শিরোনাম

Monthly Archives: আগস্ট ২০১৬

বর্নমাউথ সমুদ্র সৈকতে রেডব্রিজ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে লিঃ এর আনন্দ ভ্রমণ

লন্ডনঃ প্রতিবছরের ন্যায় এবারও রেডব্রিজ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে লিমিটেড আনন্দ ভ্রমনের আয়োজন করে। গেল ২৯ আগষ্ট সংগঠনের সদস্যরা রেডব্রিজ থেকে একটি কোচে যাত্রা করেন বর্নমাউথ সমুদ্র সৈকতে। সমুদ্র সৈকতে পৌঁছে সংগঠনের সদস্যরা ভ্রমনকে স্মরনীয় করে রাখতে আয়োজন করে নানা কর্মসূচীর এর মধ্যে ছিল সাতার প্রতিযোগীতা, দৌড়, ফুটবল,ভলিবল, চিপ দিয়ে মাছ শিকার ও ফটো সেশন ইত্যাদি। সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহন কারীদের পুরস্কার প্রদান করা হয়। প্রতিবছরই সংগঠনটি সামার হলিডের শেষ প্রান্তে এসে আয়োজন করে ডে-ট্রিপের। সংগঠনের প্রেসিডেন্ট এম এস সেলিম সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন ‘‘রেডব্রিজ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন প্রতিষ্টালগ্ন থেকেই ব্যাতিক্রমী কর্মকান্ডের জন্যে সকল মহলের প্রশংসা কুড়াতে সক্ষম হয়েছে সকলের সহযোগীতা অব্যাহত থাকলে কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছানো সম্ভব, তিনি আনন্দ ভ্রমনে অংশগ্রহনকারীদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। সংগঠনের সেক্রেটারী সাবেক ছাত্রনেতা আতিকুর রহমান লিটন বলেন ডে-ট্রিপের বাইরেও রেডব্রিজওয়েল ফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে লিমিটেড প্রতিবছর ক্রীড়া প্রতিযোগীতা, সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা এবং জাতীয় দিবস গুলো পালন করে আসছে। সংগঠনের কর্মতৎপরতাকে আরো প্রসারিত করতে তিনি সকলের সহযোগীতা কামনা করেন। এবছর সংগঠনের পক্ষ থেকে যারা একদিনের ডে-ট্রিপে অংশ নেন তারা হলেন প্রেসিডেন্ট এম এস সেলিম, সেক্রেটারী আতিকুর রহমান লিটন, ভাইস প্রেসিডেন্ট মাহবুবুর রহমান কোরেশী, ভাইস প্রেসিডেন্ট আলহাজ্ব ফজলুর রহমান, ভাইস প্রেসিডেন্ট খলিলুর রহমান কয়সর, ট্রেজারার ফজলু হোসেন, এ্যাসিসটেন্ট সেক্রেটারী সুহেব আহমদ, পোর্টস সেক্রেটারী হাফিজ উদ্দিন, সহপোর্টস সেক্রেটারী মিলন কবীর, সহকারী ট্রেজারার জুয়েল অখন্দ, ক্যালচারাল সেক্রেটারী মাহবুবুল আলম, এ্যাসিসটেন্ট ক্যালচারাল সেক্রেটারী ইককাল খাঁন, সহকারী অর্গেনাইজং সেক্রেটারী সেলিম খান, মেম্বারশীপ সেক্রেটারী মোহাম্মদ হারুন, নির্বাহী পরিষদের সদস্যদের মধ্যে আবুল কালালাম আজাদ, মিনহাজ ইসলাম, ফারুক আহমদ, মিজানুর রহমান, হাবিবুর রহমান, আব্দুর রাজ্জাক, আব্দুল কাদির ও কামরুল হোসেন।

নবীগঞ্জে লোডশেডিং : জনজীবন অতিষ্ঠ

রাকিল হোসাইন, নবীগঞ্জ : হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ শহরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে লোডশেডিংয়ে দুর্ভোগে পড়েছেন উপজেলার কয়েক লক্ষাধীক মানুষ। প্রচন্ড দাবদাহের মধ্যে বিদ্যুতের ঘন ঘন লোডশেডিং-এ জন জীবনে নেমে এসেছে চরম ভোগান্তি।

