শিরোনাম

Monthly Archives: জুন ২০১৬

অর্থমন্ত্রীকে এরশাদ : ৩৭ হাজার কোটি টাকা মাফ করার আপনি কে?

বাজেটের কলেবর বৃদ্ধি, ৩৭ হাজার কোটি টাকার খেলাপি ঋণ মওকুফ এবং ব্যাংকের সাগর চুরির বিষয়ে কঠোর সমালোচনা করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ। মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে ২০১৬-১৭ বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ সমালোচনা করেন। খেলাপি ঋণ মওকুফের সমালোচনা করে এরশাদ বলেন, ‘এই অধিকার আপনাকে (অর্থমন্ত্রী) কে দিয়েছে? এটা জনগণের টাকা, পেনশন ভোগীদের টাকা। এই টাকা আপনি মওকুফ করে দিয়েছেন। এই অধিকার আপনাকে আমরা দেইনি।’ বাজেটের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘অর্থমন্ত্রী বিরাট বাজেট দিয়েছেন। বাজেট বড় হলেই জনগণের জনগণের কল্যাণ হবে তা বলা যাবে না। বাজেট দেয়ার পর ব্যবসায়ীরা বলেছেন এমন জটিল বাজেট তারা আর দেখেনি। তারা যদি এ কথা বলে তাহলে কিভাবে হবে?’ এ সময় ব্যাংকের অর্থ জালিয়াতকারী ও অর্থ পাচারকারীদের বিচারের দাবি জানিয়ে সাবেক এই রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘যারা লুটেরা তাদের বিচার করতে পারেন না; তারা মাথা উঁচু করে আছেন। আমার সময় তো কোনো ব্যাংক জালিয়াতি হয়নি। পারলে দেখান- আমার সময় কোনো ব্যাংক লুটপাট হয়েছে, তাহলে রাজনীতি ছেড়ে দেব।’ তিনি ২০১১-১২ সালে শেয়ারবাজারে ধসের কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘আমরা এখনও তা কাটিয়ে উঠতে পারিনি। আমি শেয়ারবাজারে গিয়েছিলাম। কান্না শুনেছি, আর্তনাদ শুনেছি। এনিয়ে গঠিত কমিটির রিপোর্ট আমরা জানতে পারিনি, কোনো প্রভাবও দেখিনি। তাহলে এই কমিটি করে লাভ কী?’ এ সময় পানামা পেপার্সে অর্থ পাচারকারীদের যে তালিকা এসেছে তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান।

 

 

নবীগঞ্জে ঈদ মাকের্টে উপচেপড়া ভীড়, মহিলাদের প্রথম পছন্দ মিস সুইটি ও বাজিরা মস্তানী, লেহেঙ্গা ও জালহা শাড়ী

