শিরোনাম

নির্বাচিত সংবাদ

গাজী টিভির প্রতিবেদক জাওয়াদ নির্ঝরের সিলেটীদের নিয়ে কুরুচীপূর্ণ মন্তব্য: বিক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া

লন্ডন, ০৬ জুন: গাজী টিভির ক্রিকেট প্রতিবেদক জাওয়াদ নির্ঝর সম্প্রতি তাঁর নিজস্ব ফেসবুকের টাইমলাইনে লন্ডনের সিলেটবাসীদের নিয়ে কুরুচীপূর্ণ স্ট্যাটস দেয়ায় লন্ডনস্থ সিলেটবাসীদের মধ্যে তীব্র বিক্ষোভ বিরাজ করছে। তিনি ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেন, ‘লন্ডনে যতটা না… তারচেয়েও বেশি খারাপ এখানকার সিলেটীরা। এরা না হইতে পারছে বাঙ্গালী….না হইছে ব্রিটিশ…হইছে …….। তাঁর এই স্ট্যাটাসের পর লন্ডনস্থ সিলেটবাসীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেছেন। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপক প্রতিবাদ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি ওঠেছে।Jawad 2

লন্ডনে বিভিন্ন মিডিয়ায় কাজ করেন, এমন অনেকেই জাওয়াদ নির্ঝরের আপত্তিজনক ফেসবুক স্ট্যাটাস নিয়ে গাজী টিভি’র কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেছেন। গাজী টিভি কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা না নিয়ে লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের বিবৃতি দেবার কথা জানিয়েছেন। সংবাদ২৪ ডট কম থেকে লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের দায়িত্বশীল কয়েক জনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তাঁরা জানান, জাওয়াদ নির্ঝর প্রকৃতপক্ষে সাংবাদিক নন। সাংবাদিকতার ন্যূনতম ধারনা থাকলে কখনোই এমন মন্তব্য করতে পারেন না। এ ব্যাপারে তাঁর সাথে যোগাযোগ করে পরবর্তীতে আরো পদক্ষেপ নেয়া হবে বলে তাঁরা জানান।Jawad 3

জাওয়াদের স্ট্যাটাসের পর তিনি আরেকটি স্ট্যাটাসে লিখেছেন, তাঁর মোবাইল ফোন হারিয়ে গিয়েছিলো। পরে তিনি মোবাইল ফোনটি ফেরৎ পেয়েছেন। হারিয়ে যাবার সময় কেউ হয়তো শত্রুতাবশত: তাঁর ফেসবুক থেকে এই স্ট্যাটাস দিয়ে থাকতে পারেন। তবে, তিনি কোথায় তাঁর মোবাইল হারিয়েছিলেন, কে তার মোবাইল ফেরৎ দিলো এ ব্যাপারে কোন কিছু জানাতে পারেন নি।

বিষয়টি নিয়ে লন্ডনের সিলেটীবাসীদের মধ্যে তীব্র অসন্তোষ বিরাজ করছে।

 

মার্কিন ভিসা পেতে ৫ বছরের ফেসবুক-টুইটারের ইতিহাস লাগবে

সংবাদ২৪ ডেস্ক: আমেরিকায় ভিসা পেতে হলে বিগত ৫ বছরের ফেসবুক-টুইটারের ইতিহাস দেখাতে হবে। এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এর ফলে আমেরিকা কনসুলার অফিসগুলো ভিসাপ্রত্যাশীদের পাসপোর্ট নম্বরের পাশাপাশি গেলো ৫ বছর তিনি কীভাবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করেছেন তার তথ্য, ইমেইল ঠিকানা, ফোন নম্বর এবং গেলো ১৫ বছর ভিসাপ্রত্যাশী চাকরি ও ঠিকানা বদলেছেন কি না এবং কোথায় কোথায় ভ্রমণ করেছেন তার বিস্তারিত জানতে চাইতে পারবে।

প্রাথমিকভাবে এ প্রশ্নমালাকে ‘ঐচ্ছিক’ হিসেবে বলা হলেও, এর উত্তর দেয়া না হলে ভিসা প্রত্যাশীর আবেদনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত দিতে দেরি হতে পারে বলে সিদ্ধান্তে বলা হয়েছে।