উপজেলা সদরের অফিস পাড়া,উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রোগীদের মারাত্মক দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। শুষ্ক মৌসুমের শুরুতে লোডশেডিংয়ের পরিমাণ কম হলেও গত ৩ মাস ধরে তা মাত্রাতিরিক্ত বেড়েছে। প্রতিদিন পৌর শহর বাদে পল্লী অঞ্চলে ১৮/২২ঘন্টা বিদ্যুত থাকেনা । এ নিয়ে সাধারণ গ্রাহকদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

নবীগঞ্জ উপজেলা ১৩টি ইউনিয়নসহ প্রবাসী অধ্যুষিত ইনাতগঞ্জ এলাকায় সবচেয়ে বেশি লোডশেডিং করা হচ্ছে। দিন রাত অধিকাংশ সময় লোডশেডিং অব্যাহত রয়েছে। যুক্তরাজ্য,যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশ হতে গ্রীষ্মকালীন ছুটি কাটাতে কয়েক শাতাধীক পরিবার দেশে এসে বিপাকে পড়েছেন। প্রবাসী কয়েক জনের সাথে আলাপকালে তারা জানান, বিদ্যুতের লোডশেডিং অব্যাহত থাকলে সন্তানরা দেশে আসার আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে।

পাশাপাশি রেমিটেন্সের উপর প্রভাব পড়বে। এ বিষয়ে বারবার উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির মিটিং এ লোডশেডিং না করার জন্য বলা হলেও ডিজিএম ভজন কুমার বর্মন কর্ণপাত করেননি। লোডশেডিং এর কারণে সাধারন গ্রাহকদের মধ্যে পল্লী বিদ্যুতের প্রতি তীব্র অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুত না থাকায় স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের লেখা পড়ায় বিঘ্ন ঘটছে।

পাশাপাশি ব্যবসায়ীসহ অন্যান্য শ্রেনী পেশার মানুষ পড়েছেন বিপাকে। পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই প্রতিদিন লোডশেডিং এর কারণে গ্রাহকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। বিদ্যুৎ নির্ভর ওয়ার্কসপ, মটর গ্যারেজ,পোল্ট্রি ব্যাবসায়ীরা জানান, বিদ্যুতের অভাবে তাদের ব্যবসা ঠিক মত পরিচালনা করতে পারছেননা ।

ইনাতগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী শাহ আলম জানান, তিন মাস ধরে দিনের বেশির ভাগ সময় বিদ্যুৎ থাকে না। রাতে ১০-১১টার দিকে বিদ্যুৎ এসে ঘণ্টাখানেক থেকে আবার চলে যাচ্ছে। পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম ভজন কুমার বর্মন বলেন,৮/৯টি স্থানে ঝড়ে বৈদ্যুতিক তার ছিড়ে যাওয়ায় ফলে বিদ্যুত সরবরাহ বিঘ্ন ঘটেছিল। অব্যাহত লোডশেডিং এর বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি উত্তর না দিয়ে এড়িয়ে যান।

তারেক রহমানকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তরের দাবীতে ১০ ডাউনিং ষ্ট্রীটের সামনে ইউকে আওয়ামীলীগের মানববন্ধন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারক লিপি প্রদান

