শিরোনাম

Monthly Archives: সেপ্টেম্বর ২০১৫

বাংলাদেশ ‘এ’ দলের বিজয়

জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল আর মাত্র ৬১ রান। কাল তৃতীয় দিন শেষে ১ উইকেটে ৪৩ রান করে ফেলা বাংলাদেশ ‘এ’ দলের সেই প্রয়োজনীয় রান তুলে নিতে কোনো সমস্যাই হয়নি। চতুর্থ দিন প্রথম সেশনেই সেই রান তুলে জিম্বাবুয়ে ‘এ’ দলকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ ‘এ’।

লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছতে সমস্যা হয়নি এটা বলাটা বোধহয় একটু বাড়াবাড়িই হয়ে গেল। ১ উইকেট ৪৩ রান নিয়ে চতুর্থ দিন শুরু করা বাংলাদেশ ‘এ’ দল লক্ষ্যপূরণের পথে হারিয়েছে আরও তিনটি উইকেট। লিটন দাস, মার্শাল আইয়ূব ও রকিবুল হাসান দ্রুত ফিরে গিয়ে যে শঙ্কার জন্ম দিয়েছিলেন, সেই শঙ্কাটাই দূর করেছেন নাঈম ইসলাম ও ফরহাদ হোসেন।

নাঈম ১৫ এবং ফরহাদ ১৬ রানে অপরাজিত থেকে বাংলাদেশ ‘এ’কে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন। এর আগে, লিটন ৪২, মার্শাল ১৩ ও রকিবুল ১০ রান করেন।

কক্সবাজারের শেখ কামাল স্টেডিয়ামের দুর্বোধ্য উইকেটে জিম্বাবুয়ে ‘এ’ দলের বিপক্ষে এই বেসরকারি টেস্ট ম্যাচটি শুরুর দিন থেকেই রঙ বদলেছে নানাভাবে। তবে এই ম্যাচে বল হাতে বাজিমাতটা ওই সাকলাইন সজীবেরই। প্রথম ইনিংসে ৯ আর দ্বিতীয় ইনিংসে ৬-মোট ১৫ উইকেট নিয়ে রেকর্ডই করে ফেলেছেন তিনি। প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে ইনিংস ও ম্যাচে সেরা বোলিং পরিসংখ্যান এখন তাঁরই।

আপিল বিভাগের ইতিহাসে প্রথম সংবর্ধনাহীন বিদায়

আনুষ্ঠানিক কোনো সংবর্ধনা ছাড়াই বিদায় নিলেন আপিল বিভাগের বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী। তিনি ১ অক্টোবর অবসরে গেলেও বৃহস্পতিবারই ছিলো তার শেষ কার্যদিবস। কারণ শুক্র-শনিবারের সাপ্তাহিক ছুটি শেষে অবকাশে যাচ্ছেন উচ্চ আদালত।

শেষ কার্যদিবসও কোনো শুনানিতে অংশ না নিয়েই কাটান বিচারপতি চৌধুরী। গত ৯ সেপ্টেম্বর থেকে কার্যতালিকা অনুযায়ী তিনি কোনো বেঞ্চে ছিলেন না।

এর আগে বিচারপতি আব্দুল ওয়াহাব মিয়ার নেতৃত্বে বিচারপতি ইমান আলীর সঙ্গে আপিল বিভাগের দ্বিতীয় বেঞ্চের সদস্য ছিলেন বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বিএনপিপন্থী সদস্যরা তাকে বিদায় সংবর্ধনা জানাবে না বললেও আওয়ামী লীগপন্থীরা মিলনায়তনে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজনের প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। এটর্নি জেনারেল কার্যালয়ও জানিয়েছিলো, বিদায়ী বিচারপতিকে সংবর্ধনা জানানো হবে।

তবে, রীতি অনুযায়ী শেষ পর্যন্ত কেনো সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হলো না সে বিষয়ে আওয়ামী লীগপন্থী কোনো আইনজীবী বা এটর্নি জেনারেল কার্যালয়ের কেউ কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

ডেভিড ক্যামরনকে জঙ্গিবাদ দমনে আরো কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান শেখ হাসিনার