উত্তম কুমার পাল হিমেল,নবীগঞ্জ থেকেঃ শেষ মুহুর্তে নবীগঞ্জে সবাই এখন ঈদের কেনাকাটায় ব্যস্থ। আর মাত্র ৭ দিন পরেই ঈদ,তাই পরিবারের সবাই এবং প্রিয়জনকে নিয়ে ঈদের আনন্দ উপভোগ করার জন্য সবাই এখন ঈদের কেনাকাটায় ব্যস্ত । সবাই পছন্দের পোশাক পরে ঈদের আনন্দ করার জন্য এদিক ওদিক ঘুরে কেনাকাটা করছেন। নবীগঞ্জের প্রতিটি কাপড়ের ফ্যাশন সপ,বিপনী বিতান এবং কসমেটিক্স দোকান গুলো এখন ক্রেতাদের উপচেপড়া ভীড় । উচ্চবৃত্ত,মধ্যবৃত্ত ও নিন্ম বৃত্ত সকল শ্রেণী পেশার মানুষ এখন ঈদ কেনাকাটায় ।সরেজমিনে বিপনীবিতানগুলোতে ঘুরে দেখা গেছে এবারের ঈদে মহিলা ও তরুনীেেদর প্রথম পছন্দের তালিকায় রয়েছে কিরনমালাও বজ্রমালা ড্রেস ,ইন্ডিয়ান বাজিরা মস্তানী,মিস সুইটি,মিস ম্যাচিং,লং ব্রাউন, জালহা,প্রেম রতন,টাঙ্গাইল, হাফ সিল্ক,জামদানী, শাড়ী,ইন্ডিয়ান ত্রিপিছ,ইন্ডিয়ান সুতি শাড়ী,জরজেট ও টাঙ্গাইল শাড়ী এবং পুরুষদের প্রথম পছন্দের তালিকায় রয়েছে প্যান্ট ক্ল্যাশ অব ক্যান,বাজুরঙ্গী,আরমানি ও ডেসিম, জামিম,চায়না শার্ট,থাইপ্যান্ট,সর্ট পাঞ্জাবী,ফতুয়া,চেক পুল ও হাফসার্ট। নবীগঞ্জ শহরের গোল্ডেনপ্লাজার লাবনী ফ্যাশন,ডিজাইন টাচ,ষ্টাইল আইকন,জুই কসমেটিক্স,প্রীতিকনা ভেরাইটিজ স্টোর,মধ্যবাজারের কাশেম ক্লথ ষ্টোর,উত্তম বস্ত্রালয়,পপি ভেরাইটিজ সেন্টার,শেরপুর সড়কের রংধনু ক্লথ স্টোর,নবরূপা ক্লথ স্টোর,জে,ক,হাইস্কুল রোডের ফ্যাশন ষ্টোর,নুরানী মার্কেটের আল আমিন ক্লথ ষ্টোর,লক্ষী বস্ত্রালয়, আল্লারদান ক্লথ ষ্টোর,জনি ক্লথ ষ্টোর,নবরূপা ক্লথ ষ্টোর,রেনেসা ফ্যাশন,মিম্বর টাওয়ারে রছ,রাজা কমপ্রেক্সের মুক্তিযোদ্ধা বস্ত্র বিতান,অপরাজিতা কসমেটিক্সসহ শহরের অন্যান্য বিপনী বিতানগুলোতে এখন প্রতিদিন গভীর রাত পর্যন্ত ক্রেতাদের ভীড় থাকে। বিপনী বিতানের পাশাপাশি পোষাক তৈরীর জন্য টেইলার্স দোকান গুলোতে ও ভীড় দেখা গেছে। আর মাত্র কয়েকদিন বাকী ঈদের। তাই শেষ মুহুর্তে নবীগঞ্জের সর্বত্র ক্রেতাদের কেনাকাটায় ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ই ব্যস্থ। তবে তরুনী ও মহিলাদের আইটেমের মধ্যে ইন্ডিয়ান ক্যাটরিনা শাড়ী, ইন্ডিয়ান শাড়ী,মাজাক কালী শাড়ী,দাবাং ত্রিপিছ এবং পুরুষদের আইটেমের মধ্যে চায়না সার্ট,প্যান্ট,পাঞ্জাবী-পাজামাসহ গার্মেন্টেস এর পন্য বেশী বিক্রি হচ্ছে। এ প্রতিনিধির সাথে আলাপকালে গোল্ডেন প¬াজার লাবনী এক্সক্লসিভ ফ্যাশন ওয়্যার এর পরিচালক শাহ শামীম আলম জানান,ঈদকে সামনে রেখে গত বছরের তুলনায় ভালই বিক্রি হচ্ছে। তবে বিদেশী রেমিটেন্স কম আসায় এবং প্রবাসীরা দেশে কম আসায় বেচাকেনা আশানুরুপ হয়নি । তরুনীদের আনরেডি ত্রিপিছ ও পুরুষদের সার্ট প্যান্ট বিক্রি হচ্ছে বেশী। তবে নবীগঞ্জে ঘন ঘন