লন্ডনঃ বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত কর্তক সাজাপ্রাপ্ত ও বিচারাধীন একুশ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা মামলার অন্যতম আসামী লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপি‘র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তরের দাবীতে বিট্রিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্য্যালয় দশ নাম্বার ডাউনিং ষ্ট্রীটে স্মারকলিপি প্রদান করেছে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ। আজ একুশ আগষ্ট লন্ডন সময় বিকেল তিন ঘটিকায় বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা এসে সমবেত হয় দশ নাম্বার ডাউনিং ষ্ট্রীটের সামনে। এখানে তারেক রহমানকে বাংলাদেশ সরকারের কাছে হস্তান্তরের দাবী জানিয়ে মানববন্ধন করে ইউকে আওয়ামীলীগ। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন তারেক রহমান একজন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী, সে বৃটেনে অবস্থান করে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার লক্ষ্যে স্বাধীনতা বিরুধীদের সাথে নিয়ে দেশ বিরুধী ষঢ়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তারেক রহমান একুশ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা মামলার অন্যতম আসামী। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে ঘটে যাওয়া জঙ্গি হামলা গুলোর সাথে তারেক রহমানের ইন্দন রয়েছে বলেও বক্তারা দাবী করেন। বক্তরা বলেন ২০০৪ সালের একুশ আগষ্ট বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার লক্ষে তারেক রহমানের ইন্দনে একুশ আষ্টের গেনেড হামলার ঘটনা ঘটে, এই হামলায় মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেতৃসহ ২৪জন নীরহ মানুষকে প্রাণ দিতে হয়েছে। তারেক রহমান এবং হাওয়া ভবনের মাধ্যমে চারদলীয় জোট সরকারে পৃষ্টপোষকতায় বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের বিস্তার ঘটে, শায়েখ রহমান এবং বাংলাভাই হাওয়া ভবনের সৃষ্টি। বক্তারা বলেন বৃটেন একটি গণতান্ত্রিক দেশ এবং বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগী তাই ব্রিটিশ সরকারের উচিত হবে তারেক রহমানকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো। সমাবেশে অন্যানের মাঝে বক্তব্য রাখেন ইউকে আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডরীর সভাপতি আলহাজ্ব শামসুদ্দিন খান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক মারুফ চৌধুরী, নুরুল হক লালা মিয়া, আলতাফুর রহমান মোজাহিদ, অনুকুল তালুকদার ডালটন, সুশান্ত দাস গুপ্ত, ইউকে যুবলীগের সেক্রেটারী সেলিম আহমদ খান, জামাল আহমদ খান মেহের নিগার চৌধুরী, হোসনেয়ারা মতিন, আনজুমান য়ারা আঞ্জু, মুসলিমা শামস বন্নি প্রমুখ। সমাবেশ শেষে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক সুলতান মাহমুদ শরীফ, ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী নইমুদ্দিন রিয়াজ, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের যুগ্মসম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী ও উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতি আলহাজ্ব শামসুদ্দিন খানের নেতৃত্বে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরাবরে একটি স্মারক লিপি প্রদান করা হয়। স্মারক লিপিটি গ্রহন করেন প্রধানমন্ত্রীর অফিসের একজন কর্মকর্তা। স্মারক লিপিতে উল্লেখ করা হয় তারেক রহমান এজন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী এছাড়া বিচারাধীন একুশ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা মামলার পলাতক আসামী। তাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।

তারেক রহমানকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তরের দাবীতে ১০ ডাউনিং ষ্ট্রীটের সামনে ইউকে আওয়ামীলীগের মানববন্ধন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারক লিপি প্রদান

