শিরোনাম

Daily Archives: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭

রোহিঙ্গা নারীকে জড়িয়ে ধরে কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর গুলিতে নিহত হন আয়েশা বেগমের স্বামী, বাবা ও ভাই। দুই সন্তানকে নিয়ে কোনো রকমে প্রাণ বাঁচাতে পেরেছেন তিনি। এরপর মিয়ানমারের মংডু খয়েরিপাড়ার এই রোহিঙ্গা নারী দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। মঙ্গলবার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে কাছে পেয়ে আয়েশা চোখের সামনে স্বজন হত্যার মতো নিজের জীবনের নির্মমতা তুলে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়েন। উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শনে গিয়ে এ সময় শেখ হাসিনাও নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি। আয়েশাকে জড়িয়ে ধরে তিনি কেঁদে ফেলেন। সঙ্গে থাকা ছোট বোন রেহেনাও আবেগ ধরে রাখতে পারেননি। পরে দুই বোন আয়েশাকে সান্ত্বনা দেন এবং তাদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন।
ক্যাম্প পরিদর্শনের সময় আয়েশা ছাড়াও ১২ রোহিঙ্গা নারী-শিশু ও আহত পুরুষদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী কথা বলেন এবং তাদের খোঁজখবর নেন।এ সময় তারাও মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হাতে পরিবারের সদস্যদের করুণ মৃত্যুর বর্ণনা করেন।
তাদের কাছেও নির্যাতনের বর্ণনা শুনে প্রধানমন্ত্রীর চোখে পানি চলে আসে।নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলা শেষে প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে মিয়ানমারকে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বন্ধের আহ্বান জানান।প্রতিবেশী দেশ মিয়ানমারের কোনো অন্যায় মেনে নেওয়া হবে না বলেও কড়া হুঁশিয়ারি দেন তিনি।যতদিন মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা ফেরত যেতে পারবে না, ততদিন তাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়া হবে বলেও ঘোষণা করেন শেখ হাসিনা।
এর আগে মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে ঢাকা থেকে বিমানযোগে কক্সবাজার যান প্রধানমন্ত্রী। পরে কক্সবাজার বিমানবন্দর থেকে সড়কপথে তিনি উখিয়ার কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে যান।সেখানে প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরগুলো পরিদর্শন করে তাদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ করেন।উল্লেখ্য, বিগত কয়েক দশক ধরে রোহিঙ্গাদের ওপর দেশটির সেনাবাহিনী ও স্থানীয় বৌদ্ধদের নির্যাতন বেড়ে গেছে। সর্বশেষ গত ২৫ আগস্ট থেকে রাখাইনে সেনাবাহিনীর অভিযানে অন্তত ৩ হাজার রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে। আর প্রাণ বাঁচাতে ৩ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।জাতিসংঘ মিয়ানমারের এই হত্যাযজ্ঞকে ‘জাতিগত গণহত্যা’ উল্লেখ করেছে।

লন্ডনে বালাগঞ্জ বিশ্বনাথ ওসমানী নগরবাসী আয়োজিত জনসভায় আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী ঘোষনার দাবী জানিয়েছেন সর্বস্থরের প্রবাসীরা