বিদ্যুত লোডসেডিংয়ের কারনে ব্যবসায় মারাত্মক ব্যাঘাত ঘটছে। ঈদের বিক্রি গত বছরের তুলনায় খুব ভাল হচ্ছে। মহিলাদের ইন্ডিয়ান শাড়ী, তরুনীদের ইন্ডিয়ান কিরনমালা ও বজ্রমালা ড্রেস,ইন্ডিয়ান ত্রিপিছ,সুতি জেেজট ও জামদানী শাড়ী এবং পুরুষদের থাই ও চায়না প্যান্ট,থাই শার্ট,ধুতি,পাঞ্জাবী,পাজামা বিক্রি হচ্ছে বেশী। মধ্য বাজারের উত্তম বস্ত্রালয়ের স্বত্তধিকারী জানান,ঈদের বাজারে বেচাবিক্রি ভালই হচ্ছে। মহিলাদের আনরেডি থ্রীপিছ,সুতী ও ব্লকের শাড়ী বেশী বিক্রি হচ্ছে এবং পুরুষদের সার্ট-প্যান্ট প্রতিদিনই বিক্রি হচ্ছে।কসমেটিক সামগ্রীর দোকান পপি ভ্যারাইটিজ সেন্টারের পরিচালক প্রমথ চক্রবর্তী বেনু জানান, এ বছরের ঈদে বাজারে মহিলা ও তরুনীদের প্রথম পছন্দ সিটি গ্লোল্ডের গলার হাড়, হাতের ছুড়ি এবং প্রসাধন সামগ্রী হিসাবে মেহেদী বিক্রি হচ্ছে বেশী। ইদের বেচাকেনাতে আমি খুশি।নবীগঞ্জ জে,কে হাইস্কুল সড়কের ফ্যাশন ষ্টোরস এর সজল কুমার দাশ জানান,ঈদের বাজারে বেচাবিক্রি ভালই হচ্ছে। আগামী সপ্তাহে আরও ভাল বিক্রি হবে বলে আশা করছি। নবীগঞ্জ বাজারে ঈদের মার্কেটে আসা স্কুল শিক্ষিকা রাশিদা বেগম জানান,জরজেট শাড়ী ও আনরেডি থ্রি-পিছ পছন্দের তালিকায় থাকলেও দাম বেশী হওয়ায় বাজেটে কতটুকু পোষাবে তা চিন্তা করছি। নুরানী মার্কেটের লক্ষী বন্ত্রালয়ের পরিচালক সুজিত কুমার পাল জানান,গত বছরের তুলনায় বেচাবিক্রি ভাল। আমাদের নুরানী মার্কেটে নিন্মবৃত্ত,মধ্যবৃত্তসহ সকল শ্রেনীর লোকজনের পোশাক সুলভ মুল্যে পাওয়া যায় তাই ক্রেতার উপস্থিতি আশানুরুপ ভাল। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র মোঃ মহসিন আহমদ জানান,ঢাকা-সিলেটের মত নবীগঞ্জে ও এখন চাহিদামত পোশাক পাওয়া যায়। দাম একটু বেশী হলে ও এ বছর ২হাজার ৮ শত টাকা দিয়ে সার্ট ২ হাজার ৫ শত টাকা দিয়ে প্যান্ট এবার ঈদের পোশাক কিনেছি।সিলেট শাহপরান ইন্সটিটিউট এন্ড বিজনেস টেকনোলজিতে পড়–য়া ছাত্রী আনোয়ার বেগম বলেন,বছর ঘুরে আবার ইদ আসায় খুশী মনে কেনাকাটা করছি। জিনিসপত্রের দাম একটু বেশী হলেও নবীগঞ্জে পছন্দমত জিনিস ক্রয় করতে পেরে ভাল লাগছে। শহরের মধ্যবাজারে শপিং মল গুলোতে উচ্চবিত্তের ক্রেতাদের ভীড় থাকলে শহরের নুরানী মার্কেটে নিম্ন মধ্যবিত্তের ক্রেতাদের ভীড় লক্ষনীয় বেশী । দাম অনেকাংশে কমে পাওয়া যায় বলে সেখানে সারাদিনই নিম্ন আয়ের মানুষের সমাগম বেশী। নবীগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী বলেন, শহরের মধ্যবাজারে সপিংমল গুলোতে এবার ক্রেতারা সাচ্ছন্দে কেনা কাটা করতে পারছেন । নবীগঞ্জ বাজারের পরিবেশ ভালো সুষ্টু পরিবেশ থাকায় ক্রেতাদের অধিকাংশই অন্য শহরে না গিয়ে নবীগঞ্জে তাদের কেনাকাটায় স্বস্থিবোধ করছেন।