লন্ডনঃ বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত কর্তক সাজাপ্রাপ্ত ও বিচারাধীন একুশ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা মামলার অন্যতম আসামী লন্ডনে অবস্থানরত বিএনপি‘র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তরের দাবীতে বিট্রিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্য্যালয় দশ নাম্বার ডাউনিং ষ্ট্রীটে স্মারকলিপি প্রদান করেছে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ। আজ একুশ আগষ্ট লন্ডন সময় বিকেল তিন ঘটিকায় বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা এসে সমবেত হয় দশ নাম্বার ডাউনিং ষ্ট্রীটের সামনে। এখানে তারেক রহমানকে বাংলাদেশ সরকারের কাছে হস্তান্তরের দাবী জানিয়ে মানববন্ধন করে ইউকে আওয়ামীলীগ। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন তারেক রহমান একজন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী, সে বৃটেনে অবস্থান করে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার লক্ষ্যে স্বাধীনতা বিরুধীদের সাথে নিয়ে দেশ বিরুধী ষঢ়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তারেক রহমান একুশ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা মামলার অন্যতম আসামী। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে ঘটে যাওয়া জঙ্গি হামলা গুলোর সাথে তারেক রহমানের ইন্দন রয়েছে বলেও বক্তারা দাবী করেন। বক্তরা বলেন ২০০৪ সালের একুশ আগষ্ট বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার লক্ষে তারেক রহমানের ইন্দনে একুশ আষ্টের গেনেড হামলার ঘটনা ঘটে, এই হামলায় মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেতৃসহ ২৪জন নীরহ মানুষকে প্রাণ দিতে হয়েছে। তারেক রহমান এবং হাওয়া ভবনের মাধ্যমে চারদলীয় জোট সরকারে পৃষ্টপোষকতায় বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের বিস্তার ঘটে, শায়েখ রহমান এবং বাংলাভাই হাওয়া ভবনের সৃষ্টি। বক্তারা বলেন বৃটেন একটি গণতান্ত্রিক দেশ এবং বাংলাদেশের উন্নয়ন সহযোগী তাই ব্রিটিশ সরকারের উচিত হবে তারেক রহমানকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো। সমাবেশে অন্যানের মাঝে বক্তব্য রাখেন ইউকে আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডরীর সভাপতি আলহাজ্ব শামসুদ্দিন খান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক মারুফ চৌধুরী, নুরুল হক লালা মিয়া, আলতাফুর রহমান মোজাহিদ, অনুকুল তালুকদার ডালটন, সুশান্ত দাস গুপ্ত, ইউকে যুবলীগের সেক্রেটারী সেলিম আহমদ খান, জামাল আহমদ খান মেহের নিগার চৌধুরী, হোসনেয়ারা মতিন, আনজুমান য়ারা আঞ্জু, মুসলিমা শামস বন্নি প্রমুখ। সমাবেশ শেষে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সভাপতি প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক সুলতান মাহমুদ শরীফ, ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী নইমুদ্দিন রিয়াজ, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের যুগ্মসম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী ও উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতি আলহাজ্ব শামসুদ্দিন খানের নেতৃত্বে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরাবরে একটি স্মারক লিপি প্রদান করা হয়। স্মারক লিপিটি গ্রহন করেন প্রধানমন্ত্রীর অফিসের একজন কর্মকর্তা। স্মারক লিপিতে উল্লেখ করা হয় তারেক রহমান এজন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী এছাড়া বিচারাধীন একুশ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা মামলার পলাতক আসামী। তাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।

সন্ত্রাসীরা মানবতার শত্রু এদের কোন জাতি ধর্ম নেই

লন্ডনঃ জঙ্গি সন্ত্রাসীরা মানবতার শত্রু এদের কোন জাতি ধর্ম নেই,এদের পরিচয় এরা জঙ্গি। এই গোষ্ঠী পবিত্র ধর্ম ইসলামের নাম ব্যবহার করে ইসলামকে কলংকিত করছে। ইসলামের সাথে এদের কোন সম্পর্ক নেই। বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন নামে এরা জঙ্গি তৎপরতা চালাচ্ছে জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষের উচিত এদের প্রতিহত করা। তালেবান, আল কায়দা, হিযবুত তাহরির, বকুহারাম, লস্করী তৈয়বা, জয়েসী মোহাম্মদ, ইন্ডিয়ান মোজাহিদীন, জেমবি, আনসারুল্লা বাংলাটিম নামে দেশে দেশে কর্ম তৎপরতা চালালেও এদের শেকড় এক জায়গায় এরাই আইএস। এসব জঙ্গিদের বিরুদ্ধে প্রতিরুধ গড়ে তোলতে হবে। বর্জকণ্ঠে আওয়াজ তুলুন জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসবাদ ধ্বংশ হোক নিপাত যাক। লন্ডনে জঙ্গিবাদ বিরুধী মানববন্ধনে বক্তারা এসব কথা বলেন। বক্তারা বলেন যারা এসব জঙ্গিগোষ্ঠীকে মদদ দিচ্ছে ও অর্থের যোগান দিচ্ছে এদের চিহ্নিত করতে হবে। বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্টীকে লন্ডন থেকে একটি গোষ্টী অর্থের যোগান দিচ্ছে। লন্ডনের জঙ্গি অর্থের যোগান দাতাদের চিহ্নিত করারও আহবান জানান বক্তারা। যুক্তরাজ্য ঘাতক-দালাল নির্মুল কমিটি আয়োজিত মানব বন্ধনে বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। আজ ২০ আগষ্ট লন্ডন সময় বিকেল চারটায় ইষ্টলন্ডনের আলতাব আলী পার্কের শহীদ মিনার চত্তরে এই মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। যুুক্তরাজ্য নির্মল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সৈয়দ এনামূল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সহকারী সেক্রেটারী জামাল আহমদ খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ, যুক্তরাজ্য আওয়ামীরীগের যুগ্মসম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, সংবাদিক সৈয়দ আনাছ পাশা, বাবু শুসান্ত দাস গুপ্ত, টিভি প্রেজেন্টার উর্মি মাযহার, এডভোকেট মুজিবুল হক মনি, শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল, এডভোকেট হারুনুর রশিদ, রুবি হক, স্মৃতি আজাদ্, সাজিয়া সুলতানা ¯œীগ্ধা, হোসনেয়ারা মতিন, ড. আনিছুর রহমান আনিছ, আলহাজ্ব আসহাব উদ্দিন, সাংবাদিক সায়েম চৌধুরী, রফিকুল হাসান খান জিন্না, আবেদ আলী, ফাতেমা নার্গিস,সৈয়দা নাজনিন সুলতানা শিখা, কামরুন নাহার লিপি, সাংবাদিক সালা উদ্দিন শাহিন, সিন্থিয়া আরেফিন, রেদওয়ান খান, এম ইকবাল হোসেন, সায়েদুর রহমান সাদ, ফখরুল ইসলাম জামাল, আবুল ফয়েজ, আব্দুল হাফিজ খান, আহসান হাফিজ প্রমুখ।