Devid Cameron ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনকে জঙ্গিবাদ দমনে আরো কার্যকর উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে ব্রিটিশ জঙ্গিরা যে বাংলাদেশেও জঙ্গিবাদ উস্কে দেওয়ার চেষ্টা করছে সে বিষয়ে সতর্ক করেছেন।

ইসলামিক স্টেট আইএসের মতো জঙ্গি সংগঠনের তৎপরতা দমনে ক্যামেরনসহ লন্ডন প্রবাসী বাংলাদেশী সম্প্রদায়ের কাছে সহযোগিতাও চেয়েছেন শেখ হাসিনা।

ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ান বাংলাদেশে যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বা অন্যদের মাধ্যমে জঙ্গিবাদ রপ্তানির যে চেষ্টা চলছে সে বিষয়ে প্রতিবেদনে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতকার প্রকাশ করেছে।

বেগম খালেদা জিয়ার লন্ডন সফর শুরুর দিন এ প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হলো। একইদিন আল-কায়েদাSheikh Hasinaর সঙ্গে বাংলাদেশের জামায়াতে ইসলামীর সম্পর্কেরর ইঙ্গিত নিয়ে সজীব ওয়াজেদের কলাম প্রকাশ করেছে ওয়াশিংটন টাইমস।

নিরাপত্তা ও গোয়েন্দা বিশেষজ্ঞদের উদ্ধৃত করে গার্ডিয়ান জনিয়েছে, আইএসসহ বিভিন্ন জঙ্গি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে ধর্মের নাম ব্যবহার করে তরুণ সমাজকে উদ্ধুদ্ধ করার চেষ্টা করছে।

প্রশ্নের উত্তরে শেখ হাসিনা বলেন, পূর্ব লন্ডনে জামায়াতে ইসলামীর শক্ত অবস্থান রয়েছে। সেখান থেকে তারা অর্থ সংগ্রহ করে বাংলাদেশে পাঠাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, জঙ্গি তৎপরতা বাড়ার পেছনে কোন দেশের ইন্ধন রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখতে হবে। জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ, অর্থিক সহযোগিতা ও বোমা বানানোর সরঞ্জাম সরবরাহের পেছনে ওই প্রভাবশালী দেশের হাত রয়েছে কি না, এমন বিষয়ও অনুসন্ধান করা দরকার।

শেখ হাসিনা বলেন, তার সরকার সন্ত্রাসীদের ব্যাপারে জিরো টলারেন্স দেখাচ্ছে। মৌলবাদী জঙ্গীগোষ্ঠি মাথা চাড়া দিয়ে ওঠার চেষ্টা করছে, এ বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। তবে পরিস্থিতি সরকারের নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে। পশ্চিমা দেশগুলো থেকে বাংলাদেশে ছড়িয়ে পড়া উগ্রবাদ রোধে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা জরুরী বলেও মনে করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই সব দেশের সঙ্গে সহযোগিতার সম্পর্ক গড়ে তুলতে। যাতে করে সব দেশই অবৈধ অর্থ ও অস্ত্র অথবা সন্ত্রাসীদের ব্যাপারে সতর্ক থাকে। কোনো গোষ্ঠী যেনো সমস্যা তৈরির কোনো সুযোগ না পায়।

এ বিষয়ে ডেভিড ক্যামেরন গ্রীষ্মের আগেই একটা গুরুত্বপূর্ণ বক্তৃতা দেওয়ার কথা ভাবছেন বলে জানিয়েছেন তার একজন মুখপাত্র।

গার্ডিয়ানকে তিনি বলেন, মৌলবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দমনে অন্য দেশগুলোর সঙ্গে কাজ করা দরকার বলেও বিশ্বাস করেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী।

প্রতিবেদনটিতে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি সাংবাদিক শাহরিয়ার কবিরেরও সাক্ষাৎকার নিয়েছে গার্ডিয়ান।

তিনি জামায়াতকে সন্ত্রাসের গডফাদার হিসেবে উল্লেখ করেন। জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশের অসাম্প্রদায়িক চেতনার জন্য সবচে বড় হুমকি বলেও মন্তব্য তার।

শাহরিয়ার কবির বলেন, বিএনপি আগামী নির্বাচনে জয়ী হলে বাংলাদেশ জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণত হবে। আইএস এবং আল-কায়দা বাংলাদেশকে টার্গেট করেছে। ব্রিটেনসহ বিদেশ থেকে জিহাদীরা আসছে। ব্রিটেন, সৌদি আরব এবং পাকিস্তান থেকে বিভিন্ন ইসলামী এনজিও’র মাধ্যমে টাকাও আসছে।