কে কোন দলের বা মতের সেটি বড় কথা নয় আমরা একে অন্যের ভাই আমাদের পরিচয় আমরা হবিগঞ্জি ——–মোতাছ্ছিরুল ইসলাম

লন্ডনঃ আমাদের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য এক এবং অভিন্ন , কে কোন দলের বা মতের সেটি বড় কথা নয় আমরা একে অন্যের ভাই, আমাদের বড় পরিচয় আমরা হবিগঞ্জি। এমন্তব্য হবিগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির প্রেসিডেন্ট বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ মোতাছ্ছিরুল ইসলামের। গতকাল ( ২৮ জুন) ইষ্ট লন্ডনের একটি রেষ্টুরেন্টে হবিগঞ্জ ইয়োথ এসোসিয়েশন ইউকে আয়োজিত বৃটেনে বসবাসরত হবিগঞ্জবাসীর সম্মানে আয়োজিত ইফতার পূর্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এমন্তব্য করেন। তিনি বলেন প্রতিষ্টালগ্ন থেকে হবিগঞ্জ ইয়ুথ এসোসিয়েশন ইউকে ব্যতিক্রমী কর্মকান্ডের জন্যে প্রশংসিত হয়েছে।

হবিগঞ্জ ইয়োথ এসোসিয়েন ইউকের প্রেসিডেন্ট সাবেক ছাত্র নেতা নূর উদ্দিন চৌধুরী বুলবুলের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক শামসুল ইসলাম মঞ্জু‘র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ইফতার মাহফিলে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক হবিগঞ্জ এসোসিয়েশন ইউকের প্রেসিডেন্ট একাউনটেন্ট মাহমুদ এ রঊফ, সাংবাদিক-গবেষক মতিয়ার চৌধুরী, কেমডেন কাউন্সিলের সাবেক মেয়র ফারুক আনসারী, অধ্যাপক জহিরুল হক শাকিল, ড. মোহাম্মদ নূরুল আলম, সালাউদ্দিন তাহির, ইঞ্জিনিয়ার বাবু সুশান্ত দাস গুপ্ত। সংগঠনের কর্মকান্ড এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলার জাকারিয়া চৌধুরী, জালাল উদ্দিন জালাল, বাকি বিল্লাহ, অজিত লাল দাস, সৈয়দ মোস্তাক আহমদ, ব্যারিষ্টার কিবরিয়া, জাকারিয়া চৌধুরী, গোলাম কিবরিয়া, লিংকন, বাচ্চু প্রমুখ। সভাপতির বক্তব্যে নূর উদ্দিন চৌধুরী বুলবুল বলেন আজ থেকে তিন বছর পূর্বে কয়েকজন উদ্যোমী তরুনের মাধ্যমে সংগঠনটির যাত্র শুরু হয়েছিল। বর্তমানে এর সদস্য সংখ্যা তিনশত ছাড়িয়ে গেছে। আমাদের পরিকল্পনা বৃটেনের প্রতিটি শহরে এর শাখা চালু করা। এই সংগঠনের সদস্যদের সকলেই কর্মে বিশ্বাসী। ইতিমধ্যেই আমরা সফল ভাবে কয়েটি প্রজেক্ট বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হয়েছি।

UK Jubo League: Oppose anti liberation dark forces of Jamaat Shibir Ansar Ahmed Ullah

 

Bangladesh is now rapidly progressing under the able leadership of Prime Minister Sheikh Hasina while the anti liberation dark forces are conspiring to prevent development work in Bangladesh said guests at UK Jubo League’s hosted Iftar Mahfil for party workers, journalists, civil society leaders and businessmen held on 27 June in Impressions venue, East London.Chief guest at the event was UK Awami League’s President Sultan Shariff. Prior to Iftar a brief discussion was chaired by Jubo League’s President Fokhrul Islam Modhu & conducted by General Secretary Salim Ahmed KhanMain speaker was UK Awami League’s Acting Secretary Noim Uddin Riaz. Special guests were UK Awami League’s senior vice president Alhj Zalal Uddin, European Awami League’s Secretary M A Gani, UK Awami League’s Vice president Prof Abul Hashem, Joint Secretary Anwaruzzaman Chowdhury, organising Secretary Abdul Ahad Chowdhury, Jubo League’s Jamal Ahmed Khan, Afzal Hussain, Syed Azizur Rahman Shamim, Montor Ali Raju, Firoz Miah, Shamsadur Rahman Rahin, Anwarul Islam, Sheikh Nurul Islam Jitu, Aminul Islam Rabel, Syed Abdul Mumin, Delwar Hussain Liton, Syed Shofiul Alam, M A Rakib, Foyezur Rahman Foyez, Abul Kalam Raju, Jubair Ahmed, Babul Khan, Lilu Miah Talukder,  Dilal Ahmed, Mahmud Ali, Dolon Miah, Mohsin Talukder, Tanti League’s convenor M A Salam, Krishak League’s convenor M A Ali, Karmajibi League’s secretary M A Basir, Jubo Mohila League’s president Yasmin Sultan Polin, secretary Sajia  Snigdha, Chatra League’s president Tamim Ahmed, secretary Sanjib Bhuiyan amongst others.The speakers from various sections of the community said the enemies of Bangladesh are trying to destabilise Bangladesh by carrying out targeted killings of foreign nationals, members of minority community and secular activists. They want to turn Bangladesh into a militant state. We need to remain united to oppose these dark forces.