নতুন এ নিয়ম চলতি বছরের ২৩ মে আমেরিকার ব্যবস্থাপনা ও বাজেট দপ্তর অনুমোদন দিয়েছে।

ভিসা প্রত্যাশীদের ওপর কড়াকড়ি আরোপের এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে দপ্তরটি ৬ মাসের জরুরি অনুমোদনও দিয়েছে।

নতুন এ সিদ্ধান্তের তুমুল বিরোধিতা করছে শিক্ষা ও গবেষণার সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তারা। একে ‘মাত্রাতিরিক্ত বোঝা’ হিসেবে অভিহিত করেছেন তারা।

তাদের ভাষ্য, এর ফলে ভিসা কার্যক্রমে যে দীর্ঘসূত্রিতা সৃষ্টি হবে, তা বিভিন্ন দেশ থেকে আমেরিকা আসতে চাওয়া শিক্ষার্থী ও বিজ্ঞানীদের অনুৎসাহিত করবে।

শেখ হাসিনা শেখ রেহানা ও পুতুলের কোন ফেসবুক আইডি নেই : ভুয়া আইডির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের উদ্যোগ

সংবাদ২৪ ডেস্ক:  আওয়ামী লীগ সভাপতি এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানা এবং কন্যা সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুলের কোনো অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ নেই বলে জানিয়েছে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগের ফেসবুক পেজে আজ সোমবার এ কথা জানানো হয়। খবর বাসসের।

আওয়ামী লীগের ফেসবুক পেজে বলা হয়, ‘এ রকম পেজগুলোর অ্যাডমিনদের আমরা অনুরোধ করব, পেজগুলোকে “আনঅফিশিয়াল” হিসেবে ঘোষণা দিয়ে আমাদের সহযোগিতা করবেন। অন্যথায় আমরা অতিসত্বর আইনগত ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হব।’
এতে বলা হয়, ‘গত কিছুদিন ধরেই আমরা অত্যন্ত উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ করছি যে বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও কনিষ্ঠ কন্যা শেখ রেহানা এবং বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ও বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্রী সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুলের নামে কিছু “ভুয়া ফেসবুক পেজ” বাংলাদেশ ও বাংলাদেশের বাইরে থেকে পরিচালিত হচ্ছে এবং সেই পেজগুলো থেকে নানা রকম মিথ্যা সংবাদ প্রচার করা হচ্ছে।’
এতে আরও বলা হয়, বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের একটি ভেরিফাইড ফেসবুক পেজ ও শেখ রেহানার পুত্র ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) ট্রাস্টি রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিকের একটি ফেসবুক আইডি অফিশিয়ালি চালু আছে; যা তারা নিজেরই তত্ত্বাবধান করে থাকেন।

ভারতীয় যুদ্ধবিমান নিখোঁজ

সংবাদ২৪ ডেস্ক: ভারতীয় বিমানবাহিনীর যুদ্ধবিমান সুকোই-৩০ আজ মঙ্গলবার সকালে ওড়ার কিছুক্ষণ পর থেকেই চীন সীমান্তবর্তী অরুণাচল প্রদেশে বিমানটির সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। বিমানটিতে দুজন পাইলট আছেন বলে ভারতীয় বিমানবাহিনী সূত্রে জানানো হয়।

ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ পরিচালক লেফট্যানেন্ট কর্নেল সম্বিত ঘোষ সাংবাদিকদের বলেন, আজ সকাল সাড়ে নয়টা নাগাদ আসামের তেজপুরের সালাইবাড়ি বিমানঘাঁটি থেকে রুটিন ওড়ানে শামিল হয় রাশিয়ার নির্মিত সুকই-৩০ এমকেআই যুদ্ধবিমান। চীন সীমান্তবর্তী অরুণাচল প্রদেশ রাজ্যের দৌলসাং এলাকায় পৌঁছানোর পর থেকেই বিমানটির সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। বিমানটির দুই পাইলটেরও কোনো খোঁজ নেই।
আসামের তেজপুর বিমানঘাঁটি থেকে চীনের দূরত্ব মাত্র ১৭২ কিলোমিটার। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রের খবর, ৬০ কিলোমিটার ওড়ার পর থেকেই বিমানটির যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। সেই সময় চীন সীমান্তের দৌলসাংয়ে ছিল বিমানটি।
বিমানটির সন্ধানে তল্লাশি শুরু হয়েছে। সেনা ও বিমানবাহিনী উভয়ই শামিল হয়েছে তল্লাশি অভিযানে। তবে পাইলট বা বিমানটির কোনো খবর পাওয়া যায়নি। আসামের নগাঁও জেলায় গত বছরই একটি সুকোই বিমান ভেঙে পড়ে। তবে বিমানটির দুই পাইলটই প্যারাস্যুটের সাহায্যে লাফ দিয়ে প্রাণে বেঁচে যান।

