শিরোনাম

Monthly Archives: সেপ্টেম্বর ২০১৭

লন্ডন আন্ডার গ্রাউন্ড ট্রেনে বোমা হামলা

লন্ডনঃ আজ সকাল আটটা ত্রিশ মিনিটে অফিস আওয়ারে ব্যস্ত সময় নর্থওয়েষ্ট লন্ডনের পার্লমাসগ্রীন আন্ডার গ্রাউন্ড ষ্টেশনে ডিস্ট্রিক লাইনের একটি আন্ডার গ্রাউন্ড টেনে এ বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় অন্ততপক্ষে ২৪জন আহত হয়েছেন। ট্রেনটি উইমবিল্ডন থেকে বার্কিং যাচ্চিল। হামলার সাথে কে বা কারা জড়িত তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে মেট পুলিশের ধারনা এটি ইসলামিষ্ট সস্ত্রাসীদের দ্বারা সংঠিত হযেছে। আহত ১৩ জনের অবস্থা আশংকাজন, পুশিল ষ্টেশসটি বন্ধ করে দিয়েছে। সমগ্র এরাকায় চলছে সাড়াশি অভিযান, বোমা হামলায় আহতদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

স্বাধীনতা বিরোধীদের অপপ্রচারের কারনে বাংলাদেশ সম্পর্কে বিদেশীদের ভূল ধারনা পাল্টে দিয়েছেন নাদিম কাদির বিদায় সম্বর্ধনা অনুষ্টানে বক্তারা

লন্ডনঃ নাদিম কাদির লন্ডনে মিনিষ্টার প্রেস হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে বেশ দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। লন্ডনের বাংলামিডিয়া এবং বৃটেনের বাঙ্গালী কমিউনিটির সাথে বাংলাদেশ মিশনের সুসম্পর্ক তৈরী, অন্য দিকে বৃটেনের মেইনষ্টীম মিডিয়ায় লেখনীর মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রজেটিভ দিকগুলো সফল ভাবে তুলে ধরতে সক্ষম হয়েছেন। তিনি অত্যন্ত সুদক্ষভাবে বাংলাদেশ সরকারের উন্নয়ন মূলক দিক গুলো বৃটেনের পত্রপত্রিকায় তুলে ধরেছেন যা ইতিপূর্বে লক্ষ্য করা যায়নি। অনেক বিদেশী আছেন যারা স্বাধীনতা বিরোধীদের অপপ্রচারের কারনে বাংলাদেশ সম্পর্কে ভূল ধারনা পোষন করতেন নাদিম কাদির তাদের সেই ধারনা পাল্টে দিয়েছেন। তিনি একাধারে একজন সফল সাংবাদিক এবং দক্ষ কুটনীতিক । তিনি লন্ডনে থাকলে বৃটেনের বাঙ্গালী কমিউনিটি এবং দেশ আরো উপকৃত হত।
pict-2
