শিরোনাম

এ কে এম আব্দুল্লাহ’র দুটি কবিতা

AKM Abdullah (2)
বিস্ময়বৃক্ষ

…একদিন বসন্ত এলে পাহাড়ের বুকে –

আমরা মিলিত হলাম পর্বতচূড়ায়।
আকাশের পবিত্র জ্যোৎস্না মেখে
চারপাশে শুরু হলো ফুলের নাঙা উৎসব।ছুটে যাওয়া
নক্ষত্রবৃন্তের-কষ ; দেহে ল্যেপটে আমরা ঘুমিয়ে গেলে,
রমণীদের হাতে হাতে অঙ্কিত হলো গাঢ় মেহেদীর আলপনা।
বুকের ঘন সৌরভে কুয়াশার মতো ঢেকে গেলো পুরো পৃথিবী।

আর আমাদের মিলনে জন্ম নিল সূর্য এবং সাগর।

সময়ের হাত ধরে নাড়িকাটা উৎসবে একদিন বিচ্ছিন্ন

হলো রাত আর দিন।আর চোখের ক্লান্তি ভোরের ডানায়
উড়ে গেলে,দেখি: নূহের মহাপ্লাবনের শেষপৃষ্ঠার মতো
চারদিকে পড়ে আছে ; ছিন্ন-ভিন্ন বিছানা, চুড়ির

টুকরো,ভাঙা আবেগপাত্র…

পাশ ফিরে তাকাই। দেখি – তুমি সেজদারত ;

ঈশ্বরের খোঁজে।

 

গৃহযাত্রা

জান্নাত থেকে নেমে এলো যে মাটির পুতুল
সে ভুলে গেলো ফিরে যাবার পথ
এখন,কোস্টায় বসে জীবনপেয়ালায়
পান করে হটচকলেটের বুদবুদ।
বহুযুগ কেটে গেলো ঘুমে
যে ঘুমের ভিতর ভাঙলো পর্বত, নূহার তান্নুর
ফেটে গেলো আকাশের বিশাল দুয়ার
সে এখন ভাসমান খড়ের মতো –
ঘুরপাক খায় কুইয়ারা জলকুণ্ডলীর ভিতর।

ক্ষত-বিক্ষত অদৃশ্য ভাবনা
ফ্রেমের মতো ঝুলে আছে দেয়ালে,দ্বিধান্বিত।
নি:স্বজীবন সীমান্তে-এখন চেয়ে থাকে মুখপানে
মায়ার পাঁজর ছিঁড়ে অবশেষে পরাজিত সৈনিক।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net