শিরোনাম

Monthly Archives: জুলাই ২০১৫

সমকামীদের র‍্যালিতে হামলা, একজন গ্রেপ্তার

জেরুজালেমে সমকামীদের বার্ষিক র‍্যালিতে অংশ নেয়া ছয়জনকে ছুরিকাহত করার অভিযোগে ইসরায়েলি পুলিশ কট্টরপন্থী এক ইহুদিকে গ্রেপ্তার করেছে।
আহত ছয়জনের মধ্যে দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।
প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে একটি সুপারমার্কেট থেকে হঠাৎ করেই একজন ব্যক্তি সমকামীদের ওই র‍্যালির ভিড়ে লাফ মারে।
ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু এই ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

নেতানিয়াহু বলেছেন ইসরায়েলের সব নাগরিকের মতো সমকামী সম্প্রদায়েরও এখানে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাসের অধিকার আছে।
তিনি বলেছেন তার সরকার সেই অধিকার সম্পূর্ণ রক্ষা করার চেষ্টা করবে।
পুলিশ বলছে, গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তির নাম ইয়েশাই শিলসেল । এই ধরনের ঘটনা তিনি আগেও ঘটিয়েছিলেন।
২০০৫ সালে সমকামীদের র‍্যালিতে তিনি চারজনকে ছুরি মারার দায়ে কারাভোগ করছিলেন।
সম্প্রতি জেল থেকে ছাড়া পান তিনি। এবং একই ধরনের ঘটনা আবারও ঘটালেন।

অধ্যাপক শামসুল হুদা যুক্তরাজ্য সফরে

মৌলভীবাজার সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও সিলেট এমসি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের সাবেক প্রধান অধ্যাপক মোহাম্মদ শামসুল হুদা এক সংক্ষিপ্ত সফরে যুক্তরাজ্যে এসেছেন। বর্তমানে তিনি ব্রিটেনের ব্রাইটন শহরের অবস্থান করছেন, লন্ডনে তার সাথে যোগাযোগের নাম্বার ০৭৭৩৭ ৯৫১ ৩৩৮। তিনি আরও মাসখানেক যুক্তরাজ্যে অবস্থান করবেন।
অধ্যাপক শামসুল হুদা ১৯৯৫ সালে অবসর গ্রহন করেন। তিনি সকলের দোয়া কামনা করেছেন।

সাকা চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ডের রায় বহাল থাকায় লন্ডনে গণজাগরণ মঞ্চের সমাবেশ

সৈয়দ সামি, ৩০ জুলাই ২০১৫,লন্ডন : আদালতে মানবতা বিরোাধী অপরাধী সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ডের রায় বাহাল থাকায় লন্ডনে আনন্দ র‌্যালি ও সমাবেশ করেছে গণজাগরণ মঞ্চ। গত ২৯ জুলাই সাড়ে পাঁচটায় পূর্ব লন্ডনের আলতাব আলী পার্কের শহীদ মিনারে আনন্দ সমাবেশে গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী ছাড়াও  ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, আওয়ামী লীগ, প্রজন্ম একাত্তর, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, সত্যেনসেন স্কুল অব আর্টস, ফ্রেন্ডস অব ছাত্র ইউনিয়ন, উদীচি শিল্পিগোষ্ঠীর নেতাকর্মি উপস্থিথ ছিলেন।

gonojagoron uk-2

আনন্দ র‌্যালি শেষে মন্ট ফিউরী সেন্টারে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তারা সকল যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসি রায় দ্রুত কার্যকর ও জামাত শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধের আহবান জানান। বক্তারা যুদ্ধাপরাধীদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করারও দাবি জানান। প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠন ইউকে আওয়ী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ এর সভাপতিত্বে ও যুক্তরাজ্য গণ জাগরণ মঞ্চের মুথপত্র অজয়ন্তা দেব রায়ের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অমর একুশে গানের রচয়িতা প্রবীণ সাংবাদিক আবদুল গাফফার চৌধুরী, জাহাঙ্গির নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি কর্নেল তাহেরের ছোট ভাই মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক ইসহাক কাজল, মুক্তিযোদ্ধা আমান উদ্দিন, মুক্তিযোদ্ধা মেফতা ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল কামাল, সংস্কৃতি কর্মী মুজিবুল হক মনি, রুবি হক, গোলাম আকবর মুক্তা, এলাহি সেলু, সৈয়দা নাজনিন সুলতানা শিখা, স্মৃতি আজাদ, নিঝুম মজুমদার, কামরুল হাসান তুষার, মঈন আরেফিন, সুমন হাসান প্রমুখ।