যুক্তরাজ্য ঘাতক-দালাল নির্মুল কমিটি আয়োজিত লন্ডন মিশনের প্রেসমিনিষ্টার নাদিম কাদিরের বিদায় সম্বর্ধনা অনুষ্টানে বক্তারা এঅভিমত ব্যক্ত করেন। বক্তারা বলেন তিনি একজন সাদা মনের মানুষ যেখানেই যান না তার কাজে দেশ এবং জাতি উপকৃত হবে, বক্তরা তার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু এবং সফলতা কামনা করেন। গতকাল ১৩ সেপ্টেম্বর বুধবার সন্ধ্যায় ইষ্টলন্ডনের আমারগাঁও রেস্তুরায় যুক্তরাজ্য ঘাতক-দালাল নির্মুল কমিটির অনারারী প্রেসিডেন্ট প্রবীণ সাংবাদিক ইসহাক কাজলের সভাপতিত্বে ও নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী জামাল খানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত বিদায় সম্বর্ধনা অনুষ্টানে বক্তব্য রাখেন ঘাতক-দালাল নির্মুল কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য সাংবাদিক আনসার আহমেদ উল্লাহ, যুক্তরাজ্য ঘাতক-দালাল নির্মুল কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট সাংবাদিক মতিয়ার চৌধুরী, এটিএন বাংলার প্রেজেন্টার সাংবাদিক উর্মি মজহার, বাংলাটিভির নিউজ এডিটর মিলটন রহমান, নির্মূল কমিটির সহকারী সেক্রেটারী স্মৃতি আজাদ, সাংগঠননিক সম্পাদক রুবি হক, কমিউনিটি নেতা গয়াছুর রহমান গয়াছ, নির্মুল কমির কোষাধ্যক্ষ শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল, সদস্য বাতিরুল হক সরদার, সদস্য বাছিরুল হক, সাংবাদিক হামিদ মোহাম্মদ,কমিউনিটি নেতা শেখ আশরাফুজ্জামান,নারীনেত্রী হোসনেয়ারা মতিন, জগন্নাথপুর ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাষ্টের সাবেক সেক্রেটারী আঙ্গুর আলী, সাবেক ডেপুটি মেয়র শহীদ আলী, সাংবাদিক মোসলেহ উদ্দিন আহমেদ, সাংবাদিক সরওয়ার হোসেন, সাংবাদিক হেফাজুল করিম রাকিব, গণজাগরণ মঞ্চের সিনথিয়া আরেফিন, শিল্পি গৌরি চৌধুরী,রাইসুল ইসলাম. মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাদি, মিঠু আজাদ. তপু আহমেদ. ডালিয়া রহমান, ব্যারিষ্টার ফারা, সালমা আক্তার, ফাতেমা নার্গিস, মোসস্তফা কামাল মিলন সালমা আক্তার প্রমুখ। নাদিম কাদির বলেন আপনারা আমাকে আপন করে নিয়েছেন যেখানেই যাই না কেন আপনাদের সাথে আমার সম্পর্ক থাকবে। তিনি বলেন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন এবং দেশের সাম্প্রদায়িক সম্পৃতি অটুট রাখতে আমাদের সকলকে শেখ হাসিনার পাশে দাড়াতে হবে।