লন্ডনঃ বালাগঞ্জ-বিশ্বনাথ ও ওসমানীনগরের উন্নয়নে আনোয়ারুজ্জান চৌধুরী‘র বিকল্প নেই, নিজ এলাকা সহ বৃহত্তর সিলেটের উন্নয়নে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-২ আসন থেকে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের যুগ্মসম্পাদক ও যুক্তরাজ্য যুবলীগের সাবেক সভাপতি আনোয়ারুজ্জান চৌধুরীকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে দেখতে চায় এলাকার মানুষ। গতকাল ১১সেপ্টেম্বর বিকেলে ইষ্ট লন্ডনের ইম্প্রেশন ইভেন্ট হলে প্রবাসী বালাগঞ্জ -বিশ্বনাথ ও ওসমানী নগরবাসী আয়োজিত জনসভায় সিলেট-২ আসন থেকে আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীকে আওয়ামীলীগের প্রার্থী ঘোষনার দাবী জানিয়েছেন সর্বস্থরের প্রবাসীরা। যুবনেতা ফখরুল ইসলাম মধুর সভাপতিত্বে ও শামসাদুর রহমান রাহিন, মিজানুর রহমান মীরু ও ফয়সল হোসেন সুমনের যৌথ সঞ্চালনায় এবং যুবনেতা জামাল আহমদ খানের সার্বিক তত্বাবধানে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তারা বলেন যে মানুষটি দল এবং দেশের জন্যে দীর্ঘ দিন যাবত নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তাকেই আমরা জাতীয় সংসদে আমাদের প্রতিনিধি হিসেবে দেখতে চাই। তিনি কোন পদে না থাকলেও ওসমানীনগর উপজেলা বাস্তবায়ন সহ নিজ এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন। জাতির জনকের আদর্শের পরীক্ষিত সৈনিক আনোয়ারুজাজামান চৌধুরী নির্বাচিত হলে এলাকার উন্নয়ন তথা জাতির জনকের স্বপ্ন দ্রুতবাস্তবায়ন সম্ভব।
2pict-3
দুপুরের পর থেকেই বৃটেনের বিভিন্ন শহর থেকে দলমত নির্বিশেষে সর্বস্থরের প্রবাসীরা আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীকে সমর্থন জানাতে সমবেত হন ইম্প্রেশন ইভেন্ট হলে, সভায় বক্তব্য রাখেন বিশ্বনাথ উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান, প্রবাসী বালাগঞ্জ সমিতির প্রতিষ্টাতা প্রেসিডেন্ট কবীর উদ্দিন, বুরুঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মখদ্দুছ আলী, যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ চৌধুরী, আফতাব আলী, আব্দুল আজিজ, যুক্তরাজ্য আওয়ামীরীগের উপদেষ্টা এডভোকেট শাহ ফারুক আহমদ, আজহারুল ইসলাম শিপার, সায়েক আহমদ, বালাগঞ্জ ওসমানীনগর এডুকেশন ট্রাষ্টের সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া, অধ্যাপক মশুদ আহমদ, আলতাফুর রহমান চৌধুরী মিতা,নাজমা হোসেন হোসনেয়ারা মতিন, সাজিয়া ন্সিগ্ধা, আনজুমানয়ারা আনজু, সেবুল চৌধুরী,সাংবাদিক সৈয়দ সাদেক আহমদ, শেখ তাহির উল্লাহ, শাহ এস এম মুমিন অয়েছ কামাল, শেখ জিল্লুর রহমান, জাহাঙ্গির হোসেন, নূর আলম, ফয়েজুর রহমান ফয়েজ, মিসবাউর রহমান, শেখ আব্দুস সহিদ, মতছির আহমদ, মশিউর রহমান মশনু , সৈয়দ মহশিন, আবুল কাশেম প্রমুখ। সভায় বিশ্বনাথ উপজেলা চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান বলেন বালাগঞ্জ-বিশ্বনাথ ওসমানীনগরের উন্নয়নে আনোয়ারুজ্জানান চৌধুরীর মতো একজন নিবেতি প্রান মানুষের প্রয়োজন, তিনি বলেন আনোয়ারুজ্জানান চৌধুরী জাতির জনকের আদর্শের একজন পরীক্ষিত সৈনিক, সদালাপী এবং কাজের মানুষ, আমি তার পাশে আছি এবং থাকবো। সভায় আনোয়ারুজ্জান চৌধুরী সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন আওয়ামীলীগ একটি গণতান্ত্রিক দল আপনারা আমাকে এমপি হিসেবে দেখতে চাইলে নিজ নিজ এলাকা থেকে আমার জন্যে দলের কাছে আবেদন করতে হবে। আমার সব চেয়ে বড় পরিচয় আমি জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন কর্মী। যতদিন বেঁচে থাকবো আপনাদের পাশে আছি এবং থাকব। সভার শুরুতে ১৯৭৫ সালে নিহত জাতির জন্ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুরর হমান ও তার পরিবারের সকল সদস্যের আত্মার মাগফেরাত কামনা, জননেত্রী শেখ হাসিনার সুস্থাস্থ ও দীর্ঘায়ু কামনা এবং আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীর ইচ্চাপূরনের জন্যে মোনাজত পরিচালনা করেন মৌলানা আব্দাল হোসেন চৌধুরী।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net