শিরোনাম
সিঙ্গাপুরে গ্রেপ্তার হওয়া ছয় বাংলাদেশী জঙ্গির বিরুদ্ধে  অভিযোগ গঠন

সিঙ্গাপুরে গ্রেপ্তার হওয়া ছয় বাংলাদেশী জঙ্গির বিরুদ্ধে  অভিযোগ গঠন

গত মাসে সিঙ্গাপুরে অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা আইনের অধীনে গ্রেপ্তার হওয়া আটজন বাংলাদেশির মধ্যে ছয়জনের বিরুদ্ধে শুক্রবার জঙ্গিবাদে অর্থায়নের অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। সিঙ্গাপুরের সন্ত্রাসবিরোধী আইনে তারাই প্রথম বিচারাধীন।

সিঙ্গাপুরভিত্তিক ইংরেজি দৈনিক দ্য স্ট্রেইটস টাইমসের অনলাইন সংস্করণে বলা হয়েছে, অভিযুক্ত এই ছয়জনকে শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর ২টার দিকে তিনটি পৃথক সাঁজোয়া যানে কঠোর নিরাপত্তায় আদালতে হাজির করা হয়। এই ছয়জনের মধ্যে পাঁচজন দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিতে রাজি হন এবং আগামী মঙ্গলবার তাদের আবারো আদালতে হাজির করা হবে।

জঙ্গিবাদমূলক কার্যকলাপের উদ্দেশ্যে অর্থ সংগ্রহ ও সরবরাহের অভিযোগে আইনটির ৪(ক) অনুচ্ছেদের অধীনে তারা অভিযুক্ত হয়েছেন। অভিযুক্তদের মধ্যে গ্রেপ্তার হওয়া চক্রটির প্রধান রহমান মিজানুর (৩১) ছাড়া বাকিরা হলেন- মামুন লিয়াকত আলি (২৯), সোহেল হাওলাদার ওরফে ইসমাইল হাওলাদার (২৯), জামান দৌলত (৩৪), মোহাম্মদ জাবেদ কায়সার ওরফে হাজি নুরুল ইসলাম সওদাগর (৩০) ও মিয়া রুবেল (২৬)।

রহমানের বিরুদ্ধে একইরকম চারটি ও মামুনের বিরুদ্ধে দু’টি অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। জাবেদ ও মিয়ার বিরুদ্ধে আইনটির পাঁচ নম্বর অনুচ্ছেদের অধীনে জঙ্গিবাদের উদ্দেশ্যে অর্থ রাখার অতিরিক্ত অভিযোগ আনা হয়েছে। মামুন নিজেকে নিরপরাধ বলে দাবি করেছেন এবং আগামী ৯ জুন বিচারপূর্ব শুনানির জন্য তাকে আদালতে হাজির করা হবে। তিনি আদালতকে জানিয়েছেন, তার কাজ ছিল সহকর্মী হোসেন শামিনের কাছ থেকে পাঁচশ’ সিঙ্গাপুরী ডলার নিয়ে তা রহমানের কাছে পৌঁছে দেওয়া। কেবলমাত্র অর্থের লেনদেন ছাড়া আর কোনোকিছুতে জড়িত ছিলেন না তিনি।

টুডে অনলাইন ডটকম জানিয়েছে, অপরাধী বলে প্রমাণিত হলে তাদের প্রত্যেকের প্রতিটি অভিযোগের জন্য পাঁচ লাখ সিঙ্গাপুরী ডলার অর্থদণ্ড, অথবা ১০ বছর করে কারাদণ্ড বা দু’টোই হতে পারে।

আটজন বাংলাদেশি গত এপ্রিলে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। বাকি দু’জন হলেন সোহাগ ইব্রাহিম (২৭) ও ইসলাম শরীফুল (২৭)। এরা সিঙ্গাপুরে অভিবাসী কর্মজীবী হিসেবে ছিলেন। তারা সিঙ্গাপুরে গোপনে একটি জঙ্গি সংগঠন গড়ে তুলেছিলেন। ‘ইসলামিক স্টেট ইন বাংলাদেশ’ নামের কথিত সংগঠনটির পরিকল্পনা ছিল বাংলাদেশকে স্বঘোষিত খিলাফত ও মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) খিলাফতে পরিণত করা। নিজ দেশে সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার লক্ষ্যে হামলার জন্য আগ্নেয়াস্ত্র কিনতে সিঙ্গাপুরে অর্থসংগ্রহ করছিলেন তারা।

সিঙ্গাপুরে বসবাসরত বাংলাদেশী প্রবাসীদের মৌলবাদে জড়িয়ে পড়া ও গ্রেপ্তার হওয়ার এটি দ্বিতীয় ঘটনা।

গত জানুয়ারি মাসে সিঙ্গাপুরের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দেশটিতে কর্মরত ২৭ জন বাংলাদেশি নির্মাণ শ্রমিকের গ্রেপ্তার হওয়ার খবর প্রকাশ করেছিল। বিদেশে সশস্ত্র জিহাদের পরিকল্পনা করা ওই ২৭ জনকে পরে দেশে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

 

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net