শিরোনাম
নবীগঞ্জে নির্বাচন :  ৬ টি আওয়ামী লীগ ৬ টি স্বতন্ত্র ও ১টিতে বিএনপি প্রার্থী বিজয়ী

নবীগঞ্জে নির্বাচন : ৬ টি আওয়ামী লীগ ৬ টি স্বতন্ত্র ও ১টিতে বিএনপি প্রার্থী বিজয়ী

নবীগঞ্জ থেকে রাকিল হোসেন ও উত্তম কুমার পাল হিমেলঃ বিক্ষিপ্ত কিছু ঘটনা ছাড়া ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা ও উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্য দিয়ে গতকাল শনিবার নবীগঞ্জ উপজেলার ১৩ টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়েছে। সকালে বৃষ্টির মধ্যে ভোটারের উপস্থিতি ছিল তুলনা মুলক কম। বৃষ্টি বন্ধ হলে ভোটারের উপস্থিতি বাড়তে থাকে। শনিবার সকাল ৮ টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহন চলে। শান্তিপূর্ণভাবে নারী-পুরুষ ভোটাররা কেন্দ্রে গিয়ে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট প্রদান করছেন।

নির্বচানের বেসরকারী ফলাফল অনুযায়ী ১৩টি ইউনিয়নের মধ্যে আওয়ামীলীগ ৬ টি ইউনিয়নে সতন্ত্র ৬টি এবং ১টিতে বিএনপি প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। বিজয়ীরা হলেন ১ নং বড় ভাকৈর পশ্চিম ইউনিয়নে বিএনপি বিদ্রোহী সতন্ত্র প্রার্থী সত্যজিত দাশ (চশমা) ৩ হাজার ৩ শত ৭১ ভোট, প্রতিদ্বন্ধী পার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান (নৌকা) সমর চন্দ্র দাশ পেয়েছেন ২ হাজার ২ শত ৪১ ভোট, ২নং বড় ভাকৈর পূর্ব ইউনিয়নে বিএনপি বিদ্রোহী আশিক মিয়া ২ হাজার ৫ শত ৫৫ ভোট পেয়ে নির্বাচতি হয়েছেন,তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী বর্তমান চেয়ারম্যান মেহের আলী মালদার (নৌকা) পেয়েছেন ২ হাজার ২ শত ৩ ভোট, ৩ নং ইনাতগঞ্জ ইউপিতে স্বতন্ত্র বজলুর রশিদ(আনারস) ৩ হাজার ৯ শত ৩৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থীছায়েদ উদ্দিন(সতন্ত্র) পেয়েছেন ৩ হাজার ৬ শত ৪২ ভোট, জামাল হোসাইন(নৌকা পেয়েছেন ১ হাজার ৭ শত ১২ ভোট, ৪ নং দীঘলবাক ইউপিতে আওয়ামীলীগের আবু সাঈদ এওলা মিয়া(নৌকা) ৭ হাজার ১ শত ৮০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন,তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী সতন্ত্র ছালিক মিয়া পেয়েছেন ৪ হাজার ৮ শত ৬১ ভোট, ৫নং আউশকান্দি ইউপিতে সতন্ত্র প্রার্থী মুহিবুর রহমান হারুন ৫ হাজার ৫ শত ২৮ ভোট পেয়ে নির্বাচত হয়েছেন। তার নিকট তম প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান দিলাওয়ার মিয়া নৌকা পেয়েছেন ৩ হাজার ৮ শত ৮৭ ভোট পেয়েছেন। ৬নং কুর্শি ইউপিতে আওয়ামীলীগ প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান আলী আহমদ মুস (নৌকা) ৪ হাজার ২ শত ৪০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দি বর্তমান চেয়ারম্যান সৈয়দ খালেদুর রহমান খালেদ(ধানেরশীষ) পেয়েছেন ৩ হাজার ৫ শত ৮৫ ভোট,আব্দুল বাছিত সতন্ত্র(আনারস) পেয়েছেন ২ হাজার ৭ শত ৭৮ ভোট ৭ নং করগাঁও ইউপিতে বিএনপির বর্তমান চেয়ারম্যান ছাইমুদ্দিন (ধানের শীষ) ৭ হাজার ৫ শত ৬২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী নির্মলেন্দু দাশ রানা(নৌকা) পেয়েছেন ৭ হাজার ২ শত ৩১ ভোট। ৮ নং নবীগঞ্জ সদর ইউপিতে আওয়ামীলীগের প্রার্থী সাজু আহমদ চৌধুরী(নৌকা) ৫ হাজার ১ শত ৫৫ বোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল মুক্তাদির চৌধুরী(ধানেরশীষ) পেয়েছেন ৪ হাজার ৩ শত ৯০ ভোট।