সন্ত্রাসীরা মানবতার শত্রু এদের কোন জাতি ধর্ম নেই পরিচয় এরা জঙ্গি

লন্ডনঃ জঙ্গি সন্ত্রাসীরা মানবতার শত্রু এদের কোন জাতি ধর্ম নেই,এদের পরিচয় এরা জঙ্গি। এই গোষ্ঠী পবিত্র ধর্ম ইসলামের নাম ব্যবহার করে ইসলামকে কলংকিত করছে। ইসলামের সাথে এদের কোন সম্পর্ক নেই। বিশ্বব্যাপী বিভিন্ন নামে এরা জঙ্গি তৎপরতা চালাচ্ছে জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষের উচিত এদের প্রতিহত করা। তালেবান, আল কায়দা, হিযবুত তাহরির, বকুহারাম, লস্করী তৈয়বা, জয়েসী মোহাম্মদ, ইন্ডিয়ান মোজাহিদীন, জেমবি, আনসারুল্লা বাংলাটিম নামে দেশে দেশে কর্ম তৎপরতা চালালেও এদের শেকড় এক জায়গায় এরাই আইএস। এসব জঙ্গিদের বিরুদ্ধে প্রতিরুধ গড়ে তোলতে হবে। বর্জকণ্ঠে আওয়াজ তুলুন জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসবাদ ধ্বংশ হোক নিপাত যাক। লন্ডনে জঙ্গিবাদ বিরুধী মানববন্ধনে বক্তারা এসব কথা বলেন। বক্তারা বলেন যারা এসব জঙ্গিগোষ্ঠীকে মদদ দিচ্ছে ও অর্থের যোগান দিচ্ছে এদের চিহ্নিত করতে হবে। বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্টীকে লন্ডন থেকে একটি গোষ্টী অর্থের যোগান দিচ্ছে। লন্ডনের জঙ্গি অর্থের যোগান দাতাদের চিহ্নিত করারও আহবান জানান বক্তারা। যুক্তরাজ্য ঘাতক-দালাল নির্মুল কমিটি আয়োজিত মানব বন্ধনে বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। আজ ২০ আগষ্ট লন্ডন সময় বিকেল চারটায় ইষ্টলন্ডনের আলতাব আলী পার্কের শহীদ মিনার চত্তরে এই মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। যুুক্তরাজ্য নির্মল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সৈয়দ এনামূল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সহকারী সেক্রেটারী জামাল আহমদ খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, রাজনীতিবিদ আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, বাবু শুসান্ত দাস গুপ্ত, এডভোকেট মুজিবুল হক মনি, শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল, এডভোকেট হারুনুর রশিদ, রুবি হক, স্মৃতি আজাদ্, সাজিয়া সুলতানা ¯œীগ্ধা, হোসনেয়ারা মতিন, ড. আনিছরি রহমান আনিছ, আলহাজ্ব আসহাব উদ্দিন প্রমুখ।

