শিরোনাম

Daily Archives: ১৮ মে ২০১৬

নবীগঞ্জে বিবিয়ানা পাওয়ার প্লান্টের মূল গেইটে পানি নিষ্কাশনের দাবীতে গ্রামবাসীদের অনির্দিষ্টকালের অবস্থান ধর্মঘট

উত্তম কুমার পাল হিমেল- নবীগঞ্জ থেকেঃ নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের পারকুল, বনগাঁও ও পাহাড়পুরে মধ্যেস্থলে অবস্থিত বিবিয়ানা বিদ্যুৎ প্লান্টের পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় ৩টি গ্রামের প্রায় শতাধিক পরিবারের বাড়ি ঘর জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। পানিবন্দী অবস্থায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের নারী পুরুষ গতকাল বুধবার সকাল থেকে বিবিয়ানা পাওয়ার প্লান্টের মূল গেইটে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবস্থান ধর্মঘট পালন করছেন। ধর্মঘটকারীরা একটাই দাবী পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত গেইটেই তারা অবস্থান করবেন।অবস্থান ধর্মঘটকারীদের মধ্যে পারকুল গ্রামের বৃদ্ধা মিনা বেগম (৬০) জানান, আমাদের শেষ আশ্রয় মাথাগোজার জায়গাটুকু পানিতে তলিয়ে গেছে। কোন উপায় না দেখে আমরা ওই জায়গায় অবস্থান নিয়েছি। একই গ্রামের কাঞ্চল মালা (৬৫) জানান, ৭ সদস্যের পরিবারের মধ্যে শিশুসন্তানদের নিয়ে অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন। মনোয়ারা বেগম (৬০) জানান, আমরা আর কোন উপায় না পেয়ে পাওয়ার প্লান্টে অবস্থান নিয়েছি। আমাদের দাবী সরকার যতক্ষণ পর্যন্ত পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না করবে ততক্ষণ ওই স্থানে বসে থাকব। বিশিষ্ট মুরব্বী আতিক মিয়া (৭০) জানান, আমাদের বাড়ি ঘরে পানি উঠে মাথা গুজার জায়গাটাও নেই। সরকারের কাছে আমাদের আকূল আবেদন জানাচ্ছি আমাদের জীবন বাচাতে অতি তারাতারি পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করবে। খুজ নিয়ে জানা যায়, অবস্থান ধর্মঘট কারী অসহায়দের সাথে কোন জনপ্রতিনিধি কিংবা বিদ্যুৎ প্লান্ট কর্তৃপক্ষের কেউ কোন খুজ নেন নি। বরং গেইট ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য তাদের বার বার হুমকী ধামকী দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। তাদের দাবী পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না করা হলে তারা ঘরে ফিরে যাবে না।এব্যাপারে বিবিয়ানা পাওয়ার প্লান্টের দায়িত্বে নিয়োজিত সামিট পাওয়ারের ম্যানেজিং ডিরেক্টর জহিরুল ইসলামের মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাদের কিছু করার নেই। যা করার সরকার করবে। আমরা ঠিকাধারী প্রতিষ্ঠান।

নবীগঞ্জে বিবিয়ানা পাওয়ার প্লান্টের মূল গেইটে পানি নিষ্কাশনের দাবীতে গ্রামবাসীদের অনির্দিষ্টকালের অবস্থান ধর্মঘট