হিযবুত তাহরির উত্থানের কথাও প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে। আইএস এর মতো ইসলামী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে হিযবুতও বাংলাদেশে কর্মী সংগ্রহ করছে। তাদের টার্গেট মধ্যবিত্ত ও উচ্চমধ্যবিত্ত শ্রেণীর বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়াদের।

ফেসবুকে আসছে ডিজলাইক বাটন

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে যুক্ত হচ্ছে ‘ডিজলাইক’ বাটন।
জনপ্রিয় এই মাধ্যমটির প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের বরাতে বিবিসি এই তথ্য জানিয়েছে।

ক্যালিফোর্নিয়ার মেনলো পার্কে ফেইসবুকের সদরদপ্তরে অনুষ্ঠিত এক প্রশ্নোত্তরপর্বে ৩১ বছর বয়সী জাকারবার্গ বলেন, এই বাটনটি মানুষের সহানুভূতি প্রকাশের একটি মাধ্যম হয়ে উঠবে।

তিনি আরো জানান, পরীক্ষামূলকভাবে এটি চালুর ‘খুব কাছাকাছি’ রয়েছে ফেইসবুক।

২০০৯ সালে ‘লাইক’ বাটন যুক্ত করার পর থেকে ফেইসবুক ব্যবহারকারীদের একটি অংশ নিরবচ্ছিন্নভাবে ‘ডিজলাইক’ বাটন যুক্ত করার জন্য অনুরোধ জানিয়ে আসছেন।

মঙ্গলবার প্রশ্নোত্তরপর্বে আসা দর্শকদের জাকারবার্গ বলেন, “অনেক বছর ধরেই মানুষ ‘ডিজলাইক’ বাটন চালু করতে বলছেন।”

তিনি আরো বলেন, “সম্ভবত শত শত মানুষের মনে বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। আজ একটি বিশেষ দিন কারণ আজই আমি প্রকৃতপক্ষে বলতে চাইছি, আমরা এটি নিয়ে কাজ করছি এবং পরীক্ষামূলক ব্যবহারের খুব কাছাকাছি রয়েছি।”

জাকারবার্গ বলেন, কোনো পোস্টকে হেয় প্রতিপন্ন করার যন্ত্র হিসাবে এটি ব্যবহৃত হোক তা তিনি চান না। তার পরিবর্তে কেউ যখন বেদনা প্রকাশক কোনো পোস্টে লাইক দিতে চাইবেন তখনই ওই ‘ডিজলাইক’ বাটনটি সামনে চলে আসুক।

ফিলাডেলফিয়ার ড্রেক্সেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক এবং অংশগ্রহণমূলক মাধ্যম সম্পর্কে বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক আন্দ্রেয়া ফর্তে বলেন, “আমি ধারণা করি হালকা অসমর্থনসূচক কোনোকিছু প্রকাশে এটি ব্যবহৃত হবে কিংবা মৃত্যু ও ক্ষয়ক্ষতিবিষয়ক পোস্টগুলোতে একাত্মতা ও সহমর্মীতা প্রকাশে এর প্রয়োগ হবে।”

ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে মওদুদ আহমদের ছেলের মৃত্যু

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মওদুদ আহমদের একমাত্র ছেলে আমান মমতাজ আহমদ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।
৩৮ বছর বয়সী আমানকে সোমবার রাতে গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতাল থেকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সিঙ্গাপুরে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে নামার আগেই তার মৃত্যু হয় বলে মওদুদ আহমদের একান্ত সহকারী শহিদুল ইসলাম জানান।

তিনি বলেন, “এয়ার অ্যাম্বুলেন্স রাত সাড়ে ৪টায় সিঙ্গাপুরে পৌঁছায়। তার কিছুক্ষণ আগে আমান স্যার মারা যান বলে আমাদেরকে টেলিফোনে জানানো হয়েছে।”

মওদুদ আহমদ ও তার স্ত্রী হাসনা মওদুদও ছেলের সঙ্গে ওই বিমানে ছিলেন।

গত ৯ সেপ্টেম্বর জ্বরে আক্রান্ত হলে আমানকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তার ডেঙ্গু ধরা পড়ে। শরীরের তাপমাত্রা না কমায় সোমবার তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। পরে চিকিৎসকদের পরামর্শে তাকে নেওয়া হয় সিঙ্গাপুরে।