নর্থ স্টাফোর্ডশায়ার শাখা আওয়ামী লীগের শোক সভা

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ নর্থ স্টাফোর্ড শায়ার শাখা (স্টক অন ট্রেনট) এর উদ্যোগে গত ১৭ আগস্ট স্থানীয় বিলাস রেস্টুরেন্টে দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয় !
সংগঠনের সহ-সভাপতি আবুল কাদির চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক আবু ইউসুফ চৌধুরীর পরিচালনায় সভায় শুরুতে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। আমিনুল হকের কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে শুরু হওয়া সভায় বক্তব্য রাখেন এনায়েত কবির শাহীন, সুয়েব আহমদ চৌধুরী, গিয়াস উদ্দিন দুলাল, আমির হোসেন, মোঃ লাভলু প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।

সভা শেষে সকল শহীদদের আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়া করা হয় !

বঙ্গবন্ধু কোন দলের নন, তিনি সমগ্র জাতির : আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী

লন্ডনঃ পৃথিবীতে অনেক নেতা এসেছেন, কিন্তু বঙ্গবন্ধুর মত নেতার আর্বিভাব ঘটেনি। বঙ্গবন্ধু ছাত্রজীবন থেকে স্বাধীন বাংলার স্বপ্ন দেখেছিলেন। তিনি বাংলার মানুষের অধিকার আদায়ের পাশাপাশি ভাষা ও সংস্কৃতির জন্যে আন্দোলন করেছেন। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে আরো গবেষণার প্রয়োজন আছে। এমন্তব্য অমর একুশে গানের রচয়িতা প্রবীণ সাংবাদিক আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরীর। ১৬ আগষ্ট মঙ্গলবার রাতে সেন্ট্রেল লন্ডনের টাওয়ার ব্রীজের ইন্ডিয়ান ফিউশন রেষ্টুরেন্ট যুক্তরাজ্য বঙ্গবন্ধু পরিষদ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এমন্তব্য করেন। আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী বলেন বঙ্গবন্ধু সবার উর্ধে তিনি কোন দলের নয় তিনি সমগ্র জাতির। বঙ্গবন্ধু শুধু আমাদের পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করেননি এদেশে অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির প্রবর্তকও বটে। যুক্তরাজ্য বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা কয়ছর এম সৈয়দের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক আলিমুজ্জামানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লন্ডনস্থ বাংলাদেশ মিশনের ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার খন্দকার এম তালহা, অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক হাইকমিশনার মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস উদ্দিন, লন্ডন্থ বাংলাদেশ মিশনের মিনিষ্টার প্রেস সাংবাদিক নাদিম কাদির, টিভি উপস্থাপক সৈয়দ নিয়াজ আহমেদ। জাতির জনকের উপর স্বরচিত কবিতা পাঠ করেন কথা সাহিত্যিক ও নাট্যকার আশরাফ মাহমুদ নেছওয়ার। শোক দিবসের আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন রিনা মোর্শারফ, সাংবাদিক মতিয়ার চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা লোকমান হোসেন, বিবিপি‘র কোষাধ্যক্ষ জাহাঙ্গির খান, মোবারক আলী, শাহাব উদ্দিন চঞ্চল,জামাল আহমদ খান, রেডিও প্রেজেন্টার নজরুল ইসলাম অকিব, আলতাফুর রহমান চৌধুরী মিতা, আলী আকবর চৌধুরী ,শিহাব চৌধুরী, আব্দুল হালিম প্রমুখ।

