শিরোনাম
জয়কে অপহরণ ও হত্যা চেষ্টায় জড়িতদের দ্রুত বিচার দাবি যুক্তরাজ্য যুবলীগের

জয়কে অপহরণ ও হত্যা চেষ্টায় জড়িতদের দ্রুত বিচার দাবি যুক্তরাজ্য যুবলীগের

লন্ডনঃ জাতির জনকের দৌহিত্র প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা সজিব ওয়াজিদ জয়কে অপহরণ ও হত্যা চেষ্টার সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করে দ্রুত বিচারের দাবি জানিয়েছে যুক্তরাজ্য যুবলীগ। ২৬ এপ্রিল দুপুরে লন্ডনে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ দাবি জানানো হয় । সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয় যখন বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে ঠিক এই মুহূর্তে বিএনপি‘র প্রত্যক্ষ মদদে চিহ্নিত স্বাধীনতাবিরোধীরা বিষয়টিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে তারাও সমান অপরাধে অপরাধী।anwaruzzaman chy

সংবাদ সম্মেলনে, ষড়যন্ত্রকারীদের সাথে অপপ্রচারকারীরাও বিচার দাবি করা হয় সংবাদ সম্মেলনে। লিখিত বক্তব্যে তাঁরা বলেন,  স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি আজও আমাদের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে মেনে নিতে পারেনি। তাই এই গোষ্ঠী বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে একের পর এক দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। ১৯৭৫ সালে জাতির জনককে স্বপরিবারে হত্যার মাধ্যমে এই অপশক্তি চেয়েছিল বাংলাদেশকে পাকিস্তানে পরিণত করতে এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে মুছে ফেলতে। পরবর্তিতে ২০০৪সালে গ্রেনেড হামলা সহ বিভিন্ন সময় এরা জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে বার বার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। প্রধান মন্ত্রী যখন দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় এসে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন ঠিক এই মূহুর্থে স্বাধীনতা বিরুধীরা দেশে এবং দেশের বাইরে একের পর এক ষঢ়যন্ত্র করে যাচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে দেশে একের পর এক হত্যাকান্ডের সাথে স্বাধীনতা বিরুধী ধর্মান্ধগোষ্ঠী জড়িত, এদের অর্থের উৎস ও রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবি জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।fokrul islam modhu

পূর্ব লন্ডনের ব্রিকলেনের কাফেগ্রীল রেস্টুরেন্টে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয় যখন একের পর এক চিহ্নিত মানবতাবিরুধী অপরাধীর বিচার হচ্ছে তখন এই গোষ্ঠী ধর্মের দোহাই দিয়ে জাতিকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে এবং বিদেশে এনিয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে। সাংবাদিক পরিচয়ধারী শফিক রেহমান ও মাহমুদুর রহমান গংরা আমেরিকাতে সজিব ওয়াজেব জয়কে অপহরণ করে হত্যা প্রচেষ্টার পরিকল্পনা চালায়। বিষয়টি আমেরিকান গোয়েন্দাদের কাছে ধরা পরে। তারাই সেখানে এর সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে বিচার করে। এফবিআইকে ঘুষ দেবার অপরাধে ২০১৫ সালে যুক্তরাস্ট্র জাসাস নেতা মোহাম্মদ উল্লাহ মামুনের ছেলে রিজভী আহমদ সিজারের জেল হয়। আমেরিকান গোয়েন্দাদের তদন্তে বেরিয়ে আসে বাংলাদেশের আরো কয়েকজনের নাম। সেইসব তথ্যাদির ভিত্তিতে বাংলাদেশের গোয়েন্দারা শফিক রেহমানকে গ্রেফতার করে রিমান্ডে নিলে তিনি হত্যা ষড়যন্ত্রের কথা অকপটে স্বীকার করেন, সেই সাথে পুলিশ তার কাছ থেকে বেশ কিছু প্রমাণও জব্দ করেছে। তিনি আরো কয়েক জনের নাম বলেছেন, এর মধ্যে মাহমুদুর রহমান সহ আরো বেশ কয়েকজন রয়েছেন। বিষয়টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে লন্ডনে একটি গোষ্ঠি মিথ্যাচার চালিয়ে যাচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়।।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন যুক্তরাজ্য যুবলীগের সেক্রেটারী সেলিম আহমদ খান, সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন যুক্তরাজ্য যুবলীগের প্রেসিডেন্ট ফখরুল ইসলাম মধু, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের প্রেসিডেন্ট সুলতান মাহমুদ শরীফ, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সেক্রেটারী সৈয়দ, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক জামাল আহমদ খান। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ চৌধুরী, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের প্রবাস বিষয়ক সম্পাদক আনছারুল হক, যুক্তরাজ্য যুবলীগ নেতৃবৃন্দের মধ্যে সভাপতি নাজমুল হোসেন, চৌধুরী ফয়েজুর রহমান মোস্তাক, আজমল আলী, ফিরোজ মিয়া,শেখ নূরুল ইসলাম জিতু, মোদাব্বির হোসেন চুনু, দিলাল আহমদ, আমিনুল ইসলাম রাবেল, জোবায়ের আহমদ,হাফিজুর রহমান সেলিম, দিলদার হোসেন লিটন, লিলু মিয়া তালুকদার, দুলাল আহমদ, হাফিজুর রহমান কানু, মাসুম মিয়া তালুকদার, কাজী মাসুম, নাজমুল ইসলাম ইমন প্রমুখ।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net