প্রতিটি বাঙ্গালীর উচিত আমাদের ভাষা সংস্কৃতি ও কৃষ্টিকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরা —–সাংবাদিক উর্মি রহমান

লন্ডনঃ বর্তমানে ভারতের কলকাতায় বসবাসরত বিবিসি‘র সাবেক সাংবাদিক ও বিশিষ্ট লেখক উর্মি রহমান বলেন প্রতিটি বাঙ্গালীর উচিত আমাদের ভাষা সংস্কৃতি ও কৃষ্টিকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরা। তিনি তাঁর লন্ডন জীবনের স্মৃতিচারন করতে গিয়ে বলেন বাঙ্গালীত্ব জাহির করতে লন্ডনের বাঙ্গালীদের নিয়ে গ্রন্থ রচনা করি ‘‘ ব্রিকলেনের বাঙ্গালী টল’’। এই গ্রন্থে উঠে এসেছে বিলেতে বাঙ্গালীদের বসতি স্থাপনের ইতিহাস আমাদের কৃষ্টি ও ক্যালচার। বিদেশী লেখক গবেষকরা আমাদের কৃষ্টি ক্যালচারকে জানতে এই গ্রন্থটিকে রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহার করছেন কিন্তু দুঃখ জনক হলেও সত্যি যে স্বাধীন বাংলাদেশ থেকে মৌলবাদীরা আমাদের সংস্কৃতিকে বিতারিত করতে চাইছে। স্বাধীনতা বিরোধীরা ধর্মের দোহাই তোলে আমাদের ঐতিহ্যগুলোকে ধ্বংশ করছে। উগ্র মৌলবাদীদের সাথে অনেক ক্ষেত্রে সরকার আপোষ করে চলছে, ্এমনটি চলতে দেয়া যায়না। BWJF1
গতকাল ১৩সেপ্টেম্বর দুপুরে ইষ্টলনডনের একটি রেষ্টুরেন্টে যুক্তরাজ্য বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরামের সদস্যদের সাথে এক আড্ডায় তিনি এসব কথা বলেন। উর্মি রহমান বলেন কেউ যাতে ধর্মের দোহাই দিয়ে আমাদের সংস্কৃতিকে ধ্বংশ করতে না পারে এবিষয়ে আমাদের সকলকে সজাগ থাকতে হবে। বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরাম লন্ডন শাখার আহবায়ক বাতিরুল হক সরদারের সভাপতিত্বে ও শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল ও রুমি হকের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আড্ডায় আরো উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরামের প্রেসিডেন্ট মনির হোসাইন, সাংবাদিক আনসার আহমেদ উল্লাহ, সাংবাদিক মতিয়ার চৌধুরী, যুক্তরাজ্য ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটির সভাপতি সৈয়দ এনামুল ইসলাম, নাট্যাভিনেতা স্বাধীন খসরু, ফিলাম মেকার রুহুল আমিন, কবি ফারুক আহমেদ রনি, সাংবাদিক হেফাজুল করিম রাকিব, সাদেক আহমদ চৌধুরী প্রমুখ। আড্ডায় সাংবাদিক উর্মি রহমানকে ফুল দিয়ে বরন করেন সংগঠনের সদ্যরা, লেখক উর্মি রহমানের হাতে বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরাম কর্তৃক প্রকাশিত গ্রন্থ তুলে দেন বাতিরুল হক সরদার।
ক্যাপশনঃ ছবি আছে।