 

 

 

 

নবীগঞ্জে কৃষি ও প্রযুক্তি মেলা উদ্বোধন ও র‌্যালী

রাকিল হোসেন নবীগঞ্জ(হবিগঞ্জ) সংবাদদাতা :নবীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সিলেট অঞ্চলে শস্যের নিবিড়তা বৃদ্ধিকরণ/প্রকল্প ১৫/১৬ অর্থ বছরের ৩ দিন ব্যাপী কৃষি প্রযুক্তি মেলা ২০১৬ উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে গতকাল র‌্যালী শেষে উদ্বোধন করা হয়েছে। উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্সকর্তা মুহাম্মদ মাছুম বিল্লাহ,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যন নাজমা বেগম,কৃষি অফিসার দুলাল উদ্দিন,উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল জাহান চৌধুরী,সাবেক সভাপতি পৌর কাউন্সিলর এটিএম সালাম,প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক রাকিল হোসেন,অফিস বিষয়ক সম্পাদক মতিউর রহমান মুন্না,দীঘলবাক ইউপি আওয়ামীলীগের সভাপতি গোলাম হোসেন রব্বানী,উপজেলা যুবলীগ নেতা রাব্বি আহমেদ চৌধুরী মাক্কু প্রমূখ। । মেলায় মোট ১০টি ষ্টল বসে। ৩০জুন পর্যন্ত এ মেলা চলবে।

জামাত-শিবির স্বাধীনতাবিরুধী অপশক্তির বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাড়াতে হবে ইউকে যুবলীগের ইফতার মাহফিলে বক্তারা

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ জাতির জনকের কন্যা জননেত্রী শেখ নেতৃত্বে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে পৌঁছে যাচ্ছে উন্নয়নের কাঙ্খিত লক্ষ্যে, ঠিক এই মূহুর্থে স্বাধীনতাবিরুধী চক্র উন্নয়নের ধারাকে বাধাগ্রস্থ করতে দেশবিরুধী ষঢ়যন্ত্রে মেতে উঠেছে। মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত শত্রুরা একাত্তরের ন্যায় একের পর এক হত্যাযঙ্গ চালিয়ে বাংলাদেশকে একটি জঙ্গিরাষ্ট্রে পরিণত করার পায়তারা করছে। স্বাধীনতাবিরুধী অপশক্তির বিরুদ্ধে আমাদের সকলকে রুখে দাড়াতে হবে। সাংবাদিক সমাজকর্মী সাহিত্যিক সহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক-রাজনৈতক ও ধর্মীয় সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সম্মানে যুক্তরাজ্যযুবলীগ আয়োজিত ইফতার মাহফিলে বক্তারা এঅভিমত ব্যক্ত করেন। বক্তারা বলেন জামাত-শিবির, হিযবুততাহরির ও তাদের পৃষ্টপোষকতায় গড়ে উঠা হেফজত জঙ্গিরা বিভিন্ন নামে জঙ্গিতৎপরতা চালাচ্ছে। বৃটেন এবং ইউরোপ থেকে একটি চক্র এদের সহযোগীতা করছে এরা কারা এদের চিহ্নিত করতে হবে। বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে শতাধিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ইফতার মাহফিলে অংশ নেন। যুক্তরাজ্য যুবলীগের সভাপতি ফখরুল ইসলাম মধুর সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক সেলিম আহমদ খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক সুলতান মাহমুদ শরীফ, যুক্তরাজ্য আওয়ামীরীগের সহসভাপতি জালাল উদ্দিন, শাহ আজিজুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক নইমুদ্দিন রিয়াজ, যুগ্মসম্পাদক আরোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ চৌধুরী, ওল্ডহ্যাম আওয়ামীলীগের সভাপতি কবি ইলিয়াছ উদ্দিন আহমদ, ওয়েলস আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাংবাদিক মকিছ মনরুর, ইউরোপীয়ান আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক এম এ গণি, বাংলাদেশ মিশনের প্রেস্স মিনিষ্টার সাংবাদিক নাদিম কাদির। গতকাল ২৭ জুন ইষ্টলন্ডনের ইমপ্রেশন ভ্যানুতে ইফতার পূর্ব আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্মসম্পাদক মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব যুবনেতা জামাল খান, সৈয়দ আজিজুর রহমান, চৌধুরী ফয়েজুর রহমান মোস্তাক, পলিন ইয়াসমিন, সাজিয়া ¯িœগ্ধা, প্রমুখ। ইফতার মাহফিলে বিশ্ব মানবতার কল্যাণ কামনা করে মোনাজাত করেন যুক্তরাজ্য ওলামা লীগের আহবায়ক মৌলানা কুতুব উদ্দিন আহমদ।