নবীগঞ্জের দীঘলবাক ইউনিয়নে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি  : নবীগঞ্জ উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের কুশিয়ারা তীরবর্তী গ্রামের বন্যার্ত মানুষের মধ্যে গতকাল বুধবার বিকালে ত্রান বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে স্থানীয় দীঘরবাক বাজারে ত্রান বিতরণ করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট মোঃ আলমগীর চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব সাইফুল জাহান চৌধুরী, ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ছালিক মিয়া, সাবেক চেয়ারম্যান আবু সাইয়্যিদ এওলা মিয়া, ইউপি আওয়ামীলীগের সভাপতি গোলাম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সুজাত চৌধুরী, সাংগঠনিক গোলজার মিয়া, ইউপি মেম্বার আফতাব উদ্দিন, ফখরু মিয়া, পিআইও জহিরুল ইসলাম, নজমুল হোসেন, বশির আহমদ ও সাংবাদিক মতিউর রহমান মুন্না প্রমূখ। ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় ৫ মেঃ টন চাল ও নগদ ২০ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার দূর্গত মানুষদের পাশে অতিতেও ছিল, বর্তমানেও আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবেন। কারন আওয়ামীলীগ মানুষের কল্যাণে রাজনীতি করে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, তাৎক্ষণিকভাবে সরকারের সীমাবদ্ধতার মধ্যে উল্লেখিত চাল ও টাকা বিতরণ করা হলো। ভবিষ্যতেও আপনাদের পাশে থেকে কাজ করবো। তিনি সরকারের পাশাপাশি জনপ্রতিনিধি ও বৃত্তবান মানুষদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।
উল্লেখ্য, কুশিয়ারা নদীর পানি উপচে তীরবর্তী গ্রাম গুলো প্লাবিত হলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার উক্ত ত্রান দেয়ার উদ্যোগ গ্রহন করেন।

দীঘলবাকে মেম্বারের ব্যক্তিগত উদ্যোগে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ
রাকিল হোসেন নবীগঞ্জ থেকে : নবীগঞ্জ উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও ৩নং ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ ফখরু মিয়ার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ইউনিয়নের বর্ন্যাতদের মাঝে ত্রান বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে স্থানীয় ফাদুল্লা মুড়ার বাজার প্রাঙ্গনে ইউপি মেম্বার মোঃ ফখরু মিয়ার সভাপতিত্বে উক্ত ত্রান বিতরণ অনুষ্টানে প্রধান অতিথি ছিলেন নবীগঞ্জ পৌর সভার কাউন্সিলর ও প্রেস ক্লাব সভাপতি এটিএম সালাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউপির প্রাক্তন চেয়ারম্যান আবু সাইয়্যিদ এওলা মিয়া ও বিশিষ্ট সমাজ সেবক এডভোকেট শাহজান সিরাজ। অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট মুরুব্বী আব্দুর নুর, ইউপি মেম্বার অনুধা রঞ্জন সরকার, মল্লিকা রানী পাল, সামছু মিয়া, শামীম আহমদ মনা, আব্দুর রউপ, বশির মিয়া, এনটিভি প্রতিনিধি মহিবুর রহমান তছনু, সেলিম আহমদ প্রমূখ। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কাউন্সিলর ও প্রেস ক্লাব সভাপতি এটিএম সালাম বলেন, দীঘলবাক ইউনিয়নের কুশিয়ারা তীরবর্তী গ্রামের লোকজন দীর্ঘদিন ধরে নদীর পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে এ র্দূগতিতে পড়ে মানবেতর জীবন যাপন করে আসছেন। এক্ষেত্রে সরকার তাদের এ অবস্থার পরিবর্তন আনতে হলে স্থায়ী সমাধানের পথ খোঁেজ বের করার দাবী জানান। তিনি এই দূর্গত মানুষের পাশে দাড়ানোর জন্য সরকার, জনপ্রতিনিধির পাশাপাশি বৃত্তবান মানুষদের এগিয়ে আশার আহ্বান জানান। পরে প্রধান অতিথি ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ প্রায় ৩ শতাধিক বর্ন্যাত মানুষের মধ্যে ৫ কেজি করে চাল বিতরণের উদ্বোধন করেন।