ব্রিটেনের ম্যানচেস্টারে বোমা হামলা: নিহত ১৯ আহত ৫০

সংবাদ২৪ ডেস্ক: ব্রিটেনের ম্যানচেস্টার শহরে একটি পপ কনসার্টে বিস্ফোরণে অন্তত ১৯ জন নিহত হয়েছে।
এটি সম্ভাব্য সন্ত্রাসী হামলা বলে মনে করছে পুলিশ। অন্তত একটি বিস্ফোরণের ব্যাপারে নিশ্চিত করেছে পুলিশ।
মার্কিন গায়িকা আরিয়ান গ্রান্দে ম্যানচেস্টার এরিনাতে তার কনসার্ট কেবল শেষ করার পর যখন দর্শকরা উঠে বের হতে শুরু করেন ঠিক তখনই এই বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।
এর পরই ব্যাপক আতংক ছড়িয়ে পড়ে।
একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন বিস্ফোরণে তিনি কয়েক মিটার দূরে আছড়ে পড়েন।
মাঠের মধ্যেই বহু মানুষকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানা যাচ্ছে।
এই কনসার্টে অনেক তরুণ প্রজন্মের ছেলেমেয়েরা ছিলেন। ছোট বাচ্চাদের নিয়ে অনেক পরিবার ছিলো।
ম্যানচেস্টার এরিনার কাছেই ভিক্টোরিয়া ট্রেন স্টেশন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
পুলিশ ওই এলাকা থেকে মানুষজনকে দূরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে।

সূত্র: বিবিসি

ট্রাজেডি রানা প্লাজা: ১০ জনের বিচার শুরু

অনলাইন ডেস্ক:  রানা প্লাজা ভবন নির্মাণসংক্রান্ত দুর্নীতির মামলায় সোহেল রানাসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। আজ রোববার ঢাকার বিভাগীয় বিশেষ বিচারক আতোয়ার রহমান এই আদেশ দেন।

আগামী ৫ জুলাই মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ঠিক করেছেন আদালত।

এর আগে এই মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত ১০ জনের বিরুদ্ধে আদালত অভিযোগ গঠন করেন। বাকি ছয়জনকে আদালত অব্যাহতি দেন।

অভিযোগপত্রভুক্তরা হলেন সোহেল রানার বাবা আবদুল খালেক, মা মর্জিনা বেগম, সোহেল রানা, রেফায়েতউল্লাহ, উত্তম কুমার রায়, রফিকুল ইসলাম, মাহবুবুর রহমান, রফিকুল হাসান, ফারজানা ইসলাম ও আবদুল মুত্তালিব।

অভিযোগপত্র থেকে যাঁরা অব্যাহতি পেয়েছেন, তাঁরা হলেন আলী খান, এ টি এম মাসুদ রেজা, সাজ্জাদ হোসেন, মর্জিনা বেগম, আবুল বাশার ও আমিনুল ইসলাম।

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী মোশাররফ হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে এই মামলার বিচারকাজ শুরু হলো।

২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল রানা প্লাজা ধসে ১ হাজার ১৩৫ জন নিহত হন। আহত হন ১ হাজার ৫২৪ জন। তাঁদের মধ্যে গুরুতর আহত হন ৮৪৪ জন। নিহত শ্রমিকদের মধ্যে লাশ শনাক্ত হয়নি ২৯১ জনের।

একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি যুক্তরাজ্য শাখায় রদবদল

লন্ডনঃ কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে সাংগঠনিক কার্যক্রমকে গতিশীল এবং লক্ষ্য বাস্তবায়নে একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি যুক্তরাজ্য শাখা কার্যকরী কমিটি ও উপদেষ্টা পরিষদে রদবদল করা হয়েছে। গতকাল ১৮মে বিকেলে ইষ্টলন্ডনের বো-বিজনেন্স সেন্টারে অগ্রণী কার্য্যালয়ে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইসহাক কাজলের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক সৈয়দ আনাস পাশার পরিচালনায় সর্বসম্মতিক্রমে নতুন কার্যকরী কমিটি ও উপদেষ্টা পরিষদের নাম ঘোষণা করা হয়। pict nirmul co-2কার্যকরী কমিটির নতুন দায়িত্ব প্রাপ্তরা হলেন অনারারী প্রেসিডেন্ট ইসহাক কাজল, নির্বাহী প্রেসিডেন্ট সৈয়দ এনামুল ইসলাম, ভাইস প্রেসিডেন্ট হরমুজ আলী, ভাইস প্রেসিডেন্ট মতিয়ার চৌধুরী, ভাইস প্রেসিডেন্ট ওয়ালিউর রহমান, ভাইস প্রেসিডেন্ট নিলুফা হাসান, ভাইস প্রেসিডেন্ট হিফজুর রহমান খান (বার্মিংহ্যাম),ভাইস প্রেসিডেন্ট গোলাম মোস্তফা চৌধুরী (মানচেষ্টার), জেনারেল সেক্রেটারী সৈয়দ আনাছ পাশা, এ্যাসিসটেন্ট জেনারেল সেক্রেটারী জামাল আহমদ খান, এ্যাসিসটেন্ট জেনারেল সেক্রেটারী স্মৃতি আজাদ, ট্রেজারার শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল, অর্গেনাইজিং সেক্রেটারী রুবী হক, ইন্টারন্যাশনাল সেক্রেটারী পুষ্পিতা গুপ্তা, ইনফরম্যাশন এন্ড রিসার্চ সেক্রেটারী শাহ তোফায়েল আহমদ, প্রেস এন্ড পাবলিকেশন সেক্রেটারী মোঃ এনামুল হক, অফিস সেক্রেটারী মঞ্জুলিকা জামালী, এক্সিকিউটিভ সদস্যরা হলেন আনসার আহমেদ উল্লাহ, সৈয়দ এলাহি হক শেলু (বার্মিংহ্যাম),এম এ জামান, জেমস স্বপন পেরেজ, লাল আমলাই, মোতাহির আলী সোহেল, ঝলক পাল, জাহাঙ্গির খান, সায়েম চৌধুরী, আমিনা আলী, মাহফুজা তালুকদার, আঞ্জমানয়ারা আঞ্জু,আলী আকবর চৌধুরী।
উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যরা হলেন প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক প্রবীণ রাজনীতিক সুলতান মাহমুদ শরীফ, প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক একাউটেন্ট মাহমুদ এ রউফ, সাবেক সাংসদ ও রাজনীতক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সাবেক কাউন্সিলার খলিল কাজী ওবিই, রাজনীতিক ডাঃ রফিকুল হাসান খান জিন্নাহ, সাবেক কাউন্সিলার ও গবেষক নুরুদ্দিন আহমদ, রাজনীতিক আক্তার সোবহান খান মশরুর, রাজনীতিক শামীম আহমেদ, সাংবাদিক হামিদ মোহাম্মদ, সাবেক কাউন্সিলার ও সাংবাদিক শাহাব উদ্দিন আহমদ বেলাল। -সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কক্সবাজারে জুমার নামাজে বনানীর ধর্ষকদের মুক্তি ও আপন জুয়েলার্সের জন্য বিশেষ মোনাজাত