যারা দলের নাম ভাঙ্গিয়ে নিজেদের ফায়দা হাসিল করে তারা বেঈমান সাইফুল জাহান চৌধুরী

উত্তম কুমরি পাল হিমেল ,নবীগঞ্জ  থেকে: নবীগঞ্জ উপজেলার কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগের উদ্যোগে স্থানীয় ইউনিয়ন কমপ্লেক্স প্রাঙ্গনে  আয়োজিত ইফতার মাহফিল অনুষ্টিত হয়েছে ৷ গতকাল সোমবার ইফতার মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন, যুবলীগ সভাপতি বদরুজ্জামান চৌধুরী স্বাধীন ৷ প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী ৷ বিশেষ অতিথি ছিলেন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ইমদাদুল হক চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আহমদ, ইউপি চেয়ারম্যান সাবেক যুবলীগ সভাপতি আলী আহমদ মুছা, ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, ছাত্রলীগ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান, তরুনলীগ আহবায়ক পারভেজ রাজ ৷ সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমদের পরিচালনায় বক্তব্য করেন, মন্জু বিশ্বাস,ডালিম আহমদ,লিটন দত্ত, জাকারিয়া মাসুদ,শ্রীবাস রায়, অলি খান,সোহেল মিয়া,আলামিন,বশির চৌধুরী,তাহির মিয়া,রিপন,সফি মিয়া,মানিক মিয়া,আব্দুল হাই,লেচু মিয়া প্রমূখ ৷ প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাইফুল জাহান চৌধুিরী বলেন যারা দলের নাম ভাঙ্গিয়ে নিজেদের সফায়দা হাসিল করে তারা বেঈমান।এদের চিহ্নিত করতে হবে।

 

ইইউ থেকে ব্রিটেনকে দ্রুত বেরিয়ে যাবার আহ্বান জানালেন ইইউ পার্লামেন্ট প্রধান মার্টিন শুলৎজ

যুক্তরাজ্যের মানুষ ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) জোট থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর এ নিয়ে আর মোটেই দেরি করতে চাইছেন না জোটের নেতারা। বিচ্ছেদ প্রক্রিয়া নিয়ে কাল মঙ্গলবারই আলোচনা শুরুর জন্য ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রধান মার্টিন শুলৎজ।
গণভোটের রায় নিয়ে যুক্তরাজ্যের মধ্যেও চলছে নানা ধরনের ভাঙাগড়া। এর মধ্যে স্কটল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টার নিকোলা স্টার্জন গতকাল রোববার বলেছেন, ইইউ থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার প্রক্রিয়া আটকে দিতে স্কটিশ পার্লামেন্ট ভেটো দেবে।
মার্টিন শুলৎজ গতকাল জার্মানির বিল্ড আম সান্টাগ পত্রিকাকে বলেন, ‘জোট থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়া যাওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করতে দেরি করা হলে তাতে আরও বেশি অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হবে এবং এতে করে চাকরিবাজার হুমকির মুখে পড়বে। কাজেই আমরা চাই ব্রিটিশ সরকার এগিয়ে আসুক। আগামী মঙ্গলবার যে সম্মেলন শুরু হচ্ছে, আলোচনা শুরু করার সেটিই সঠিক সময়।’
গণভোটের রায় নিয়ে আলোচনার জন্য মঙ্গলবার সম্মেলন ডেকেছে ইইউ। এ ছাড়া ইউরোপীয় পার্লামেন্টেরও বিশেষ অধিবেশন ডাকা হয়েছে।
গণভোটের রায় নিয়ে লন্ডন ও স্কটল্যান্ডের বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভ হয়েছে। সেখানকার অনেক মানুষ চাইছে দ্বিতীয় দফায় গণভোটের আয়োজন করা হোক। এ দাবিতে তারা ৩২ লাখের বেশি স্বাক্ষর সংগ্রহ করে ফেলেছে গত দুই দিনে।
এদিকে, স্কটল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টার নিকোলা স্টার্জন গতকাল বলেছেন, যুক্তরাজ্য ইইউ থেকে বিচ্ছিন্নতা চাইলেও তিনি ইইউতে স্কটল্যান্ডের অবস্থান বহাল রাখতে চান। এ লক্ষ্যে তাঁর সরকার আইনি পথ বেছে নিতে পারে। ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বিচ্ছিন্ন হওয়ার প্রক্রিয়ায় ভেটো দেবে স্কটিশ পার্লামেন্ট।
গত বৃহস্পতিবারের গণভোটে স্কটল্যান্ডের ৬২ শতাংশ ভোটার ইইউতে থাকার পক্ষে রায় দিয়েছেন। যুক্তরাজ্যকে উদ্দেশ করে স্টার্জন বলেন, ২০১৪ সালে স্বাধীনতা প্রশ্নে আয়োজিত গণভোটে স্কটল্যান্ড যুক্তরাজ্যের সঙ্গে থেকে যাওয়ার পক্ষে রায় দিয়েছিল। কিন্তু সেই রায় গত বৃহস্পতিবার ইইউর সঙ্গে থাকা না-থাকার গণভোটের পর ‘আর কার্যকর নয়’।