সাকা চৌধুরীর ফাঁসির দণ্ড বহাল

সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।
মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্যের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ মৃত্যুদণ্ডের রায় দেন।
আজ বুধবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের চার সদস্যের বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন। বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।
আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১-এর দেওয়া মৃত্যুদণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে আপিল করেছিলেন সাকা চৌধুরী।
আজ সকাল নয়টা পাঁচ মিনিটে ওই আপিলের সংক্ষিপ্ত রায় ঘোষণা করেন প্রধান বিচারপতি। তিনি বলেন, আপিল আংশিক মঞ্জুর করা হলো। ৭ নম্বর অভিযোগ থেকে আসামি সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে খালাস দেওয়া হলো। ২,৩, ৪,৫, ৬,৮, ১৭ ও ১৮ নম্বর অভিযোগে সাজা বহাল রাখা হলো।
ট্রাইব্যুনাল-১-এ সাকা চৌধুরীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আনা ২৩টি অভিযোগের মধ্যে নয়টি (২ থেকে ৮ এবং ১৭ ও ১৮ নম্বর অভিযোগ) প্রমাণিত হয়। চারটি অভিযোগে (৩,৫, ৬ ও ৮ নম্বর) তাঁকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। আপিল বিভাগ তা বহাল রাখেন। ৭ নম্বর অভিযোগে সাকা চৌধুরীকে ২০ বছর কারাদণ্ড দেন ট্রাইব্যুনাল। এই অভিযোগ থেকে আসামিকে খালাস দিয়েছেন আপিল বিভাগ।
আপিল বিভাগের এই রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রপক্ষ।
আসামিপক্ষ বলেছে, রায়ে তারা হতাশ। পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হলে তারা রিভিউ আবেদন করবে।
মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ২০১৩ সালের ১ অক্টোবর সাকা চৌধুরীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়ে রায় ঘোষণা করেন ট্রাইব্যুনাল-১। ওই রায়ের বিরুদ্ধে ও খালাস চেয়ে ২০১৩ সালের ২৯ অক্টোবর আপিল করেন সাকা চৌধুরী। চারটি অভিযোগে তাঁর মৃত্যুদণ্ডাদেশ হওয়ায় রাষ্ট্রপক্ষ আপিল করেনি। চলতি বছরের ১৬ জুন আপিলের শুনানি শুরু হয়, শেষ হয় ৭ জুলাই। ওই দিন আদালত রায় ঘোষণার জন্য ২৯ জুলাই (আজ) তারিখ ধার্য করেন।

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধকালের মানবতাবিরোধী অপরাধের পঞ্চম আপিল মামলার রায় আজ ঘোষণা হলো। এর আগে জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদ, নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী এবং দুই সেক্রেটারি জেনারেল মোহাম্মদ কামারুজ্জামান ও আবদুল কাদের মোল্লার আপিলের রায় ঘোষণা করেছেন আদালত। এর মধ্যে কামারুজ্জামান ও কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর হয়েছে। আমৃত্যু কারাদণ্ডাদেশ ভোগ করছেন সাঈদী। আর মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকা মুজাহিদের পূর্ণাঙ্গ রায় এখনো প্রকাশিত হয়নি।