প্রতিটি বাঙ্গালীর উচিত আমাদের ভাষা সংস্কৃতি ও কৃষ্টিকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরা —–সাংবাদিক উর্মি রহমান

লন্ডনঃ বর্তমানে ভারতের কলকাতায় বসবাসরত বিবিসি‘র সাবেক সাংবাদিক ও বিশিষ্ট লেখক উর্মি রহমান বলেন প্রতিটি বাঙ্গালীর উচিত আমাদের ভাষা সংস্কৃতি ও কৃষ্টিকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরা। তিনি তাঁর লন্ডন জীবনের স্মৃতিচারন করতে গিয়ে বলেন বাঙ্গালীত্ব জাহির করতে লন্ডনের বাঙ্গালীদের নিয়ে গ্রন্থ রচনা করি ‘‘ ব্রিকলেনের বাঙ্গালী টল’’। এই গ্রন্থে উঠে এসেছে বিলেতে বাঙ্গালীদের বসতি স্থাপনের ইতিহাস আমাদের কৃষ্টি ও ক্যালচার। বিদেশী লেখক গবেষকরা আমাদের কৃষ্টি ক্যালচারকে জানতে এই গ্রন্থটিকে রেফারেন্স হিসেবে ব্যবহার করছেন কিন্তু দুঃখ জনক হলেও সত্যি যে স্বাধীন বাংলাদেশ থেকে মৌলবাদীরা আমাদের সংস্কৃতিকে বিতারিত করতে চাইছে। স্বাধীনতা বিরোধীরা ধর্মের দোহাই তোলে আমাদের ঐতিহ্যগুলোকে ধ্বংশ করছে। উগ্র মৌলবাদীদের সাথে অনেক ক্ষেত্রে সরকার আপোষ করে চলছে, ্এমনটি চলতে দেয়া যায়না। গতকাল ১৩সেপ্টেম্বর দুপুরে ইষ্টলনডনের একটি রেষ্টুরেন্টে যুক্তরাজ্য বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরামের সদস্যদের সাথে এক আড্ডায় তিনি এসব কথা বলেন। উর্মি রহমান বলেন কেউ যাতে ধর্মের দোহাই দিয়ে আমাদের সংস্কৃতিকে ধ্বংশ করতে না পারে এবিষয়ে আমাদের সকলকে সজাগ থাকতে হবে। বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরাম লন্ডন শাখার আহবায়ক বাতিরুল হক সরদারের সভাপতিত্বে ও শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল ও রুমি হকের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আড্ডায় আরো উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরামের প্রেসিডেন্ট মনির হোসাইন, সাংবাদিক আনসার আহমেদ উল্লাহ, সাংবাদিক মতিয়ার চৌধুরী, যুক্তরাজ্য ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটির সভাপতি সৈয়দ এনামুল ইসলাম, নাট্যাভিনেতা স্বাধীন খসরু, ফিলাম মেকার রুহুল আমিন, কবি ফারুক আহমেদ রনি, সাংবাদিক হেফাজুল করিম রাকিব, সাদেক আহমদ চৌধুরী প্রমুখ। আড্ডায় সাংবাদিক উর্মি রহমানকে ফুল দিয়ে বরন করেন সংগঠনের সদ্যরা, লেখক উর্মি রহমানের হাতে বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরাম কর্তৃক প্রকাশিত গ্রন্থ তুলে দেন বাতিরুল হক সরদার।
ক্যাপশনঃ ছবি আছে।