৯ নং বাউশা ইউপিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক আবু সিদ্দিক(নৌকা) ৫ হাজার ৮ শত ৯২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম সতন্ত্র প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী ডেইজি (আনারস) পেয়েছেন ৩ হাজার ৫ শত ১৮ ভোট, বর্তমান চেয়ারম্যান সতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ার মিয়া পেয়েছেন ৩ হাজার ৮৫ ভোট। ১০নং দেবপাড়া ইউপিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান এড. জাবিদ আলী(ঘাড়া) প্রতিকে ৪ হাজার ১ শত ৪৭ বোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী সতস্ত্র প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান আ,ক,ম ফখরুল ইসলাম কালাম পেয়েছেন ৩ হাজার ৭ শত ৬৮ ভোট। বিএনপির প্রার্থী আমির হোসেন পেয়েছন ২ শত ৮৮ ভোট। ১১নং গজনাই পুর ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ ইমদাদুর রহমান মুকুল (নৌকা) ৪ হাজার ৯ শত ৩৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান সতন্ত্র প্রার্থী(আনারস) আবুল খয়ের গোলাপ পেয়েছেন ৪ হাজার ১ শত ২৮ ভোট, সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ শাহনেওয়া(চশমা) পেয়েছেন ৩ হাজার ৬ শত ৭ ভোট। ১২ নং কালিয়ারভাঙ্গ ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান সতন্ত্র প্রার্থী(আওয়ামীলীগ বিদ্রহী) মোঃ নজরুল ইসলাম (ঘাড়া) ৩ হাজার ৭ শত ২৬ ভেট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান এমদাদুল হক চৌধুরী(নৌকা) পেয়েছেন ৩ হাজার ৫ শত ৯৯ ভোট।
১৩ নং পানিউমদা ইউপিতে আওয়ামীলীগের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ ইজাজুর রহমান(নৌকা) ৪ হাজার ১ শত ৪০ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধীপ্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান)ঘোড়া) পেয়েছেন ৩ হাজার ৮ শত ৬ ভোট। ১৩ টি ইউনিয়নের ১ শত ৩২ টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহন করা হয়েছে। এর মধ্যে ৮১ ঝুকিপূন কেন্দ্রে পুলিশের পাশাপাশি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে বিজিবি ও র‌্যাব স্ট্র্যাইকিং ফোর্স হিসেবে কাজ করে। নবীগঞ্জ উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অনুষ্টিত ভোট কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করেন হবিগঞ্জ জেলা প্রমাসক সাবিনা আলম। এ সময় তার সাথে ছিলেন নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ,উপজেলা নির্বাচন অফিসার আবু সাইম,নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সেক্রেটারী রাকিল হোসেন, সহ-সভাপতি প্রভাষক উত্তম কুমার পাল হিমেল,দৈনিক হবিগঞ্জ সময় পত্রিকার প্রকাশক মোঃ সেলিম মিয়া তালুকদারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। ১৩টি ইউনিয়নে মোট ভোটার ২ লাখ ৯ হাজার ৭শত ১৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১ লাখ ২ হাজার ৬শত ৭১ জন এবং মহিলা ১ লাখ ৭ হাজার ৪৭ জন।

Scroll To Top

Design & Developed BY www.helalhostbd.net