ট্রাইব্যুনালের রায়: মুক্তিযুদ্ধকালে চট্টগ্রামের রাউজানে কুণ্ডেশ্বরী ঔষধালয়ের প্রতিষ্ঠাতা নূতন চন্দ্র সিংহকে হত্যা, সুলতানপুর বণিকপাড়া ও ঊনসত্তরপাড়ায় গণহত্যা, আওয়ামী লীগ নেতা শেখ মোজাফফর আহমেদ ও তাঁর ছেলে শেখ আলমগীরকে অপহরণ ও হত্যার দায়ে সাকা চৌধুরীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল।
ওই রায়ে বলা হয়, সাকা চৌধুরীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ ২৩টি অভিযোগ এনেছে, যার মধ্যে নয়টি (২ থেকে ৮ এবং ১৭ ও ১৮ নম্বর অভিযোগ) প্রমাণিত হয়েছে। এর মধ্যে তৃতীয় অভিযোগে নূতন চন্দ্র সিংহকে হত্যা, পঞ্চম অভিযোগে সুলতানপুর বণিকপাড়া ও ষষ্ঠ অভিযোগে ঊনসত্তরপাড়ায় গণহত্যা, অষ্টম অভিযোগে হাটহাজারীর আওয়ামী লীগ নেতা শেখ মোজাফফর ও তাঁর ছেলেকে অপহরণ করে খুনের দায়ে সাকা চৌধুরীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়।
দ্বিতীয়, চতুর্থ ও সপ্তম অভিযোগে হত্যা, গণহত্যার পরিকল্পনা, সহযোগিতা এবং লুণ্ঠন, অগ্নিসংযোগ ও দেশান্তরে বাধ্য করার ঘটনায় সাকা চৌধুরীর সংশ্লিষ্টতা প্রমাণিত হওয়ায় তাঁকে ২০ বছর করে ৬০ বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ১৭ ও ১৮ নম্বর অভিযোগে অপহরণ ও নির্যাতনের দায়ে তাঁকে পাঁচ বছর করে কারাদণ্ড দেন ট্রাইব্যুনাল। বাকি ১৪টি অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় সেগুলো থেকে তাঁকে খালাস দেন ট্রাইব্যুনাল।
হরতালে গাড়ি পোড়ানোর এক মামলায় ২০১০ সালের ১৬ ডিসেম্বর সাকা চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তাঁকে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়। ২০১২ সালের ৪ এপ্রিল অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে তাঁর বিচার শুরু করেন ট্রাইব্যুনাল।

চট্টগ্রাম নগরের চশমা হিলের এই বাড়িতে imageমুক্তিযুদ্ধকালে সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী মুক্তিকামীদের আটকে রেখে নির্যাতন ও হত্যা করতেন বলে তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

লন্ডনে মমতা ব্যানার্জির সংবর্ধনা

মতিয়ার চৌধুরী, লন্ডন : ৩৪ বছরের বামশাসনের অবসানের পর বাংলার উন্নয়নে কাজ শুরু করেছি, শিক্ষা-স্বাস্থ্যের উন্নতি হয়েছে, কল্যাণশ্রী প্রকল্প চালু হয়েছে, গড়ে তোলা হয়েছে জমি ব্যাংক। এ মন্তব্য ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মূখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির। গত ২৭ জুলাই বিকেলে ব্রিটিশ ফরেন্ড এন্ড কমনওয়েলথ অফিসে ব্রিটিশ ওয়ার্ক এন্ড পেনশন বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী পৃথি প্যাটেলের সাথে বৈঠক শেষে আয়োজিত রিসিপশন অনুষ্ঠানে তিনি এমন্তব্য করেন।