বার্মিংহাম আল ইসলাহ’র দ্বি-মাসিক সভা ও ঈদ পুনর্মিলনী: রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বন্ধের আহ্বান

বার্মিংহাম প্রতিনিধি :  আনজুমানে আল ইসলাহ ইউকে বার্মিংহাম শাখার উদ্যোগে গত ১৩ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুরে বার্মিংহাম বাংলাদেশ মাল্টিপারপাস সেন্টারে পবিত্র ঈদুল আদ্বহা উপলক্ষে ঈদ পুনর্মিলনী ও দ্বি-মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শাখার ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট মাওলানা আতিকুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি মাওলানা মোঃ হুসাম উদ্দিন আল হুমায়দীর সঞ্চালনায় উক্ত সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শাখার ক্যাশিয়ার হাজী সাহাব উদ্দিন, প্রেস ও পাবলিসিটি সেক্রেটারি মাওলানা এহসানুল হক, ট্রেইনিং এন্ড এমপ্লয়মেন্ট সেক্রেটারি মাওলানা বদরুল হক খান, এক্সিকিউটিভ মেম্বার হাজী তারা মিয়া, হাজী আব্দুল গফুর, হাজী মুদ্দছির আলী প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, যুগ যুগ ধরে বার্মায় রোহিঙ্গারা অমানবিক ভাবে নির্যাতিত হয়ে আসছেন। রোহিঙ্গা মুসলমানদের নিজেদের দেশ থেকে উৎখাত করে বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে। নারী-পুরুষ, অসহায় রোগী, শিশুসহ কেউই বার্মার সরকারী বাহিনী এবং বৌদ্ধ সন্ত্রাসীদের আক্রমন থেকে রেহাই পাচ্ছে না। অসংখ্য মানুষকে জীবন্ত পুড়িয়ে মারা হয়েছে।

বক্তারা বলেন, বার্মা থেকে রোহিঙ্গা মুসলমানদের চিরতরে নিশ্চিহ্ন করে দেয়াই এই আক্রমনের লক্ষ। তাঁরা বলেন, রোহিঙ্গা মুসলমানদের ওপর এই অমানবিক নির্যাতন বন্ধ করতে বিশ্বের মুসলমান রাষ্ট্রগুলোকে ভ’মিকা রাখতে হবে। তাঁরা আরও বলেন, বাংলাদেশে পালিয়ে আসা লাখো লাখো রোহিঙ্গা মুসলমানদের সাহায্য করা বিশ্বের মুসলমান রাষ্ট্রগুলোর অবশ্য কর্তব্য।

বক্তারা অবিলম্বে এই নির্যাতন বন্ধ করে রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ দেশে শান্তিতে বসবাসের সুযোগ দেয়ার জন্য বার্মার সরকারে প্রতি আহ্বান জানান।

শাহ সোহেল আমিন’র কবিতা

IMG_2005

 

 

 

মনুষ্যং শরণং গচ্ছামি

-শাহ সোহেল আমিন

 