উত্তম কুমার পাল হিমেল- নবীগঞ্জ থেকেঃ নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের পারকুল, বনগাঁও ও পাহাড়পুরে মধ্যেস্থলে অবস্থিত বিবিয়ানা বিদ্যুৎ প্লান্টের পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় ৩টি গ্রামের প্রায় শতাধিক পরিবারের বাড়ি ঘর জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। পানিবন্দী অবস্থায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের নারী পুরুষ গতকাল বুধবার সকাল থেকে বিবিয়ানা পাওয়ার প্লান্টের মূল গেইটে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবস্থান ধর্মঘট পালন করছেন। ধর্মঘটকারীরা একটাই দাবী পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না করা পর্যন্ত গেইটেই তারা অবস্থান করবেন।অবস্থান ধর্মঘটকারীদের মধ্যে পারকুল গ্রামের বৃদ্ধা মিনা বেগম (৬০) জানান, আমাদের শেষ আশ্রয় মাথাগোজার জায়গাটুকু পানিতে তলিয়ে গেছে। কোন উপায় না দেখে আমরা ওই জায়গায় অবস্থান নিয়েছি। একই গ্রামের কাঞ্চল মালা (৬৫) জানান, ৭ সদস্যের পরিবারের মধ্যে শিশুসন্তানদের নিয়ে অন্যের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছেন। মনোয়ারা বেগম (৬০) জানান, আমরা আর কোন উপায় না পেয়ে পাওয়ার প্লান্টে অবস্থান নিয়েছি। আমাদের দাবী সরকার যতক্ষণ পর্যন্ত পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না করবে ততক্ষণ ওই স্থানে বসে থাকব। বিশিষ্ট মুরব্বী আতিক মিয়া (৭০) জানান, আমাদের বাড়ি ঘরে পানি উঠে মাথা গুজার জায়গাটাও নেই। সরকারের কাছে আমাদের আকূল আবেদন জানাচ্ছি আমাদের জীবন বাচাতে অতি তারাতারি পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করবে। খুজ নিয়ে জানা যায়, অবস্থান ধর্মঘট কারী অসহায়দের সাথে কোন জনপ্রতিনিধি কিংবা বিদ্যুৎ প্লান্ট কর্তৃপক্ষের কেউ কোন খুজ নেন নি। বরং গেইট ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য তাদের বার বার হুমকী ধামকী দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারীরা। তাদের দাবী পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না করা হলে তারা ঘরে ফিরে যাবে না।এব্যাপারে বিবিয়ানা পাওয়ার প্লান্টের দায়িত্বে নিয়োজিত সামিট পাওয়ারের ম্যানেজিং ডিরেক্টর জহিরুল ইসলামের মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমাদের কিছু করার নেই। যা করার সরকার করবে। আমরা ঠিকাধারী প্রতিষ্ঠান।

যারা আলবদর রাজাকারদের হাতে বাংলাদেশের পতাকা তুলেদিয়েছিল তাদের বিচারও একদিন বাংলার মাটিতে হবে ————লন্ডনে প্রধানমন্ত্রী

লন্ডনঃ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন যারা যুদ্ধাপরাধী মানবতাবিরুধী আলবদর রাজাকারদের হাতে বাংলাদেশের পতাকা তুলেদিয়েছিল তাদের বিচারও একদিন বাংলার মাটিতে হবে। গতকাল বিকেলে প্রধানমন্ত্রী তার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে সেন্ট্রাল লন্ডনের তাজ হেটোলে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন বিএনপি ক্ষমতায় যেতে এখন দেশ এবং ইসলামের বিরুদ্ধে ষঢ়যন্ত্র শুরু করেছে। তারা ইসরাইলী গোয়েন্দা সংস্থা মোশাদের সাথে হাত মিলিয়ে ক্ষমতায় যেতে চায়। ষঢ়যন্ত্রকারী আসলাম চৌধুরীর বিচারও তার নিজস্ব গতিতে চলবে। প্রধানমন্ত্রী ষঢ়যন্ত্রকারী ও দেশবিরুধীদের ব্যাপারে নেতামর্কীদের সতর্ক থাকার আহবান জানান। যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীদের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইউকে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ। আজ সকালে প্রধানমন্ত্রী বুলগেরিয়ার রজধানী সোফিয়ার উদ্দেশ্যে লন্ডন ত্যাগ করেন। প্রধানমন্ত্রীকে হিথ্রো বিমান বন্দরে বিদায় জানান লন্ডস্থ বাংলাদেশ মিশনের কর্মকর্তা কর্মচারী ও যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ।

লন্ডনে শিক্ষক লাঞ্চনার ব্যাতিক্রমী প্রতিবাদ

লন্ডনঃ নারায়ণগঞ্জের একটি স্কুলের  প্রধান শিক্ষককে  মিথ্যা অভিযোগে জনসমুখ্খে  মারধর ও কান ধরে ওঠবস করানোর ঘটনায় ‘কান ধরে’ প্রতিবাদ জানিয়েছেন লন্ডনের কয়েকটি সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সদস্যরা।গতকাল ১৭মে বিকেলে ইষ্টলন্ডনের মন্টিফউরী সেন্টারের সামনে এই ব্যতিক্রমী প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। প্রতিবাদকারী সংগঠন গুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ হউম্যান রাইট কাউন্সিল ইউকে,পলিসি রিসিপশন ষ্টুডেন্ট ইউকে,যুক্তরাজ্য গণজাগরণ মঞ, নারী চেতনা, সহ আরো কয়েকটি সংগঠন। একজন শিক্ষকের প্রতি অপমানের নিন্দা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন ড. আনিছরি রহমান আনিছ, অজয়ন্তা দেবরায়, সৈয়দা নাজনিন সুলতানা শিখা, শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল, কামরুল হাসান তুষার, সিন্তিয়া প্রমুখ। সভায় শিক্ষক লাঞ্চনাকারীদের দৃষ্টান্ত মূলক সাজার দাবী জানান বক্তারা।

 

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net