চট্টগ্রাম, ১৯ মে: কক্সবাজারের মসজিদে বনানীর রেইনট্রি হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয় দুই ছাত্রীর ধর্ষণকারীদের মুক্তি ও আপন জুয়েলার্সকে ‘বিপদ’ থেকে রক্ষার জন্য বিশেষ মোনাজাত করা হয়েছে। শুক্রবার জুমার নামাজের পর কক্সবাজারের শহরের বায়তুশ শরফ মসজিদে ধর্ষক ও আপন জুয়েলার্সের জন্য এই মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত শেষে এ নিয়ে মুসল্লিদের মাঝে প্রচণ্ড উত্তেজনা দেখা দেয়। কারো অনুমতি না নিয়ে ধর্ষকদের রক্ষার জন্য কেন মোনাজাত করা হলো তা নিয়ে মুসল্লিরা প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেন। পরে তোপের মুখে বাইতুশ শরফ মসজিদ কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম ও মসজিদের ইমাম রিদুয়ানুর হক পালিয়ে যান।
ওই মসজিদে নামাজ পড়তে যাওয়া আবুল বাশার নামের এক মুসল্লি জানান, নামাজের সময় তিনি একেবারে সামনের সারিতেই ছিলেন। জুমার নামাজ শেষে মসজিদের ইমাম রিদুয়ানুল হক মোনাজাতে রাজধানীর বনানীতে ২ ছাত্রী ধর্ষণের সঙ্গে জড়িতদের মুক্তি ও আপন জুয়েলার্সকে বিপদ থেকে মুক্তির জন্য দোয়া করেন।।
একাধিক মুসল্লি জানান, বাইতুশ শরফ মসজিদ কক্সবাজার শহরের সবচেয়ে বড় মসজিদ। এই মসজিদে কয়েক হাজার মুসল্লি জুমার নামাজ আদায় করেন। মোনাজাত শেষ হওয়ার পর ৩ তলা ওই মসজিদের কয়েক হাজারো মুসল্লি চিৎকার শুরু করেন। তারা মসজিদের ইমাম ও কমিটির সভাপতির কাছে এই ধরনের ঘৃণিত কাজের জন্য মোনাজাত কেন করা হয়েছে তা জানতে চান। মুসল্লিরা উত্তেজিত হয়ে পড়লে ইমাম ও সভাপতি দ্রুত পালিয়ে যায়।
মসজিদের ইমাম রিদুয়ান জানান, জুমার নামাজের পর কার কার জন্য দোয়া করতে হবে তা সভাপতি সিরাজুল ইসলাম কাগজে লিখে দেন। আমি ঐ কাগজ দেখে দোয়া করি।
আবুল মনসুর নামে আরেক মুসল্লি জানিয়েছেন, মসজিদ কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম একজন বিতর্কিত ব্যক্তি। তিনি জামায়াতে ইসলামীর মতাদর্শে বিশ্বাসী। যুদ্ধাপরাধের দায়ে ফাঁসি হওয়া জামায়াত নেতা আলী আহসান মুজাহিদের অনুসারী ছিলেন। নানা সময় মসজিদের ভেতরে সিরাজুল ইসলাম যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নিয়ে কটূক্তি করেছেন।
এই দিকে জুমার নামাজে মসজিদে ধর্ষক ও তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য দোয়া চাওয়া নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এলাকাবাসী ঐ ইমামকে মসজিদে ঢুকতে না দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।
এই ব্যাপারে বাইতুশ শরফ কমপ্লেক্সের সভাপতি সিরাজুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি মসজিদে ধর্ষক ও আপন জুয়েলার্সের জন্য দোয়া করার কথা স্বীকার করেন।
তিনি বলেন, মসজিদে যে কারো জন্য দোয়া করতে পারে। এটি অন্যায়ের কিছু না।

সাঈদীর আজীবন কারাদণ্ড বহাল

ঢাকা. ১৫ মে: জামায়াতের সাবেক নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর আমৃত্যু কারাদণ্ড বহাল রেখেছেন আদালত। মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় সর্বোচ্চ আদালতের দেওয়া দণ্ডাদেশ পুনর্বিবেচনা চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ ও সাঈদীর পৃথক রিভিউ আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ আজ সোমবার সকালে রিভিউ আবেদনের ওপর দ্বিতীয় দিনের শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। এর আগে গতকাল রোববার প্রথম শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ২০১৩ সালে ২৮ ফেব্রুয়ারি সাঈদীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে সাঈদী আপিল করেন। ২০১৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর আপিল বিভাগের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে সাঈদীর ফাঁসির সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদণ্ডাদেশ দেন। এ রায় পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে রাষ্ট্রপক্ষ ও সাঈদী পৃথক আবেদন করেন। গত বছরের ১২ জানুয়ারি সাঈদীর আমৃত্যু কারাদণ্ডাদেশের রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। আবেদনে সাঈদীকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেওয়া ফাঁসির রায় পুনর্বহাল চাওয়া হয়। একই বছরের ১৭ জানুয়ারি আমৃত্যু কারাদণ্ডের রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে আবেদন করেন সাঈদী। রিভিউ আবেদনে সাঈদীর খালাস চাওয়া হয়।