লন্ডনে শোক দিবসের আলোচনা সভা : শোককে শক্তিতে পরিণত করার প্রত্যয়

মতিয়ার চৌধুরীঃ জাতীয় শোককে শক্তিতে পরিনত করতে হবে আর এই শক্তির চাকা যেন বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজকে এগিয়ে নিতে সচল থাকে। লন্ডনস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন আয়োজিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪১তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের আলোচনায় সভায় বক্তারা এভিমত ব্যক্ত করেন। বক্তারা বলেন স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি দেশের অগ্রযাত্রাকে ব্যহত করতে একের পর এক ষঢ়যন্ত্র করে যাচ্ছে, এরা চাইছে বাংলাদেশকে একটি উগ্রসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রে পরিণত করতে। দলমত নির্বিশেষে আমাদের সকলকে উগ্রবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে। ১৫ আগষ্ট সোমবার লন্ডন সময় সকাল ১১টায় সাউথ ওয়েষ্ট লন্ডনের সেলসী ওল্ডটাউন হলে ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার খন্দকার এম তালহার সভাপতিত্বে ও ফাষ্ট সেক্রেটারী সায়েম আহমদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত শোক দিবসের আলোচনা সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অমর একুশে গানের রচয়িতা প্রবীণ সাংবাদিক কলামিষ্ট আব্দুল গাফফার চৌধুরী, সব্যসাচী লেখক কবি সৈয়দ সামসুল হক। অনুষ্টানে বক্তব্য রাখেন প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ, যুক্তরাজ্য মহিলা আওয়ামীলীগের প্রেসিডেন্ট খালেদা কোরেশী, সাবেক ছাত্রনেতা মারুফ চৌধুরী ও মুক্তিযোদ্ধা ফয়েজুর রহমান খান, জাতির জনকের উপর কবিতা আবৃত্তি করেন টিভি প্রেজেন্টার উর্মি মাজহার। অনুষ্টানের শুরুতে জাতির জনক ও ১৫ আগষ্টের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জনিয়ে একমিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এর পর জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার ও হাইকমিশনের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ। এর পর একে একে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ, ডক্টর এসোসিয়েশন ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও যুক্তরাজ্য মহিলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ। সভার শুরুতে রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আব্দুল হামিদের বাণী পাঠ করেন বাংলাদেশ মিশনের আর্মি এ্যাটাচী ব্রিগেডিয়ার শেখ পাশা হাবিব উদ্দিন, প্রধান মন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন মিনিষ্টার কাউন্সিলার এম জোবায়ের, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন মিনিষ্টার প্রেস সাংবাদিক নাদিম কাদির ও পররাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন কাউন্সেলার রাজনৈতিক এম আই আবেদিন । সাংবাদিক আব্দুল গাফফার চৌধুরী বলেন বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ এই সূত্রে গাঁথা। বঙ্গবন্ধু আমাদের শুধু স্বাধীনত্ াএনেই দেননি, বাঙ্গালী হিসেবে বিশ্বদরবারে আমাদের পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন।

সব্যসাচী লেখক শামসুল হক বঙ্গবন্ধু এবং আমাদের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে কয়েকটি ঘটনার উল্লেখ করে বলেন, তিনি বিবিসিতে কর্মরত থাকাকালীন সময় প্রথম পাকিস্তানীদের আত্মসমর্পনের খবরটি প্রচার করেছিলেন এর পর বঙ্গবন্ধু যখন পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে লন্ডন আসেন তখন বঙ্গবন্ধুর সাথে দেখা করেছিলেন পরবর্তিতে জাতির জনককে হত্যার পর লন্ডন্থ বাংলাদেশ মিশনে গিয়েছিলেন সংবাদ সংগ্রহ করতে তখনকার কুটনৈতিকদের দ্বারা জাতির পিতা ছবি নামিয়ে ভাংচোর করা ও স্বাধীনতা বিরুধের উল্লাসের কথা স্মরন করিয়ে দিয়ে বলেন বর্তমান কুঠনীতিকরা যেন এমন না হয়, সেই সাথে তিনি জাতির জনকের জন্ম শতবার্ষিকীতে লন্ডনে এর একটি অনুষ্টান আয়োজনের জন্যে সরকারের প্রতি আহবান জানান। তিনি বলেন বৃটেনের সাথে বঙ্গবন্ধুর সম্পর্ক অবিচ্ছেদ্য। লন্ডন্থ বাংলাদেশ মিশনের পক্ষ থেকে জাতীয় শোক দিবসে একটি স্মরনিকা প্রকাশ করা হয়। দ্বিভাষিক এই স্মরনিকায় বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে খ্যাতিমান লেককদের কয়েকটি লিখা স্থান পায়।