আমান মমতাজ আহমদের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তিনি এক শোকবার্তায় আমানের আত্মার শান্তি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও দেশে টেলিফোন করে শোক প্রকাশ করেছেন।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ওপর আরোপিত ভ্যাট প্রত্যাহার

চলতি অর্থবছরে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ ও ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ওপর আরোপিত সাড়ে সাত শতাংশ মূসক প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আজ সোমবার বেলা তিনটা ২০ মিনিটে অর্থ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা শাহেদুর রহমান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।

এতে বলা হয়, সরকার আশা করে, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রী এবং শিক্ষকবর্গ তাঁদের আন্দোলন বন্ধ করে শিক্ষাঙ্গনে ফিরে যাবেন এবং দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় কোনো ধরনের বাধা সৃষ্টির সুযোগ দেবেন না।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয় বাজেট পাসের সময় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এ​ই মূসকের হার সাড়ে সাত শতাংশ করা হয়। বাজেট পাস হয় জুন মাসে। প্রায় তিন মাস পর এই মূসক নিয়ে কতিপয় ছাত্রছাত্রী আন্দোলনে নেমেছেন। আমাদের দেশে বর্তমানে শিক্ষার প্রতি আগ্রহ প্রতি ঘরে ঘরে। এবং অনেকেই ​অতি নির্দিষ্ট সামর্থ্যের মধ্যে ছেলেমেয়ের শিক্ষার জন্য প্রচুর অর্থ ব্যয় করে থাকেন। ব্যক্তি মালিকানাধীন খাতের প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা ব্যয়বহুল। শিক্ষা খাত প্রধানমন্ত্রীর কাছে সবচেয়ে অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত খাত। তাঁর বিশ্বাস যে জাতিকে শিক্ষা দিলেই দেশের উন্নয়নের পথে অগ্রযাত্রা দ্রুতগতি লাভ করে। যারা বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অনেক খরচ করে শিক্ষা গ্রহণ ক​রছেন তাঁরা অতিরিক্ত সাড়ে ৭ শতাংশ মূসক দিতে চান না। এ জন্য তাঁরা ক্লাস ছেড়ে দিয়েছেন। বিভিন্ন জায়গায় সমাবেশ করে জনজীবন বিঘ্নিত করছেন এবং উন্নয়নের যাত্রার পথে বাধার সৃষ্টি করে দিচ্ছেন।

এই পরিস্থিতির কথা তুলে ধরে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সরকার কোনোভাবেই শিক্ষাঙ্গনে কোনো ধরনের প্রতিবন্ধকতা এবং জনজীবনে অসুবিধারও সৃষ্টি করতে চায় না। সেই দৃষ্টিকোণ থেকে এ মূসক প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

নতুন বিভাগ হলো ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর ও নেত্রকোনা-এই চারটি জেলা নিয়ে ময়মনসিংহ বিভাগ গঠনের নীতিগত সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছে প্রশাসনিক সংস্কার সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি (নিকার)। তবে বৃহত্তর ময়মনসিংহের মধ্যে থাকা টাঙ্গাইল ও কিশোরগঞ্জকে এই বিভাগের অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

আজ সোমবার মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকের শেষে নিকারের সভা অনুষ্ঠিত হয়। নিকারের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে ওই সভা শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা বলেন, দেশের বিদ্যমান সাতটি বিভাগের সঙ্গে ময়মনসিংহ বিভাগ যুক্ত হবে। গত ২৬ জানুয়ারি মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ময়মনসিংহকে বিভাগ করার সিদ্ধান্ত হয়েছিল।

মন্ত্রী পরিষদ সচিব আরও বলেন, পর্যায়ক্রমে ফরিদপুর বিভাগ এবং কুমিল্লা ও নোয়াখালী জেলা মিলে নতুন আরেকটি বিভাগ করা হবে।

মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা বলেন, নিকারের আজকের সভায় পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলাকে পৌরসভায় উন্নীত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ ছাড়া কুমিল্লার মুরাদনগর থানাকে বিভক্ত করে আরেকটি নতুন থানা গঠনের সিদ্ধান্ত নিকার অনুমোদন করেছে। ফলে মুরাদনগর উপজেলার দুটি থানা হবে। নতুন থানার নাম বাঙ্গরা।

