শিরোনাম
আবারও অবৈধ দখলের কবলে সিলেটের তারাপুর চা বাগান

আবারও অবৈধ দখলের কবলে সিলেটের তারাপুর চা বাগান

সিলেট থেকে বিশেষ প্রতিনিধিঃ বহুল আলোচিত সিলেটের তারাপুর চা বাগানটি অযত্ন আর অবহেলায় দিন দিন ম্লান হয়ে যাচ্ছে। নেই আগের সেই পরিচর্চ্চা। অবাধে গাছ কেটে বিক্রি করা হচ্ছে সেই সাথে তৈরী হচ্ছে শত শত অবৈধ স্থাপনা এবং নতুন নতুন দোকান কোঠা।এমন অভিযোগ স্থানীযদের। পাঠানুটলা, গোয়াবাড়ি, করেরপাড়াসহ বাগানটির আসপাশের বাসিন্দারা বিষয়টি লিখিতভাবে সিলেটের জেলা প্রশাসককেও জানিয়েছেন। তার পরেও চলছে দখল বানিজ্য। অদৃশ্য কারনে প্রশাসনও পালন করছে নীরব ভূমিকা।
জেলা প্রশাসক বরাবরে পাঠানো অভিযোগ পত্রে বলা হয় ২০১৬ সালে আদালতের রায়ে বাগানটি যখন পূনরায় দেবত্তর সম্পতি হিসেবে গণ্য হয় তখন তারা আশা করেছিলেন বাগানটি আগেকার অবস্থায় ফিরে আসবে, সেই সাথে উন্নয়ন করা হবে বাগানের। কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি। দেখা যাচ্ছে এর ‍উল্টো চিত্র। আদালতের রায়ে বলা হয়েছিল বানান থেকে স্থাপনা উচ্চেদ সহ বাগানটিকে আগরে অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে। যদিও প্রচলিত আইনে রয়েছে বাগান এলাকায় কোন বানিজ্যিক প্রতিষ্টান বা আবাসিক স্থাপনা তৈরী করা যাবেনা, তার পরেও সিলেটের কথিত দানবীর রাগিব আলী বাগানের অভ্যন্তরে প্রতিষ্টা করেছে কলেজ হাসপাতাল সহ শত শত বাড়ী ঘর। আদালেতের আদেশ থাকা সত্বেও প্রশান উচ্ছেদ অভিযান পরিচলনা তো দূরের কথা নতুন করে তৈরী হচ্ছে আবারও নতুন নতুন স্থাপনা।
এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, গত এক বছরে চা বাগানের পরিচর্চ্চা অর্থাৎ ঘাস ছাটাই করা হয়নি কোন প্রকার সার প্রয়োগ করাও হয়নি। তারা বর্তমান মালিকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এনে বলেন, বর্তমান মালিক পংকজ কুমার গুপ্ত বাগানের শত শত সেইড গাছ কেটে বাগানকে একটি পরিত্যাক্ত বাগানে পরিনত করেছেন। এছাড়া তিনি রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের উত্তর পাশে চা গাছ উপড়ে ফেলে ১৮টি দোকান তৈরী করে তা বিক্রি করার তৎপরতা চালাচ্ছেন বলেও আরা অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করেন।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net