বঙ্গবন্ধুর মত নেতার জন্ম না হলে দেশ স্বাধীন হতো না এমপি মুনিম চৌধুরী

রাকিল হোসেন নবীগঞ্জ সংবাদদাতা:নবীগঞ্জ-বাহুবল আসনের সংসদ সদস্য এম এ মুনিম চৌধুরী বাবু বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর মত নেতার জন্ম না হলে দেশ স্বাধীন হতো না। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে দেশের উন্নয়নকে অনেক পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল। দেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে দেশীয় কিছু রাজাকার,আলবদররা পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীকে সহযোগীতা করার জন্য দীর্ঘ ৯ মাস যুদ্ধ করতে হয়েছে। বিএনপি সরকার ক্ষমতায় এসে রাজাকারদের গাড়ীতে পতাকা উড়ানোর সুযোগ দিয়ে জাতীয় পতাকার অবমাননা করেছে। তাই এসব রাজাকার,আলবদর জঙ্গীদের থেকে সাবধান থাকর আবহান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, নবীগঞ্জ-বাহুবল এলাকায় কোন জঙ্গী ধরে দিতে পারলে তাকে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়া হবে। তিনি গতকাল সোমবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদ কর্তৃক আয়োজিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪১ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে অনুষ্টিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। আলোচনার পূর্বে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পন ও শোক র‌্যালী অনুষ্টিত হয়। নবীগঞ্জ উপজেলার নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা তাজিনা সরোয়ার’র সভাপতিত্বে এবং সহকারী কমিশনার ভূমি জিতেন্দ্র কুমার নাথের পরিচালনায় এতে বিশেষ অথিতি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এডভোকেট আবুল ফজল, নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর হোসেন চৌধুরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম, নবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান ইমদাদুল রহমান মুকুল,উপজেলা জাসদের সভাপতি মোঃ আব্দুর রউপ, নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল বাতেন খাঁন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ রথীন্দ্র চন্দ্র দেব, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ মিলু, পৌরসভার প্যানেল মেয়র এটি এম সালাম, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি প্রভাষক উত্তম কুমার পাল হিমেল, নবীগঞ্জ পৌর আওয়ামীগে সভাপতি হাজ্বী মোজাহিদ আলম,উপজেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব মাহমুদ চৌধুরী,উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি শাহনুর আলম ছানু। এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন,উপজেলা,সেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম আহবায়ক ইকবাল আহমদ বেলাল, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু সালেহ জীবন প্রমূখ। এ সময় বিভিন্ন্ সংগঠন,সরকারী বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং রাজনীতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভার শুরুতে কোরআন তেলওয়াত করেন মাওলানা আব্দুল করিম, গীতা পাঠ করেন বিপুল চক্রবর্তী। পরে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেধা বৃত্তি প্রদান ও যুব ঋন প্রদান করা হয়। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী বলেন,শোক দিবস আজ শুধু আওয়ামীলীগের দিবস নয়, এখন সেটা জাতীয় দিবস,রাষ্টীয় দিবস। বঙ্গবন্ধু দেশের সাধারন মানুষের ভাগ্যেন্ন্য়নে ভাবতেন বলেই একটি সাধারন বাড়ীতে আততয়ীদের হাতে খুন হন। তিনি দেশের বর্তমান জঙ্গীবাদ পরিস্থিতির উপর আলোকপাত করে বলেন, যারা এদেশে জঙ্গীবাদ করেন তাদেরকে সরকারী খরচে পাসপোর্ট ও ভিসা দিয়ে পাকিস্তান,আফগানিস্তান ও সিরিয়া চলে যাওয়ার পরামর্শ দেন। এদিকে ইনাতগঞ্জ ডিগ্রি কলেজ,মোস্তফাপুর আলিম মাদ্রাসা,নাদামপুর উচ্চ বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্টানে শোক দিবস উপলক্ষে র‌্যালী,আলোচনা সভাসহ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পস্পমাল্য অর্পন করেছে।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net