প্রিয়তমা তোমার শুভ্রবুক হতে নাভিমূল অবধি

“আই”এর উগ্রতায় ব্যুৎক্রান্ত-

হরিয়েছো দেহের দুধে আলতা বালিকারং

নুয়ে পড়েছো দণ্ডিত ঔরসের ফুজিয়ামা ভারে।

অমীমাংসিত বলকানোর ঘনসঙ্গমে

তোমারই নিষিদ্ধ সম্পাদনা-ওয়শিংটন

এখন লাইকান থ্রপের পরিব্রাজক;

জেরুজালেম এক বিষাক্ত শঙ্খচুড়ের নাম-

অং সান যেনো ক্ষুধার্ত শকুনের আরেক নেকড়ে বসন!

 

হে লও পিয়াসী আরাকান-

বিদীর্ণ করেছ কি পাতা ও কুড়ির ত্রিশরণ,

মগেরমুল্লুকে হারিয়েছ কি-

“বুদ্ধং শরণং গচ্ছামি

ধন্মং শরণং গচ্ছামি

শঙ্ঘং শরণং গচ্ছামি”

-তবে কেনো হোঁদল আর্তনাদে পরিতৃপ্ত রাখাইনের বাতাস-

নাফের সুনিপুণ ধারায় রক্তের নির্গতজল

সোনালী দিনের ডিমপাড়া ঘোড়ারএন্ডায়

উদ্বাস্তের অনিশ্চিত বাস-

বেয়নেটের খোচায় নেতিয়ে পড়া

ষোড়শীর মাংশ স্পর্শ করে গণ্ডারের ঠোঁট

উনুনপোড়া মোরগের তন্দুরি হয় জঠরের সুপ্ত শিশু!

 

প্রিয়তমা পরিশোধিত হও-

সুললিত করো তোমার বেবন্দেজশরীর

তুন্দের উঁকি দেওয়া মাইলেনেওরাদের

উদ্ঘাটন করো; সামঞ্জস্য করো-

মনুষ্যং শরণং গচ্ছামি

মনুষ্যং শরণং গচ্ছামি

মনুষ্যং শরণং গচ্ছামি।

রোহিঙ্গা নারীকে জড়িয়ে ধরে কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর গুলিতে নিহত হন আয়েশা বেগমের স্বামী, বাবা ও ভাই। দুই সন্তানকে নিয়ে কোনো রকমে প্রাণ বাঁচাতে পেরেছেন তিনি। এরপর মিয়ানমারের মংডু খয়েরিপাড়ার এই রোহিঙ্গা নারী দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। মঙ্গলবার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কাছে পেয়ে আয়েশা চোখের সামনে স্বজন হত্যার মতো নিজের জীবনের নির্মমতা তুলে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়েন। উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শনে গিয়ে এ সময় শেখ হাসিনাও নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি। আয়েশাকে জড়িয়ে ধরে তিনি কেঁদে ফেলেন। সঙ্গে থাকা ছোট বোন রেহেনাও আবেগ ধরে রাখতে পারেননি। পরে দুই বোন আয়েশাকে সান্ত্বনা দেন এবং তাদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন।
ক্যাম্প পরিদর্শনের সময় আয়েশা ছাড়াও ১২ রোহিঙ্গা নারী-শিশু ও আহত পুরুষদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী কথা বলেন এবং তাদের খোঁজখবর নেন।এ সময় তারাও মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হাতে পরিবারের সদস্যদের করুণ মৃত্যুর বর্ণনা করেন।
তাদের কাছেও নির্যাতনের বর্ণনা শুনে প্রধানমন্ত্রীর চোখে পানি চলে আসে।নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলা শেষে প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে মিয়ানমারকে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বন্ধের আহ্বান জানান।প্রতিবেশী দেশ মিয়ানমারের কোনো অন্যায় মেনে নেওয়া হবে না বলেও কড়া হুঁশিয়ারি দেন তিনি।যতদিন মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা ফেরত যেতে পারবে না, ততদিন তাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়া হবে বলেও ঘোষণা করেন শেখ হাসিনা।
এর আগে মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে ঢাকা থেকে বিমানযোগে কক্সবাজার যান প্রধানমন্ত্রী। পরে কক্সবাজার বিমানবন্দর থেকে সড়কপথে তিনি উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে যান।সেখানে প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরগুলো পরিদর্শন করে তাদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করেন।উল্লেখ্য, বিগত কয়েক দশক ধরে রোহিঙ্গাদের ওপর দেশটির সেনাবাহিনী ও স্থানীয় বৌদ্ধদের নির্যাতন বেড়ে গেছে। সর্বশেষ গত ২৫ আগস্ট থেকে রাখাইনে সেনাবাহিনীর অভিযানে অন্তত ৩ হাজার রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে। আর প্রাণ বাঁচাতে ৩ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।জাতিসংঘ মিয়ানমারের এই হত্যাযজ্ঞকে ‘জাতিগত গণহত্যা’ উল্লেখ করেছে।