Mamata

মমতা ব্যানার্জি নিজকে শিল্পবান্ধব দাবি করে বলেন, তাঁর রাজ্যে শিল্পের জন্যে কি কি প্রয়োজন সেটা তার সঙ্গে আসা শিল্পোদ্যোগীদের সাথে কথা বলে জানা যাবে। তিনি বলেন, সস্তা এবং দক্ষ শ্রমিকের অভাব রাজ্যে নেই। পর্যটন পরিসেবা বা উৎপাদন শিল্পে লগ্নি করলে ঠকবেনা কেউ। ব্রিটেনের সঙ্গে বাংলার দীর্ঘ সম্পর্কের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে হালকা সূরে বলেন ‘‘ ইয়োর ডেস্টিনি ইজ বেঙ্গল! ইয়োর ডেস্টিনি ইজ অলসো বেঙ্গল! এই রিসিপশন অনুষ্ঠানে ব্রিটিশ এবং পশ্চিমবঙ্গীয় ব্যবসায়ী প্রতিনিধিবৃন্দ ছাড়াও ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ এবং উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। রিসিপশন অনুষ্ঠানে বক্তব্য প্রদান কলে ব্রিটিশ ওয়ার্ক এন্ড পেনশন বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী পৃথি প্যাটেল বলেন, পশ্চিম বঙ্গের সাথে ব্রিটেনের সম্পর্ক এবং ব্যাবসায়িক ও অন্যান্য বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দু’বছর পূর্বে কলকাতায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর সাথে বৈঠকের ধারাবাহিকতায় এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হলো বলে তিনি জানান। পশ্চিম বঙ্গের মূখ্যমন্ত্রীকে লন্ডনে স্বাগত জানিয়ে পৃথি প্যাটেল বলেন এটি একটি ল্যান্ডমার্ক ভিজিট। মূখ্যমন্ত্রীর এই সফরের মাধ্যমে পশ্চিম বঙ্গের সাথে ব্রিটেনের ব্যবসায়িক সম্পর্ক উন্নয়ন ও আরো বৃদ্ধি পাবে। পশ্চিম বঙ্গ এবং ভারতের সম্পর্ক ঐতিহাসিক, সম্ভাবনাগুলো যাতে অব্যাহত থাকে সে লক্ষ্যে সম্পর্ক ঝালাই করা হলো ভবিষ্যৎ প্রজন্মও তা অনুসরণ করবে। মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বে তা আরো জোরদার হয়েছে। দু’বছর পূর্বে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কলকাতা সফরকালে এই প্রসঙ্গগুলো উঠে আসে। পৃথি প্যাটেল তার বক্তব্যে বলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী সেখানে প্রাদেশিক শাসন ব্যবস্থার প্রশংসা করেছেন তা থেকে ব্রিটেনের শিক্ষনীয় আছে বলেও মন্তব্য করেন। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী মতমতা ব্যানার্জির শাসন ব্যবস্থা দেখে তাঁকে এখানে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। পৃথি প্যাটেল বলেন, একুশ শতাব্দির চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কলকাতায় আইটি ব্যবসার বিড়াট সুযোগ রয়েছে। বিগ ব্যান্ডের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান এ্যাপিজে গ্রুপ, টাইপো টি, টাটা, টাটা থেথলী, হাজার হাজার ব্রিটিশ তা প্রতিদিন উপভোগ করেন। ভারতীয় আইটি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো আমাদের সহযোগিতা করছে।

মমতা ব্যানিার্জির এই সফরে ২২টি চুক্তি সাক্ষরিত হয়েছে। এর মধ্যে শিল্প সংক্রান্ত এগারোটি, স্বাস্থ্য ও উচ্চ শিক্ষা সংক্রান্ত চারটি করে মোট আটটি, নগর উন্নয়ন সংক্রন্ত দুটি এবং পরিবেশ সংক্রান্ত একটি এর মধ্যেমে উভয় দেশের সম্পর্ক আরো জোরদার হবে বলে সভায় আশা প্রকাশ করা হয়। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের কলকাতা সফরকালে উভয় দেশের কারিগরি সহায়তা ও পরিবেশ দূষণ রোধে এক মিলিয়ন পাউন্ড সহায়তা প্রদান করেন।

পৃথি প্যাটেল আরো বলেন, মমতার এই সফরের মাধ্যমে উভয় দেশের সম্পর্ক উন্নয়ন আরো জোরদার হবে। এর পূর্বে মূখ্য মস্ত্রী পিন্স এন্ডুর আমন্ত্রণে বাকিংহ্যাম রাজপ্রাসাদে যান। সেখানে তিনি রাজ পরিবারের শিশুদের জন্যে আনা উপহার সামগ্রি তুলে দেন। রাজ পরিবারের পক্ষ থেকেও তাঁকে উপহার প্রদান করা হয়।

সালমান শাহরুখ একই ছবিতে!