আজ আদালতের আদেশের পর এক প্রতিক্রিয়ায় সাঈদীর ছেলে মাসুদ সাঈদী প্রথম আলোকে বলেন, তাঁর বাবা সর্বোচ্চ আদালত থেকে ন্যায়বিচার পান নি।

সাঈদীর পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

প্রস্তাবিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে প্রবাসীদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নেই -লন্ডনে আইনমন্ত্রী

মতিয়ার চৌধুরীঃ প্রস্তাবিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে প্রবাসীদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কোন কারণ নেই, শেখ হাসিনার সরকার এমন কোন সিদ্ধান্ত নেবে না যাতে প্রবাসীরা ক্ষতিগ্রস্থ হন। একটি মহল এই বিষয়টিকে নিয়ে ঘোলাপানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে। এ মন্তব্য আইন বিচার ও সংসদীয় বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হকের। গতকাল ১৪মে রোববার দুপুরে লন্ডন্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনের হল রুমে বৃটেনে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীদের সাথে প্রস্থাবিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে মতবিনিময় কালে আইনমন্ত্রী এমন্তব্য করেন। তিনি বলেন প্রবাসীদের স্বার্থ ক্ষুন্ন হয় এমন কয়েকটি ধারা খসড়া থেকে বাদ দেয়া হবে। আর একারনেই আজকের এই মতাবনিময়। ২০১৫ সালের প্রস্থাবিত দ্বৈত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বৃটেনে বসবাসরত সচেতন নাগরিকবৃন্দ ও প্রবাসীদের কয়েকটি সংগঠন প্রস্থাবিত আইনের কয়েকটি ধারা বাতিলের দাবী জানিয়ে বিভিন্ন সময় লন্ডনস্থ বাংলাদেশে মিশনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী ও আইন মন্ত্রী বরাবরে স্মরকলিপি প্রদান করে।
আইনটির বিভিন্ন দিক নিয়ে প্রবাসীদের মতামত ও উদ্বেগের কথা জানতে লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন এই মতবিনিময় সভার আয়োজন করে। এতে প্রবাসীরা আইনটির বিভিন্ন ধারা নিয়ে নিজেদের উদ্বেগের কথা সরাসরি মন্ত্রীকে জানালে আইনমন্ত্রী এসব কথা বলেন। মতবিনিময সভায় উপস্থিত প্রবাসী নেতৃবৃন্দকে উদ্দেশ্যে করে আইন মন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা একটি বিষয় মনে রাখবেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অন্যরকম। তিঁনি জীবনে অনেক কষ্ট করেছেন এবং সাধারন জনগনের সেবায় নিজের জীবন বিলিয়ে দিচ্ছেন’। তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানের জেল থেকে ছাড়া পাবার পর লন্ডন প্রবাসী বাংলাদেশীদের কাছে প্রথম এসেছিলেন, তিনি বলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রবাসীদের ভোটাধিকার সহ দ্বৈত নাগরিকত্ব দিয়েছিনে। তার কন্যা এমন কোন সিদ্ধান্ত গ্রহন করবেনা যাতে প্রবাসীরা হয়রানির শিকার হন। আইনমন্ত্রী আনিসুল আরো বলেন বিএনপি-জামাত সরকার কারও সাথে কোন আলোচনা ছাড়াই একতরফা ভাবে ২০০৫ সালে এই নাগরিকত্ব আইনের এই খসড়া প্রনয়ণ করে, এমনটি স্মরণ করিয়ে দিয়ে আইন মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আজ সবার সাথে আলোচনা করে, এটাকে কার্যকরী রূপ দিতে যাচ্ছি’। এই আইনে প্রবাসীদের উদ্বিগ্ন হওয়ার মত এখন আর কোন ধারা নেই। ব্যারিষ্টার আনিসুল হক বলেন, যে ২/১ টি ধারা নিয়ে প্রবাসীদের