা: হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ডা: মুশফিক হোসেন চৌধুরী বলেছেন, আমি উন্নয়নের রাজনীতিতে বিশ্বাস করি। স্বাধীনতার পর নবীগঞ্জ-বাহুবল আসনে কতটুকু উন্নয়ন হয়েছে আপনারা খোঁজ নিয়ে দেখেন। তিনি বলেন, জেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে অনেক যড়যন্ত্র হয়েছে। বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমার সাথে বেঈমানী করা হয়েছে। খন্দকার মোস্তাকের অনুসারীদের হাত থেকে সতর্ক থেকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের আহবান জানিয়ে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি অংশ গ্রহণ করার ঘোষণা দেন। তিনি গত বৃহস্পতিবার বিকেলে যুক্তরাজ্য কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য তজমুল আলী সরদারের স্বদেশ গমন উপলক্ষে আউশকান্দি কিবরিয়া চত্ত্বরে তাঁকে দেয়া সংবর্ধনা ও বরণ উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের ইনাতাবাদ গ্রামের যুক্তরাজ্য যুবলীগ নেতা তজমুল সরদার স্বপরিবারে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার সময় লন্ডন থেকে সিলেট ওসমানী বিমান বন্দরে অবতরণ করেন। এর আগে সকাল ১০টা থেকে হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ডা: মুশফিক হোসেন চৌধুরীর নেতৃত্বে কয়েক শতাধিক নেতা-কর্মী মটর সাইকেল নিয়ে আউশকান্দি কিবরিয়া চত্ত্বরে জড়ো হতে থাকেন। বেলা আড়াইটায় প্রবাসী নেতা তজমুল সরদার আউশকান্দি এসে পৌছলে ডা: মুশফিক হোসেন চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ নেতা জুনেদ চৌধুরী, সাবেক চেয়ারম্যান ফখরুল ইসলাম কালাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আমিনুর রহমান স্বপন, আওয়ামী লীগ নেতা রাকিল হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জয়েজ আমিন রাসেল,ছাত্রলীগের সভাপতিআবু ছালেহ জীবন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধরণ সম্পাদক উজ্জল সরদার তাঁকে ফুল দিয়ে বরণ করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আলামীন, ইয়াওর, হাফিজ খান, সালু মিয়া, সালমান আহমেদ, সাজু, জাকির, কামাল, আলীহোসেন, জাহান আহমেদসহ উপজেলা ও প্রতিটি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ
সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
পরে ডা: মুশফিক চৌধুরীর নেতৃত্বে সংবর্ধিত প্রবাসী নেতা তজমুল সরদারকে শতাধিক মটর সাইকেল নিয়ে শোডাউন করে আউশকান্দি থেকে নবীগঞ্জ শহর প্রদক্ষিণ করে তার গ্রামের বাড়ি ইনাতাবাদে নিয়ে যাওয়া হয়।

নবীগঞ্জে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত: রাষ্ট্রপতি গঠিত সার্চ কমিটির সদস্যরা জ্ঞানী গুনী ও ভাল লোক

রাকিল হোসেন, নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) সংবাদদাতা: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এমপি বলেছেন, রাষ্ট্রপতি গঠিত নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য যে সার্চ কমিটি গঠন করা হয়েছে তা অত্যন্ত নিরপেক্ষ ও খুবই ভাল। সার্চ কমিটির সদস্যরা অত্যন্ত জ্ঞানী গুনী ও ভাল লোক। যারা সার্চ কমিটি নিয়ে অভিযোগ তুলেছেন তা ভ্রান্ত ও রাবিশ। এর কোন ভিত্তি নেই। pic nabi 2মন্ত্রী গত শনিবার দুপুরে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ জে কে উচ্চ বিদ্যালয়ে শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠান প্রধান অতিথির বক্তব্য শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথাগুলো বলেন। মন্ত্রী আরো বলেন, আগামী ১০ বছরের মধ্যে দেশে কোন দারিদ্র থাকবে না। যারা থাকবে খুবই স্বল্পসংখ্যক। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার আইসিটির মাধ্যমে দেশকে ডিজিটালে রূপান্তরিত করেছে। তনি বলেন মানুষ সৃষ্টির শ্রেষ্ট জীব। কিন্ত তার শ্রেষ্ঠত্ব প্রতিষ্ঠা করতে নিজেকে যথেষ্ট কষ্ট করতে হয়। শ্রেষ্ঠ জীব হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠ করতে যেটি তার সব চেয়ে বড় অস্ত্র সেটা হলো শিক্ষা। শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানের আহ্বায়ক ও নবীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আলমগীর চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি মোঃ আবু জাহির, হবিগঞ্জ-১ আসনের এমপি এমএ মুনিম চৌধুরী, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ডাঃ মুশফিক হোসেন চৌধুরী, জেলা প্রশাসক সাবিনা আলম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শামছুল ইসলাম ভূইয়া, মদন মোহন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ আবুল ফতেহ ফাত্তাহ। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন নবীগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র অধ্যাপক তোফাজ্জল ইসলাম চৌধুরী। উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগ নেতা শাহ নেওয়াজ মিলাদ গাজী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান ইমদাদুর রহমান মুকুল, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ মিলু, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য মুকিত চৌধুরী, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালাম প্রমুখ। এছাড়াও প্রশাসনের কর্মকর্তা, বিদ্যালয়ের বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থী, আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের শুরুতেই অর্থমন্ত্রী বেলুন উড়িয়ে শতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। পরে তাকে পুলিশের একটি চৌকসদল গার্ড অব অনার প্রদান করে।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net