Shahid Janani’s 22nd death anniversary observed in London

London: The 22nd death anniversary of Shahid Janani Jahanara Imam who spearheaded the movement seeking justice for the victims of Bangladesh War of 1971 was observed by the UK Nirmul Committee on 26 June.UK Ekattorer Ghatak Dalal Nirmul Committee organised a discussion and a Iftar Mahfil at Banglatown’s Shaad restaurant in observance of the 22nd death anniversary of its founder, eminent writer, social activist and the mother of martyred freedom fighter Shafi Imam Rumi.Chaired by UK Committee’s Acting President Syed Enamul Islam & conducted by General Secretary Syed Anas Pasha, member of martyred family Nadeem Qadir, Minister (Press) at London’s Bangladesh High Commission addressed the discussion as the chief guest. Others who spoke on the occasion were BASOD’s leader from Bangladesh Dr Talha Yasin, UK Committee’s founder chief coordinator Abdul Malik Khukon, UK Committee’s founder, actor Shadhin Khasru from Bangladesh, founder, journalist S U Ahmed Belal, Advisor M A Rauf, Advisor, freedom fighter Abu Musa Hasan, Asst Secretary Jamal Khan, Research Secretary Matiar Chowdhury, journalist Nilufa Hassan, Nari Diganta’s Hena Islam, Koli Pasha, Dr Shaheda Khatun, Aliana Haq, journalist Hamid Md, Ansar Ahmed Ullah, Treasurer Shah Mustafijur Rahman Belal, executive member Shah Tofael, CPB’s Monzur Ahmed Nowshad amongst others.Speakers said Jahanara Imam united all pro-liberation war forces through mass movement and the movement will continue until the safety of all citizens including minority people are ensured, the extremism is uprooted and the spirit of Liberation War is established at all levels of society.It was on 19 January in 1992, Jahanara Imam along with pro-liberation politicians, prominent cultural personalities and intellectuals formed the Nirmul Committee (Forum for Secular Bangladesh). The Committee called for the trial of war criminals who committed crimes in the 1971 Bangladesh Liberation War in collaboration with the Pakistani forces.The Nirmul Committee set up symbolic Peoples trials in Dhaka on 26 March 1992 known as Gono Adalat trying accused war criminals. After leading the movement for two and a half years Jahanara Imam died of cancer on June 26, 1994.

 

 

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এখন জাতীয় দাবি : ইউকে নির্মূল কমিটি