মধ্যে উদ্বেগ ও বিভ্রান্তি ছিলো তা বাদ দেয়া হয়েছে’। প্রবাসীদের এই উদ্বেগ লন্ডন হাইকমিশন বিভিন্ন সময় প্রধানমন্ত্রীর অফিস, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় ও তাঁকে জানিয়েছে এমন মন্তব্য করে আইন মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধান মন্ত্রী প্রবাসীদের এই উদ্বেগ আমলে নিয়ে বিষয়টি সম্পর্কে বারবার আমাদের সাথে কথা বলেছেন, আইনের খসড়া চূড়ান্ত করার আগে লন্ডনে এসে প্রবাসীদের সাথে কথা বলতে আমাদের পরামর্শ দিয়েছেন। মূলত তাঁর নির্দেশেই আমাদের আজকে লন্ডনের এই মতবিনিময়। আইন মন্ত্রী বলেন, ২০০৫ সালে তৈরী করা নাগরিকত্ব আইনের অনেক ধারাই আমরা বাদ দিয়েছি। প্রবাসী প্রজন্ম সব সময়ই বাংলাদেশের নাগরিক থাকবে, দ্বৈত নাগরিক হতে তাদের কোন বাঁধা নেই। তিঁনি আরো বলেন ‘দ্বৈত নাগরিকত্ব আইন কোন ভাবেই প্রবাসীদের স্বার্থ খর্ব করবে না, শুধুমাত্র প্রজাতন্ত্রের কিছু চাকুরীজীবি ছাড়া’। আইন মন্ত্রী বলেন, বাস্তবতার প্রেক্ষিতেই নাগরিকত্ব আইন প্রয়োজন, আমরা যে ভিত্তি স্থাপন করলাম, তা ভবিষ্যতে বড় কোন পরিবর্তন বা পরিবর্ধন করার প্রয়োজন হবে না। এ আইন সকল বাংলাদেশী ও প্রবাসী বাংলাদেশীদের সমঅধিকার দেবে। এ আইনের মাধ্যমে প্রবাসী বাংলাদেশীদের সম্পত্তির অধিকার কোন ভাবেই ক্ষুন্ন হবে না ।
অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সভাপতি ডাঃ দীপু মনি এমপি, হাইকমিশনার নাজমুল কাওনাইন, মিনিষ্টার প্রেস সাংবাদিক নাদিম কাদির,লন্ডনস্থ বাংলাদেশ মিশনের ফাষ্ট সেক্রেটারী মনিরুল ইসলাম কবীর, সাবেক এমপি শফিকুর রহমান চৌধুরী, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ সভাপতি সুলতান শরীফ, সহসভাপতি জালাল উদ্দিন, সহসভাপতি শামসুদ্দিন মাষ্টার, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীদের সহসভাপতি হরমুজ আলী,সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ ফারুক, সত্যবাণীর প্রধান সম্পাদক সৈয়দ আনাস পাশা, সাংবাদিক মতিয়ার চৌধুরী, সাংবাদিক আনসার আহমদ উল্রাহ, যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক জামাল খান, নাগরিকত্ব আইনে প্রবাসী স্বার্থ বিরোধী ধারার প্রথম প্রতিবাদকারী ডা: জাকি রেজওয়ানা আনোয়ার, ব্যারিস্টার নজির আহমেদ, কমরেড মশুদ আহমেদ, কমিউনিটি নেতা আলহাজ্ব আলাউদ্দিন আহমদ, মাহবুব হোসেন ও আব্দুল কাইয়ুম কয়সর, ব্যারিস্টার এনামুল হক, আলহাজ্ব নাসির আহমদ, ব্যারিস্টার আবুল কালাম চৌধুরী,চ্যানেল আই ইউরোপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর রেজা আহমদ ফয়সল চৌধুরী শোয়েব, এটিএন বাংলার সিই-ও হাফিজ আলম বক্স, বেতার বাংলার নাজিম চৌধুরী, ব্যারিস্টার অনুকুল তালুকদার ডালটন, বাংলাদেশ সেন্টারের পক্ষে জাহাঙ্গির খান, জাকির হোসাইন, আব্দুল কাইয়ুম, ব্যারিস্টার তাকের চৌধুরী সহ বাংলাদেশী কমউনিটির বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন। নাগরিকত্ব আইনের কোন কোন ধারা নিয়ে উদ্বেগ জানালেও নতুন এই প্রস্তাবিত আইনটি সময়ের দাবী বলে এর প্রশংসা করেন মতবিনিময় সভায় আগত প্রবাসী নেতৃবৃন্দ। প্রবাসী নেতৃবৃন্দ লন্ডনস্থ বাংলাদেশ মিশনের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানান।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net