এবার সম্ভবত তাঁদের আশা পূরণ হতে চলেছে খান ভক্তদের।পাঁচ বছর একে অন্যের ছায়া মাড়াননি। অবশেষে ২০১৩ সালে ভারতের কংগ্রেস নেতা বাবা সিদ্দিকের ইফতার অনুষ্ঠানে বুকে বুক মিলিয়ে দ্বন্দ্ব মাটিচাপা দেন শাহরুখ-সালমান। সেই থেকে তাঁদের ভক্তেরা পছন্দের এই দুই তারকাকে এক ছবিতে দেখার আশায় বুক বেঁধেছিলেন। শোনা যাচ্ছে, যশরাজ ফিল্মসের নতুন ছবিতে শাহরুখ-সালমানকে নিয়ে কাজ করবেন নির্মাতা-প্রযোজক আদিত্য চোপড়া।
salman SRK
এ প্রসঙ্গ ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাতে মিড-ডে ডটকম জানিয়েছে, দুই খানকে নিয়ে ছবি পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আদিত্য চোপড়া। শুরুতে ছবিটির একটি চরিত্রে রণবীর সিংকে নিতে চেয়েছিলেন আদিত্য। কিন্তু পরে তাঁর পরিবর্তে সালমানকে নেওয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেন। আদিত্যর ধারণা, এক ছবিতে দুই খানের উপস্থিতি বক্স অফিসে ঝড় তুলবে।
এরই মধ্যে রোমান্টিক-থ্রিলার ঘরানার ছবিটির চিত্রনাট্য শাহরুখ ও সালমানকে দেখান হয়েছে। দুজনই তা দারুণ পছন্দ করেছেন। তাঁরা আবার একসঙ্গে বড় পর্দায় কাজ করতে আগ্রহী। এরই মধ্যে ছবিটিতে অভিনয়ের জন্য শিডিউল দিয়েছেন শাহরুখ। ছবির কাজ শুরু হবে ২০১৬ সালের শেষদিকে।
অবশ্য এখন পর্যন্ত ছবির নাম কিংবা প্রধান নারী চরিত্রে কারা অভিনয় করবেন তা চূড়ান্ত হয়নি। সবকিছু চূড়ান্ত হওয়ার পর আনুষ্ঠানিকভাবে ছবিটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবেন আদিত্য চোপড়া।
শাহরুখ ও সালমান অভিনীত ‘করণ অর্জুন’ ছবিটি মুক্তি পায় ১৯৯৫ সালে। বক্স অফিস কাঁপায় ‘করণ অর্জুন’। সর্বশেষ ২০০২ সালে ‘হাম তুমহারে হ্যায় সোনম’ ছবিতে একসঙ্গে দেখা যায় শাহরুখ ও সালমানকে।

নবীগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি : আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে গত কাল সোমবার নবীগঞ্জ দলীয় কার্য্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় এবং পরে কেক কেটে দলের ২১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করা হয়। নবীগঞ্জ উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক আমিনুর রহমান চৌধুরী সুমনের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম আহবায়ক উজ্জল সরদারের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন নবীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী, বিশেষ অতিথি ছিলেন নবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইমদাদুর রহমান মুকুল, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ মিলু ,নবীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্মলেন্দু দাশ রানা, সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, ওহি দেওয়ান চৌধুরী ও যুবলীগ নেতা এম এ আহমদ আজাদ। আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম আহবায়ক ইকবাল আহমদ বেলাল, পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক অনন্ত দাশ, ইনাতগঞ্জ ইউপি শাখার সভাপতি লিটন মিয়া, সাধারণ সম্পাদক সাফুল ইসলাম, দীঘলবাঁক ইউপির সেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শাহাজাহান সাজু, আব্দুর রউফ, আউশকান্দি ইউপির সাধারণ সম্পাদক হাজী লিমন আহমদ,সাংগঠনিক সম্পাদক জুম্মন আহমেদ, কুর্শি ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ তফিক আলী সরদার, হাবিবুর রহমান, নবীগঞ্জ সদরের আহবায়ক সানু মিয়া মেম্বার, যুগ্ম আহবায়ক সাহিদ মিয়া, দেবপাড়া শাখার সভাপতি জিলু মিয়া, গজনাই পুওে শাখার আহবায়ক স্বপন আহমদ, সাধারণ সম্পাদক কামাল আহমদ, পানি উমদা শাখার যুগ্ম আহবায়ক সামসুদ্দিন জনি, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক শেখ আবুল হাসান, আলামিন খান, শামীনুর রহমান, ছাত্রলীগ নেতা তুহিন আহমদ চৌধুরী, আবু সালেহ জীবন, সাগর খান, মাহবুবুর রহমান রাজু, আস্টব মিয়া, চয়ন দাশ, মহিনুর রশিদ,বুলবুল সরদার প্রমুখ।
আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত সভায় বক্তারা বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নের জন্য প্রতিটি ইউনিয়নের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে। সভায় মুক্তিযোদ্ধা একেএম ফজলুল করিম ও সুখময় ভৈজ্ঞম এর মৃত্যুতে ১মিনিট নীরবতা পালন শেষে শোক প্রকাশ করা হয় ।

বক্তৃতা দিতে দিতে হঠাৎ করেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন এ পি জে আবুল কালাম

ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি বিজ্ঞানী এ পি জে আবদুল কালাম ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। আজ সোমবার সন্ধ্যায় মেঘালয়ের শিলংয়ে একটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়ার সময় হঠাৎ অচেতন হয়ে পড়ে গেলে তাঁকে স্থানীয় একটি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) নিয়ে যাওয়া হয়। রাতে সেখানেই তিনি মারা যান বলে পিটিআইয়ের এক খবরে জানানো হয়। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর।
শিলংয়ে ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্টের একটি অনুষ্ঠানে ‘বি-স্কুলের’ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বক্তব্য দিচ্ছিলেন কালাম। অনুষ্ঠানটি শুরু হয় সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে। বক্তৃতার মাঝে হঠাৎ করে পড়ে যান তিনি। পরে তাঁকে স্থানীয় বেতানি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকেরা তাঁকে আইসিইউতে ভর্তি করেন। সেখানেই তিনি মারা যান বলে পিটিআইয়ের খবরে বলা হয়।
গত বছরের ১৭ অক্টোবর ঢাকা সফরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে অনুপ্রেরণাদায়ী বক্তৃতায় ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি পরমাণু বিজ্ঞানী এ পি জে আব্দুল কালাম। ছবি: তানভীর আহাম্মেদ
গত বছরের ১৭ অক্টোবর ঢাকা সফরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে অনুপ্রেরণাদায়ী বক্তৃতায় ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি পরমাণু বিজ্ঞানী এ পি জে আব্দুল কালাম।
রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব নিলেও কথা বলতে ও শোনাতেই বেশি স্বচ্ছন্দ ছিলেন বিজ্ঞানী এ পি জে আব্দুল কালাম, সেই বক্তৃতা অনুষ্ঠান থেকেই না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন তিনি।
ভারতের সাবেক এই রাষ্ট্রপতিকে তার দেশের মানুষ ‘মিসাইলম্যান’ নামেই ডাকতেন।
গত দুই দশকে এক কোটি ৮০ লাখ তরুণের সঙ্গে মতবিনিময়ের কথা গত বছর ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে জানিয়ে গিয়েছিলেন তিনি।
বিষয়টি উঠে এসেছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর শোক বার্তায়ও। এক টুইটে তিনি লিখেছেন, “ড. কালাম মানুষের সঙ্গ উপভোগ করতেন…. তিনি ছাত্রদের ভালোবাসতেন, শেষ সময়টিও তাদের সঙ্গেই ছিলেন তিনি।”
ভারতের একাদশ রাষ্ট্রপতি ছিলেন ড. কালাম, দায়িত্ব পালন করেছেন ২০০২ সাল থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত, পেয়েছেন ভারতের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা ‘ভারতরত্ন’ খেতাব।
অকৃতদার এই বিজ্ঞানী একাধিকবার এসেছিলেন বাংলাদেশে। তার মৃত্যুতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গভীর শোক জানিয়েছেন।
একই সংস্কৃতি এবং একই ঐতিহ্যের অংশীদার হিসেবে বাংলাদেশ ও ভারত বিভিন্ন ক্ষেত্রে যৌথভাবে কাজ করতে পারে বলে মনে করতেন এ পি জে কালাম।
১৯৩১ সালের ১৫ অক্টোবর তামিলনাড়ুর একটি ছোট শহরে জন্ম কালামের। শহর ছোট্ট হলেও বড় স্বপ্ন নিয়েই পৃথিবীর পথে যাত্রা শুরু করেছিলেন তিনি।
ভারতের ১১তম রাষ্ট্রপতি হিসেবে আবদুল কালাম ২০০২ থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