জাতিসংঘের পরিবেশ সংক্রান্ত সর্বোচ্চ পুরস্কার পেলেন শেখ হাসিনা

জাতিসংঘের পরিবেশ বিষয়ক সর্বোচ্চ পুরস্কার ‘চ্যাম্পিয়নস অব দ্য আর্থ’ পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ সোমবার তাঁর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সংবাদ মাধ্যমকে এ কথা জানিয়েছেন।

নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন চলাকালে প্রধানমন্ত্রীর হাতে এ পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে। পরিবেশ সংরক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় প্রধানমন্ত্রীকে এই পুরস্কার দেওয়া হয়।

পরিবেশ নিয়ে কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ২০০৪ সাল থেকে প্রতিবছর চারটি ক্যাটাগরিতে ‘চ্যাম্পিয়নস অব দ্য আর্থ’ পুরস্কার দিয়ে আসছে জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচি (ইউএনইপি)।

আফগানিস্তানের কারাগারে তালেবানের হামলা : পালিয়েছে চার’শ বন্দি

আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় গজনি প্রদেশের একটি কারাগারে গতকাল রোববার গভীর রাতে হামলা চালিয়েছে তালেবান জঙ্গিরা। এ সময় চার শতাধিক বন্দী পালিয়ে যায়।
আজ সোমবার এএফপির প্রতিবেদনে জানানো হয়, গতকাল দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে গজনির ওই কারাগারে তালেবান জঙ্গিরা হামলা চালায়।

প্রাদেশিক ডেপুটি গভর্নর মোহাম্মদ আলী আহমাদি বলেন, সামরিক পোশাকে ছয়জন তালেবান জঙ্গি গজনির কারাগারে আকস্মিক হামলা চালায়। প্রথমে তাঁরা কারাগারের প্রধান ফটকের সামনে একটি গাড়িবোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। এরপর তারা গুলি ছুড়ে কারাগারের ভেতরে ঢুকে বন্দীদের পালিয়ে যেতে সহায়তা করে। এই হামলার ঘটনায় ৩৫২ জন কারাবন্দী পালিয়ে গেছে।

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, কারাগারে তালেবানের হামলার ঘটনায় চার শতাধিক বন্দী পালিয়েছে।

যৌথ অভিযান দায়মুক্তি আইন ‘অসাংবিধানিক’

‘যৌথ অভিযান দায়মুক্তি আইন ২০০৩’ কে অসাংবিধানিক ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত একটি বেঞ্চ আজ রোববার এ রায় দেন।

২০০২ সালের অক্টোবর থেকে ২০০৩ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত অপারেশন ক্লিনহার্ট নামে যৌথ অভিযান চলে। এতে পুলিশ ও সামরিক বাহিনীর সদস্যরা অংশ নেন। ওই সময় যৌথ বাহিনীর হেফাজতে অনেকের মৃত্যু, সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি ও মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ ওঠে। পরে ওই অভিযানকে দায়মুক্তি দিয়ে আইন প্রণয়ন করে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট সরকার।
আজকের রায়ে আদালত বলেছেন, ওই অভিযানের (অপারেশন ক্লিনহার্ট) সময় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি বা তাঁদের পরিবার ফৌজদারি ও দেওয়ানি মামলা করতে পারবেন। ক্ষতিপূরণ চেয়েও মামলা করতে পারবেন।

বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসার পর যৌথ বাহিনীর ওই অভিযান চলে। ওই অভিযানের কার্যক্রমকে দায়মুক্তি দিয়ে ২০০৩ সালে এই আইনটি করা হয়।

ওই আইনের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জেড আই খান পান্না ২০১২ সালে জনস্বার্থে রিট আবেদনটি করেন। প্রাথমিক শুনানি শেষে ওই বছরের ২৯ জুলাই হাইকোর্ট রুল দেন। আইনসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব ও প্রতিরক্ষা সচিবসহ পাঁচ বিবাদীকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়।

এ রুলের ওপর শুনানি শেষে আজ ১৩ সেপ্টেম্বর রুল নিষ্পত্তির দিন ধার্য করা হয়।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net