লন্ডনঃ ৭১-এর গণহত্যাকারী, মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধী ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এবং জামাত-শিবির চক্রের মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক রাজনীতি নিষিদ্ধ করণের দাবিতে ১৯৯২ সালের এর ১৯ জানুয়ারী জাহানারা ইমাম গঠন করেছিলেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি। দেশের ১০১জন বরেন্য নাগরিক কর্তৃক সাক্ষরিত নির্মুল কমিটির ঘোষনায় বলা হয়েছিল -‘সরকার যদি গণহত্যা ও যুদ্ধাপরাধের দায়ে জামাতের আমির গোলাম আযমের বিচার না করে – আমরা গণআদালতে তার বিচার করব।’ একই সঙ্গে জামাত-শিবির চক্রের মৌলবাদী সাম্প্রদায়িক রাজনীতি নিষিদ্ধকরণেরও দাবি জানিয়েছিল নির্মুল কমিটি। একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মুল কমিটি যুক্তরাজ্য শাখা আয়োজিত শহীদ জননী জাহানারা ইমামের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকীর আলোচনা সভায় বক্তারা একথা বলেন। বক্তারা বলেন গণআদালতে গোলাম অযমের বিচারের কর্মসূচী সফল করার জন্য শহীদ জননী জাহানারা ইমাম মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকল রাজনৈতিক দল, সামজিক-সাস্কৃতিক-পেশাজীবি, ছাত্র-নারী-মুক্তিযোদ্ধা সংগঠনের সমন্বেয়ে গঠন করেছিলেন ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন ও একাত্তরের ঘাতক-দালাল নির্মুল জাতীয় সমন্বয় কমিটি’,যার উদ্যোগে ১৯৯২-এর ২৬ মার্চ ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত গণআদালতে গোলাম অযমের বিচার হয়, যা প্রত্যক্ষ করার জন্য সরকারের সকল হুমকী ও বাধা অগ্রাহ্য করে পাঁচলক্ষাধিক মানুষের সমাগম হয়েছিল। গত ২৪ বছরে বহু সংগঠন ও ব্যাক্তি যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের আন্দোলনে অংশ গ্রহন করেছেন যা পরিণত হয়েছে জাতীয় দাবীতে এবং এরই ধারা বাহিকতায় ২০০৮ সালের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গঠিত ১৪ দলীয় মহাজোট বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের কার্যক্রম আরম্ভ করেছে। পাশাপাশি এই বিচার বানচাল করার জন্য জামাত দেশ বিদেশে বহুমাতৃক চক্রান্ত আরম্ভ করেছে। এই ষঢ়যন্ত্রের অংশ হিসেবে জামাত একদিকে হেফাজতে ইসলামের মতো জঙ্গি মৌলবাদী সন্ত্রাসী সংগঠনকে মাঠে নামিয়েছে। অপর দিকে আওয়ামীলীগের কোনও কোনও নেতাকে নানা কৌশলে বশীভূত করে সরকারের কঠোর জঙ্গি-জামাত বিরুধী অবস্থান কোমল করতে চাইছে। এমনি এক পরিস্থিতে আমরা শহীদ জননী জাহানারা ইমামের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করছি। বক্তারা বলেন প্রতিটি মানবতা বিরুধী অপরাধীর বিচার ও জামাত-শিবির নিষিদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে সেই সাথে নৈব্য রাজাকারদেরও চিহ্নিত করতে হবে। গতকাল ২৬জুন বিকেলে ইষ্ট লন্ডনের বাংলাটাউনের স্বাদ গ্রীল রেষ্টুরেন্টে নির্মূল কমিটি যুক্তরাজ্য শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সৈয়দ এনামুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী সাংবাদিক সৈয়দ আনাছ পাশার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শহীদ পরিবারের সদস্য ও নিমৃূল কমিটির অন্যতম ফাউন্ডার হাসনা হেনার সুযোগ্য সন্তান লন্ডনস্থ বাংলাদেশ মিশনের প্রেস মিনিষ্টার সাংবাদিক নাদিম কাদির। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ থেকে আগত অধ্যাপক তালহা ইয়াছিন। শহীদ জননীর জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন নিমুল কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য সাংবাদিক মানবাধিকার কর্মী আনসার আহমেদ উল্লাহ, সাংবাদিক, আবু মুসা হাসান, প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠন মাহমুদ এ রউফ, যুক্তরাজ্য নির্মুল কমিটির ফাউন্ডার সদস্য সাংবাদিক শাহাব উদ্দিন বেলাল, ইউকে নির্মুল কমিটির ফাউন্ডার সদস্য নাট্যকর্মী স্বাধীন খসরু, যুক্তরাজ্য নির্মুল কমিটির এ্যাসিসটেন্ট সেক্রেটারী জামাল খান, নির্মুল কমিটির তথ্যও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মতিয়ার চৌধুরী, আব্দুল মালেক খোকন, কোষাধ্যক্ষ শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল, সদস্য নিলুফা হাসান, ডাঃ আফরোজা খাতুন, সাংবাদিক হামিদ মোহাম্মদ, শাহ তোফায়েল আহমদ প্রমুখ।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net