সাপের সঙ্গে সেলফি : কামড় খেয়ে হাসপাতালে

সাপের সঙ্গে সেলফি তুলতে গেলে কামড় দিয়েছে সাপ।ফেসবুক কিংবা ইনস্টাগ্রাম সবখানেই চলছে সেলফির দাপট। কিন্তু সাপ কী আর তা বোঝে? যুক্তরাষ্ট্রের টড ফ্যাসলার নামের এক সেলফিপ্রেমীর শখের বারোটা বাজিয়েছে বিষধর এক র‍্যাটলস্নেক। র‍্যাটলস্নেকের সঙ্গে সেলফি তুলতে গিয়ে কামড় খেয়ে এখন হাসপাতালের বিল গুনতে হচ্ছে এক লাখ তিপ্পান্ন হাজার এক শ একষট্টি ডলার বা প্রায় এক কোটি ১৭ লাখ টাকা। খবর পিটিআইয়ের।
অবশ্য র‍্যাটলস্নেক নিয়ে নাড়াচাড়ার অভ্যাস যুক্তরাষ্ট্রের টড ফ্যাসলারের বেশ আগে থেকেই ছিল। বাড়িতে একটি পোষা র‍্যাটলস্নেকও ছিল তাঁর। কিন্তু জুলাই মাসের চার তারিখটি ছিল টডের জন্য একটু ভিন্নরকম। ভেবেছিলেন র‍্যাটলস্নেক পোষার বিদ্যাটা একবার কাজে লাগিয়ে দেখবেন। ঝোপের মধ্যে এক বুনো র‍্যাটলস্নেকের সঙ্গে সেলফি তুলবেন। কিন্তু ওই র‍্যাটলস্নেকটি নিশ্চয়ই সেলফির বিষয়টি ঠিক বুঝে উঠতে পারেনি! কামড়ে বিষ ঢেলেছে ফ্যাসলারের হাতে।
ফ্যাসলার জানিয়েছেন, র‍্যাটলস্নেকের কামড় খাওয়ার পর পুরো শরীর কাঁপতে থাকে আর অবশ হতে শুরু করে। মনে হচ্ছিল মুখ থেকে জিহ্বা বের হয়ে যাচ্ছে, চোখ দুপাশে সরে যাচ্ছে।
সাপের কামড় খাওয়ার পর দ্রুত ফ্যাসলারকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর বিষনাশক ইনজেকশন দিতে হয় তাঁকে। হাসপাতালে থেকে একপর্যায়ে সুস্থ হয়ে ওঠেন টড। তবে র‍্যাটলস্নেকের সঙ্গে সেলফি তোলার ওই শখের জন্য হাসপাতালের বিল দেখে তো তার চোখ চড়কগাছ। বিল হয়েছে- এক লক্ষ তিপ্পান্ন হাজার এক শ একষট্টি ডলার মাত্র!

সাপের কামড় থেকে ফ্যাসলার যে শিক্ষা হয়েছে তাতে তিনি আর র‍্যাটলস্নেকের ধারেকাছে ভিড়তে চান না। বাড়িতে পোষা সাপটিও ছেড়ে দিয়েছেন বনের মধ্যে।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net