লন্ডনে বালাগঞ্জ বিশ্বনাথ ওসমানী নগরবাসী আয়োজিত জনসভায় আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী ঘোষনার দাবী জানিয়েছেন সর্বস্থরের প্রবাসীরা

লন্ডনঃ বালাগঞ্জ-বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগরের উন্নয়নে আনোয়ারুজ্জান চৌধুরী‘র বিকল্প নেই, নিজ এলাকা সহ বৃহত্তর সিলেটের উন্নয়নে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-২ আসন থেকে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের যুগ্মসম্পাদক ও যুক্তরাজ্য যুবলীগের সাবেক সভাপতি আনোয়ারুজ্জান চৌধুরীকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে দেখতে চায় এলাকার মানুষ। গতকাল ১১সেপ্টেম্বর বিকেলে ইষ্ট লন্ডনের ইম্প্রেশন ইভেন্ট হলে প্রবাসী বালাগঞ্জ -বিশ্বনাথ ও ওসমানী নগরবাসী আয়োজিত জনসভায় সিলেট-২ আসন থেকে আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী ঘোষনার দাবী জানিয়েছেন সর্বস্থরের প্রবাসীরা। যুবনেতা ফখরুল ইসলাম মধুর সভাপতিত্বে ও শামসাদুর রহমান রাহিন, মিজানুর রহমান মীরু ও ফয়সল হোসেন সুমনের যৌথ সঞ্চালনায় এবং যুবনেতা জামাল আহমদ খানের সার্বিক তত্বাবধানে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তারা বলেন যে মানুষটি দল এবং দেশের জন্যে দীর্ঘ দিন যাবত নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তাকেই আমরা জাতীয় সংসদে আমাদের প্রতিনিধি হিসেবে দেখতে চাই। তিনি কোন পদে না থাকলেও ওসমানীনগর উপজেলা বাস্তবায়ন সহ নিজ এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। জাতির জনকের আদর্শের পরীক্ষিত সৈনিক আনোয়ারুজাজামান চৌধুরী নির্বাচিত হলে এলাকার উন্নয়ন তথা জাতির জনকের স্বপ্ন দ্রুতবাস্তবায়ন সম্ভব।
2pict-3
দুপুরের পর থেকেই বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে দলমত নির্বিশেষে সর্বস্থরের প্রবাসীরা আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীকে সমর্থন জানাতে সমবেত হন ইম্প্রেশন ইভেন্ট হলে, সভায় বক্তব্য রাখেন বিশ্বনাথ উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান, প্রবাসী বালাগঞ্জ সমিতির প্রতিষ্টাতা প্রেসিডেন্ট কবীর উদ্দিন, বুরুঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মখদ্দুছ আলী, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ চৌধুরী, আফতাব আলী, আব্দুল আজিজ, যুক্তরাজ্য আওয়ামীরীগের উপদেষ্টা এডভোকেট শাহ ফারুক আহমদ, আজহারুল ইসলাম শিপার, সায়েক আহমদ, বালাগঞ্জ ওসমানীনগর এডুকেশন ট্রাষ্টের সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া, অধ্যাপক মশুদ আহমদ, আলতাফুর রহমান চৌধুরী মিতা,নাজমা হোসেন হোসনেয়ারা মতিন, সাজিয়া ন্সিগ্ধা, আনজুমানয়ারা আনজু, সেবুল চৌধুরী,সাংবাদিক সৈয়দ সাদেক আহমদ, শেখ তাহির উল্লাহ, শাহ এস এম মুমিন অয়েছ কামাল, শেখ জিল্লুর রহমান, জাহাঙ্গির হোসেন, নূর আলম, ফয়েজুর রহমান ফয়েজ, মিসবাউর রহমান, শেখ আব্দুস সহিদ, মতছির আহমদ, মশিউর রহমান মশনু , সৈয়দ মহশিন, আবুল কাশেম প্রমুখ। সভায় বিশ্বনাথ উপজেলা চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান বলেন বালাগঞ্জ-বিশ্বনাথ ওসমানীনগরের উন্নয়নে আনোয়ারুজ্জানান চৌধুরীর মতো একজন নিবেতি প্রান মানুষের প্রয়োজন, তিনি বলেন আনোয়ারুজ্জানান চৌধুরী জাতির জনকের আদর্শের একজন পরীক্ষিত সৈনিক, সদালাপী এবং কাজের মানুষ, আমি তার পাশে আছি এবং থাকবো। সভায় আনোয়ারুজ্জান চৌধুরী সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন আওয়ামীলীগ একটি গণতান্ত্রিক দল আপনারা আমাকে এমপি হিসেবে দেখতে চাইলে নিজ নিজ এলাকা থেকে আমার জন্যে দলের কাছে আবেদন করতে হবে। আমার সব চেয়ে বড় পরিচয় আমি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন কর্মী। যতদিন বেঁচে থাকবো আপনাদের পাশে আছি এবং থাকব। সভার শুরুতে ১৯৭৫ সালে নিহত জাতির জন্ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুরর হমান ও তার পরিবারের সকল সদস্যের আত্মার মাগফেরাত কামনা, জননেত্রী শেখ হাসিনার সুস্থাস্থ ও দীর্ঘায়ু কামনা এবং আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীর ইচ্চাপূরনের জন্যে মোনাজত পরিচালনা করেন মৌলানা আব্দাল হোসেন চৌধুরী।

ধর্মীয় লেবাসে জঙ্গীবাদ বিস্তারের প্রবণতা রুখতে সচেতনতার বিকল্প নেই

সুইডেন প্রতিনিধিঃ সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে আয়োজিত সন্ত্রাস বিরোধী এক সেমিনারে বক্তারা বলেছেন, ধর্মীয় লেবাসে জঙ্গীবাদ বিস্তারের প্রবণতা রুখতে সচেতনতার বিকল্প নেই। সরকারী একশনের পাশাপাশি জনগনকে ঐক্যবদ্ধ করে এই অপতৎপরতা রুখতে হবে। গত ৮ সেপ্টেম্বর , শুক্রবার সুইডেনের স্টকহোল্ম এ সন্ত্রাস বিরোধী এই সেমিনারে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন। ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি সুইডেন এর সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আখতারুজ্জামান এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক তরুণ কুমার চৌধুরীর পরিচালনায় সেমিনারে বক্তব্য রাখেন সুইডেনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত নাজমুল ইসলাম, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল সুইডেন এর জেনারেল সেক্রেটারি আন্না লিন্ডেনফোর্স ,স্টকহোম কাউন্টির সাবেক বিচারপতি সৈয়দ আসিফ শাখার, ইউএন এ উপসালার সভাপতি মোনা স্ট্রিন্ডবার্গ, সুইডিশ পেন এর জেনারেল সেক্রেটারি আন্না লিভিয়ান ইনগরভার্সণ, এরিক রোভা হেডলুন্ড, ডেনমার্ক ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির আহবায়ক ড.বিদ্যুৎ বড়ুয়া, আরেফ মাহবুব ও নাজমুল হাসানসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।বক্তারা বলেন, সন্ত্রাসবাদ বর্তমানে গ্লোবাল সমস্যা। কোন দেশের একার পক্ষে এ সমস্যা সমাধান সম্ভব নয়। এটি মোকাবেলায় বিশ্বের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার প্রধান শেখ হাসিনার প্রশংসা করেন বক্তারা। তারা বলেন, রাজনৈতিক আশ্রয়ে কোন দেশে জঙ্গিবাদ লালন করা হলে সেখানে তা নির্মূল করা সহজ হয় না। ধর্মীয় লেবাস ব্যবহার করে জঙ্গিবাদ যাতে বিস্তৃত না হয় সেই জন্য সচেতনতা তৈরী করতে হবে। সেমিনারের শেষ পর্বে শাহরিয়ার কবির এর ‘আল্টিমেট জিহাদ’ ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়। সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, খলিলুর রহমান, তসলিমা মুন, সফিকুল ইসলাম লিটন, জুবাইদুল হক সবুজ, হেদায়েতুল ইসলাম শেলী, রানা হামিদ, শাহিনা খান, মুনিরুল ইসমাল নাহার মমতাজ ও শোভন প্রমুখ।

দেশের মানুষ জাতীয় পার্টিকে আবার ক্ষমতায় দেখতে চায় যুক্তরাজ্য জাপার কর্মী সভায় বক্তারা

লন্ডনঃ জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে দেশে প্রাদেশিক সরকার ব্যবস্থা চালু করবে, জাতীয় পার্টি উন্নয়নে বিশ্বাসী তাই দেশের মানুষ জাতীয় পার্টিকে আবার ক্ষমতায় দেখতে চায়। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে যুক্তরাজ্য জাতীয় পার্টি আয়োজিত কর্মী সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। বক্তারা বলেন সাংগঠনিক সফরের মাধ্যমে যুক্তরাজ্যের প্রতিটি শহরে জাতীয় পার্টির শাখাগুলোকে আরো গতিশীল করতে হবে। গতকাল ১০ সেপ্টেম্বর বিকেলে ইষ্টলন্ডনের মাইক্রো বিজনেন্স সেন্টারে যুক্তরাজ্য জাতীয় পার্টির কনভেনার কাউন্সিলার সামসুল সেলিমের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব কেন্দ্রীয় সদস্য শাহেদ আহমদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কর্মী সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক এমপি ও আগামী সংসদ নির্বাচনে সিলেট -২ বালাগঞ্জ-বিশ্বনাথ ও ওসমানী নগর আসনের জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী মকসুদ ইবনে আজিজ লামা, জাতীয় পার্টির ইউরোপীয়ান কো-অর্ডিনেটর যুক্তরাজ্য জাতীয় পাটির সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান মুজিব, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য ও যুক্তরাজ্য জাতীয় পার্টির জয়েন্ট কনভেনার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-৬ গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার আসনের জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী এডভোকেট মোহাম্মদ এবাদ হোসেন, জাতীয় পার্টির কেনদ্রীয় সদস্য ও ছাতক দোয়ারাবাজার আসনের জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী জাহাঙ্গির আলম, কর্মী সভায় বক্তব্য রাখেন ইউকে জাতীয় পার্টির জয়েন্ট কনভেনার নিজাম উদ্দিন, সুনামগঞ্জ-৩ জগন্নাথপুর ও দক্ষিন সুনামগঞ্জ আসনের জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য প্রার্থী শাহ সাহিদুর রহমান, লন্ডন শাখার কনভেনার আজমল আলী, আমজাদ মোহাম্মদ হোসাইন, মোহাম্মদ মজির উদ্দিন, কবীর আলী, আহমেদ হোসাইন, শাহাব উদ্দিন প্রমুখ।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net